শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৪

ফিরে দেখা ২০১৯

আলোচনায় ডেঙ্গু সমালোচনায় মশা

জয়শ্রী ভাদুড়ী

আলোচনায় ডেঙ্গু সমালোচনায় মশা

দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এ বছর রেকর্ড ছাড়িয়েছে। রাজধানীর গন্ডি পেরিয়ে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ভাইরাসবাহী এডিস মশা। সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১ হাজার ৩৪৪ জন বলা হলেও বেসরকারি হিসাবে আক্রান্ত ৩ লাখের বেশি। ডেঙ্গুর প্রকোপে সমালোচনায় পড়ে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মশক নিধন কর্মসূচি।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের দেওয়া তথ্যে জানা যায়, রাজধানীর ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন ৫১ হাজার ৮০৪ জন এবং রাজধানী বাদে সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৪৯ হাজার ৫৪০ জন। ডেঙ্গুজ্বরে মারা গেছেন ১৪৮ জন। জুলাই-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়কে ডেঙ্গুর মৌসুম হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এ বছর জানুয়ারি মাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১৮ জন, মার্চে ১৭ জন, এপ্রিলে ৫৮ জন, মে মাসে ১৯৩ জন, জুনে ১ হাজার ৮৮৪ জন, জুলাইয়ে ১৬ হাজার ২৫৩ জন, আগস্টে ৫২ হাজার ৬৩৬ জন, সেপ্টেম্বরে ১৬ হাজার ৮৫৬ জন, অক্টোবরে ৮ হাজার ১৪৩ জন, নভেম্বরে ৪ হাজার ১১ জন এবং ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ২৩৭ জন। এর আগে গত ২০ বছরে দেশে এত মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম ২০০০ সাল থেকে ডেঙ্গু আক্রান্তের তথ্য রাখছে। এতে দেখা যায়, ২০০০ সালে ৫ হাজার ৫৫১ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছিল। ২০০১ সালে কিছু কমলেও ২০০২ সালে রোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ছাড়িয়ে যায়। এরপর থেকে কোনো বছর রোগী কমেছে, কখনো বেড়েছে। অতীতে সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি হয় ২০১৮ সালে, ১০ হাজার ১৪৮ জন। আর গত ১৯ বছরে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া মোট রোগী ৫০ হাজার ১৭৬ জন। অথচ এ বছর শুধু আগস্টেই ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫২ হাজার ৬৩৬ জন। মশক নিধনে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের ঢিমেতালে চলা কর্মসূচিতে ভয়াবহ আকার ধারণ করে ডেঙ্গু। এর মধ্যে মশক নিধনে ছিটানো ওষুধ অকার্যকর প্রমাণ হওয়ায় সমালোচনা ছিল তুঙ্গে। ঈদের সময় ঢাকা থেকে লাখ লাখ মানুষ দেশের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়ে। এতে ডেঙ্গু রোগীর সঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে এডিস মশাও। এতেই দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে ডেঙ্গু। ডেঙ্গুর কারণে তোপের মুখে পড়েন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, ঢাকা উত্তর সিটি মেয়র আতিকুল ইসলাম এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।


আপনার মন্তব্য