শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৮:২০
প্রিন্ট করুন printer

পৌরসভা নির্বাচন

সীতাকুন্ডে প্রথমবার ইভিএমে ভোট, প্রচারণায় মুখর প্রার্থীরা

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

সীতাকুন্ডে প্রথমবার ইভিএমে ভোট, প্রচারণায় মুখর প্রার্থীরা
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড পৌরসভায় প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমেই ভোট দেবেন ভোটাররা। এতে ভোটাররা কীভাবে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট প্রদান-গ্রহণ করবেন, সেই বিষয়ে প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করা হয়েছে।।

একই সঙ্গে শনিবার থেকে অনুশীলনমূলক ‘মক’ ভোট’ গ্রহণও শুরু হচ্ছে। এসব নিয়ে মাঠে কাজ করছেন নির্বাচন কমিশনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

অন্যদিকে, ২৮ ডিসেম্বর সীতাকুন্ডে পৌরসভা নির্বাচনের শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় মন জয় করতে ভোটারদের ঘরে ঘরে, পথে-ঘাটে, চায়ের দোকানসহ প্রচারণার মাঠে রয়েছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। প্রতিটি প্রার্থীই নিজেদের যোগ্যতার পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন তুলে করছেন এবং বিরোধীদলের নেতা-কর্মীদের নির্যাতন, হামলা, মামলা ইত্যাদি তুলে ধরার চেষ্টায় আছেন। তবে যোগ্য ও ত্যাগী এবং এলাকার উন্নয়ন হবে এমন প্রার্থীদের ভোটে নির্বাচিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ভোটাররা।

নির্বাচন কমিশন ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সীতাকুন্ড পৌরসভার বিভিন্ন স্পটে ইভিএমের সচিত্র ভিডিও প্রদর্শন করা হয়েছে ভোটাররা সহজেই ইভিএমের মাধ্যমে কীভাবে ভোট প্রদান করবেন। শনিবার বেশ কয়েকটি এলাকায় মক (অনুশীলনমূলক) ভোটের আয়োজনও করা হয়েছে।

ইভিএমের প্রচার-প্রচারণার পাশাপাশি মক ভোটের মাধ্যমে ভোট দিতে আগ্রহী করে তোলার চেষ্টা করছেন। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ভোটের যন্ত্রপাতি চলে এসেছে। গত বুধবার থেকে দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণের প্রশিক্ষণও শেষ হয়েছে। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা নানাভাবে প্রচার-প্রচারণা করছেন নির্ঘুম-রাত।

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ইভিএম ভোট কিভাবে দিবেন সেই বিষয়ে ভোটারদের উৎসাহ এবং আগ্রহী হিসেবে গড়ে তুলতে নানাভাবে প্রচারণা শুরু করা হয়েছে। মক ভোট গ্রহণ শুরু হবে ২৬ ডিসেম্বর থেকে। ভোটগ্রহণ প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে ৩২০ জন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের নিয়ে। তাছাড়া ২১৬টি ইভিএম মেশিন নির্বাচনী এলাকায় চলে এসেছে। তবে নির্বাচনের বিষয়ে সাবির্ক প্রস্তুতির প্রায় শেষ বলে জানান তিনি।

এলাকার একাধিক ভোটার বলেন, প্রথম বারের মতো ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দেব। এর আগে নির্বাচন কমিশন ভোটারদের আগ্রহী এবং সঠিকভাবে ভোট প্রদানের জন্য ‘মক’ ভোটের পাশাপাশি নানা ধরনের প্রচারণায় কাজ করছেন দায়িত্বশীলরা। তবে যোগ্য প্রার্থী বিবেচনার পাশাপাশি এলাকার উন্নয়নে যারা কাজ করবেন, তাদেরকেই নিয়েই ভোটাররা চিন্তা করবেন বলে জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র বদিউল আলম বলেন, দলের পক্ষ থেকে মনোনয়ন পেয়েই প্রচারণায় আছি। সরকারের উন্নয়নকে আরো গতিশীল করতে নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়ার আহ্বান করছি। তবে দায়িত্ব পেলে আরো বেশি কাজ করার সুযোগ হবে বলেও জানান তিনি।

