শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০১

ড. কামালের গণফোরামের সিদ্ধান্ত

মন্টু, সাইয়িদসহ ৮ নেতা বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে মোস্তফা মহসীন মন্টু ও অধ্যাপক আবু সাইয়িদসহ ৮ জনকে বহিষ্কার করেছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরাম।

গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির এক সভায় এই ৮ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়। সভায় আগামী ১২ ডিসেম্বর জাতীয় কাউন্সিল করারও সিদ্ধান্ত হয়।

আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মোকাব্বির খান এমপির সভাপতিত্বে সভায় সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, আ ও ম শফিকউল্লাহ, মহসিন রশিদ, সুরাইয়া বেগম, জানে আলম ও মোশতাক আহমেদ মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

গণফোরাম থেকে বহিষ্কৃত বাকি ছয়জন হলেন, সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফ্রিক, হেলাল উদ্দিন, লতিফুল বারী হামিম, খান সিদ্দিকুর রহমান ও আবদুল হাসিব চৌধুরী। এদের মধ্যে শেষের চারজনকে আগে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল। গতকাল চূড়ান্ত বহিষ্কার করা হলো। এই সিদ্ধান্ত সভায় উপস্থিত সদস্যরা হাততালি দিয়ে সমর্থন জানালেও মহানগর গণফোরামের হারুন তালুকদার দাঁড়িয়ে বলেন, আমি এসব সিদ্ধান্ত সমর্থন করি না।

পরে সভার সভাপতি মোকাব্বির খান বলেন, একজন সমর্থন করেননি। বাকিরা হাততালি দিয়ে এসব সিদ্ধান্ত সমর্থন করেছেন। সিদ্ধান্তগুলো পাস হলো।

একই সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সংগঠনের সভাপতি ড. কামাল হোসেন সারা দেশে গণফোরামকে বিস্তৃত করার জন্য তরুণ, যুবক ও নারীদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন। দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কাজ না করলে সংগঠন হয় না। আপনারা নিজের সংগঠনকে জোরদার করুন, মজবুত করুন। এই কাজে তরুণদের সঙ্গে নারীদেরও সম্পৃক্ত করুন।

সভায় যেসব বক্তব্য এসেছে তা হলো, দলীয় শৃঙ্খলা না মানা, দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কথা না শোনা, এমন অবস্থায় একটি সংগঠন চলতে পারে না। প্রতিটি দলেই একটা ডিসিপ্লিন থাকে, তার একটা গঠনতন্ত্র থাকে, সবাইকে সেই গঠনতন্ত্র মেনে চলতে হয়। আজ যেভাবে গণফোরামকে নিয়ে কতিপয় ব্যক্তি জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছেন, গণফোরামকে নিয়ে একটা খেলায় মেতে উঠেছেন, সেটা মেনে নেওয়া যায় না।

ড. কামাল হোসেন নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে আরও বলেন, আমাদের যে মূল্যবোধ এটা আপনারা ঘরে ঘরে পৌঁছে দেবেন। মানুষ দেখেছে গণফোরাম সঠিকভাবে কাজ করেছে। তিনি বলেন, আমাদের কাজ হবে দেশের সার্বিক উন্নতির জন্য। মৌলিক অধিকার যেন মানুষ ভোগ করতে পারে সে বিষয়ে মানুষকে বোঝাতে হবে। গণফোরাম সভাপতি বলেন, নারী-পুরুষের বৈষম্য না থাকার বিষয়টি শুধু কাগজে-কলমে থাকলে হবে না, তা মানুষের মধ্যে বিস্তার করতে হবে। এতে দেশ, সমাজ ও মানুষ উপকৃত হবে।

ড. কামাল বলেন, অনেক মানুষ এগিয়ে আসছে সদস্য হওয়ার জন্য, এটা খুবই ভালো লক্ষণ। মানুষ এখানে আসছেন আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে বুঝে। এটাই তার প্রমাণ, একটা সংগঠন সফল হলে মানুষ এখানে এগিয়ে আসে।

সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, এক দলকে ছেড়ে আরেক দল করা বা অন্য দলে চলে যাওয়া এটা অনেক হয়েছে গণফোরামে। কিন্তু দলের ভিতরে থেকে দলের ক্ষতি করার চেষ্টা করাটা খুবই গর্হিত কাজ।

 


আপনার মন্তব্য