কাউন্সিলর প্রার্থী মেজবাহ উদ্দিন মিঠু বলেন, নির্বাচনে প্রতিশ্রুতি নয়, কাজেই বিশ্বাস করি। ভোটাররা আশা করছি যোগ্যতার বিবেচনা করেই প্রার্থীদের ভোট দেবেন। তবে এলাকার সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বা কাজ করার সুযোগ দিলে উন্নয়নের পাশাপাশি গরিব-সাধারণ মানুষের পাশে থেকে আরো বেশি কাজ করার সুযোগ হবে। তবে সুষ্টু ও নিরপেক্ষ ভোটগ্রহণ হলেই নির্বাচিত হবো বলে জানান তিনি। 

নির্বাচন কমিশন দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সীতাকুন্ডে দুই মেয়র প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র বদিউল আলম ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী আবুল মনছুর নির্বাচন করছেন। আওয়ামী লীগ-বিএনপির ২ জন মেয়র প্রার্থীসহ মোট ৮৬ জন কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন। এদের মধ্যে সংরক্ষিত আসনে ১৩ জন ও কাউন্সিলর পদে ৭১ জন। 

১৯৯৮ সালে ১ এপ্রিল ২৮ বর্গমাইল আয়তনের নয়টি ওয়ার্ড নিয়ে সীতাকুন্ড পৌরসভা গঠিত হয়। হালনাগাদ ভোটার তালিকায় পৌরসভায় ভোটার রয়েছেন মোট ৩৪ হাজার ৮১৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৭ হাজার ৮২৭ জন। ভোটগ্রহণ হবে মোট ১৭টি কেন্দ্রে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৯:৪১
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:২৪
প্রিন্ট করুন printer

৩০ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ রবিবার

অনলাইন ডেস্ক

৩০ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ রবিবার

পঞ্চম ধাপের পৌরসভা নির্বাচন আগামী রবিবার। নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন স্থানে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবিসহ বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। 

এবার পঞ্চম ধাপে ৩০টি পৌরসভায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ভোটগ্রহণ করা হবে। সেই লক্ষ্যে মক ভোটিংও শেষ হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই নির্বাচনের গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। আজ শুক্রবার মধ্যরাত ১২টায় শেষ হচ্ছে সব ধরনের প্রচার। বন্ধ হচ্ছে মোটরসাইকেল চলাচলও।

২৮ ফেব্রুয়ারি ৩০ পৌরসভার ৩০টি মেয়র পদ, ৩০০টি সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ১০০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটগ্রহণ করা হবে ৬৩৭টি ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ৩২০টি ভোটকক্ষে। এতে ১৪ লাখ ১৪ হাজার ২১৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাবেন। নির্বাচনে মেয়র পদে ১০০ জন, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৩৬৬ জন এবং সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ১ হাজার ৩১৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচনের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের মোবাইল টিম ১০০টি ও স্ট্রাইকিং ফোর্স ৩০টি, র‌্যাবের ১০০টি মোবাইল টিম, প্রত্যেক পৌরসভায় ২ প্লাটুন বিজিবি আর উপকূলীয় পৌরসভা প্রতি কোস্টগার্ড ১ প্লাটুন।

ভোটের দিন প্রতি সাধারণ কেন্দ্রে তিনজন পুলিশসহ ১১ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ৪ জন পুলিশসহ ১৩ জন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন।

নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিত করতে ৩০০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আর নির্বাচনী অপরাধ আমলে নিয়ে সংক্ষিপ্ত বিচারকাজ পরিচালনার জন্য ৩০ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেটও নিয়োজিত রয়েছেন।

যে সব পৌরসভায় ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণের জন্য তফসিল ঘোষণা করেছিল ইসি এগুলোর মধ্যে রয়েছে- চট্টগ্রামের মীরসরাই, বারইয়ারহাট, রাঙ্গুনিয়া ও রাউজান, জামালপুরের জামালপুর সদর, মাদারগঞ্জ, দেওয়ানগঞ্জ ও ইসলামপুর, রাজশাহীর চারঘাট ও দুর্গাপুর, ভোলা সদর ও চরফ্যাশন, চাঁদপুরের মতলব ও শহরাস্তি। এছাড়া অন্য পৌরসভারগুলোর মধ্যে রয়েছে- ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেশপুর, লক্ষ্মীপুরের রায়পুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, হবিগঞ্জ সদর, বগুড়া সদর, মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর, কিশোরগঞ্জের ভৈরব, যশোরের কেশবপুর, মাদারীপুর সদর, রংপুরের হারাগাছ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, জয়পুরহাট সদর, মাদারীপুরের শিবচর, ময়মনসিংহের নান্দাইল, যশোর সদর ও গাজীপুরের কালীগঞ্জ।

চট্টগ্রামের রাউজান পৌরসভায় সব প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত রয়েছে যশোর সদর পৌরসভা নির্বাচন। আর অন্য ধাপ থেকে যোগ হয়েছে সৈয়দপুর পৌরসভা। সব মিলিয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি ৩০টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:১০
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত

জামালপুর প্রতিনিধি

দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত

পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত পঞ্চম ধাপে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি আসন্ন জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। শুক্রবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় এই নির্বাচন স্থগিতের আদেশ জারি করে। 
বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্বাচন পরিচালনা-০২ অধিশাখার উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে জানানো হয়েছে, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। 

জামালপুর জেলা নির্বাচন অফিসার ও জেলা রিটার্নিং অফিসার গোলাম মোস্তফা জানান, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি জামালপুর সদর ছাড়াও মাদারগঞ্জ, ইসলামপুর ও দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভায় ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধাধিত ছিলো এবং সে মোতাবেক নির্বাচনের সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছিল। তবে কি কারণে দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন  


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৯:১১
প্রিন্ট করুন printer

পৌরসভা নির্বাচন: মাদারীপুরে নৌকার প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

মাদারীপুর প্রতিনিধি

পৌরসভা নির্বাচন: মাদারীপুরে নৌকার প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

নির্বাচনের ঠিক দুই দিন আগে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী মো. খালিদ হোসেন ইয়াদ। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় নিজ বাসভবনে নেতা-কর্মী ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এ ইশতেহার ঘোষণা করেন। 

ইশতেহার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম।

ইশতেহার অনুষ্ঠানে প্রার্থী মো. খালিদ হোসেন ইয়াদ বলেন, এই ইশতেহারে মাদারীপুর শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে টেকসই ও কার্যকরী ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও পানি সরবরাহ এবং আধুনিক ও টেকসই বর্জ্য অপসারণ ব্যবস্থার উপরে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। বিগত দিনে সততা ও বিশ্বস্ততার সাথে মাদারীপুর পৌরসভাকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়েছি। মাদারীপুর পৌরসভার উন্নয়নের রূপকল্পকে বাস্তবতায় রূপদানের লক্ষ্যে তৃতীয় মেয়াদের জন্য সুনির্দিষ্ট এ কর্মসূচি ঘোষণা করলাম।

নির্বাচনী ইশতেহার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আফম বাহাউদ্দিন নাসিম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজাদ মুন্সি, জাহাঙ্গীর কবির, সাধারণ সম্পাদক বাবু কাজল কৃষ্ণ দে’সহ জেলা, সদর উপজেলা ও মাদারীপুর পৌর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৪৬
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫৫
প্রিন্ট করুন printer

বগুড়া পৌর নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে গণসংযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়া পৌর নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে গণসংযোগ

জিয়া শিশু কিশোর সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোশারফ হোসেন চৌধুরী বলেছেন, দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ধানের শীষে ভোট দিন। শহীদ জিয়াউর রহমানের জন্মভূমি বগুড়া বিএনপির দুর্গ। বিগত সকল নির্বাচনে বগুড়ার মানুষ বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের প্রতি অকুন্ঠ সমর্থন জানিয়েছেন। বগুড়াকে এগিয়ে নিতে বিএনপি সরকার ছাড়া আর কেউ তেমন দৃশ্যমান উন্নয়ন করেনি। সমৃদ্ধ ও আধুনিক নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশাসহ দলীয় সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিপুল ভোটে বিজয়ী করার আহবান জানান তিনি।

বগুড়া পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর ধানের শীষ, কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে বৃহস্পতিবার গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি দিনব্যাপি শহরের সূত্রাপূর, তেতুলতলা, মফিজ পাগলা মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগকালে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশাকে ধানের শীষ, কাউন্সিলর প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন পশারী হিরুর উটপাখি ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রোকেয়া বেগম রঞ্জনার টেলিফোন মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানান। 

এ সময় বিএনপি নেতা কেএম খায়রুল বাশার, আক্তারুজ্জামান নান্টু, জাহাঙ্গীর কবির মানিক, এমদাদুল হক টুকু, মো. রেজাউল, হুমায়ুন কবীর, শাহজাহান আলী মুকুল, লুৎফর রহমান, জাহাঙ্গীর মানিক, উত্তম কুমার, আব্দুল মমিন, সৌখিন চৌধুরী, রাশেদ, শামীম, পিন্টু, সিজানসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

চরফ্যাশন পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

এম আবু সিদ্দিক, চরফ্যাশন (ভোলা) থেকে:

চরফ্যাশন পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচন। এখানে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. মোরশেদ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শিকদার হুমায়ুন কবির এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন। 

শেষ মুহূর্তে প্রার্থীরা ভোটের মাঠ গোছাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ভোটারদের কাছে কুশল বিনিময়ে ভোট চেয়ে লিপলেট বিতরণ করছেন প্রার্থীরা। 

কাল শুক্রবার রাত ১২টা থেকে সকল প্রকার প্রচার প্রচারণা বন্ধ হচ্ছে। গণমাধ্যমকর্মীদের যান ব্যতীত শনিবার থেকে শহরে সকল প্রকার যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। শেষ মুহূর্তে পাড়ায় মহল্লায়, অলি-গলিতে জমে উঠেছে নির্বাচন। 
দিনরাত প্রার্থীরা ছুটছে ভোটারদের কাছে। শহরের আনাছে কানাছে ব্যানার- পোস্টার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। চলছে গণসংযোগ মোটরসাইকেল মহড়া আর স্লোগান। মাইকে বাজছে মনকাড়া সুরে হরেক রকম গান। 

আগামী রবিবারের ভোটকে ঘিরে চরফ্যাশনে আওয়ামী লীগ, বিএনপির জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতারা প্রতিনিয়ত গণসংযোগে অংশ নিচ্ছেন আর দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাচ্ছেন।

চরফ্যাশন পৌর নির্বাচনে এই প্রথম ইভিএমএ ভোট হবে। ভোটারদের কাছে এই পদ্ধতি নতুন, ফলে কিভাবে ভোট দিবে এ নিয়ে টেনশনে রয়েছে। এদিকে সহকারী রিটার্নি অফিসার কাল শুক্রবার চরফ্যাশনে দিনব্যাপী ইভিএমএ ভোটদান পদ্ধতি সম্পর্কে ভোটারদের প্রাক্ মহড়া আয়োজন করেছেন। শেষ মুহুর্তে জয় পেতে প্রার্থীরা ভোটারের বাড়ি বাড়ি দোকানে দোকানে ছুটছেন। ভোটারদের কাছে তুলে ধরছেন তাদের যোগ্যতা।

চরফ্যাশন পৌরসভায় নৌকা প্রতীকে নতুন প্রার্থী। তিনি চরফ্যাশন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। নৌকার মনোনীত প্রার্থী মো. মোরশেদ জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।

অপরদিকে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সিকদার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির। তিনি বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট আমাদের অনুকূলে নেই। জনগণের ব্যাপক সমর্থন আমাদের পক্ষে রয়েছে। অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট হলে আমার কাঙ্খিত বিজয় সম্ভব। 

এদিকে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হয়েছেন মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন। এলাকায় রয়েছে তার ব্যক্তি ইমেজ। তিনি একটি পলিটেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ। নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে তিনি লড়ছেন। জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী না হলেও শহরে নিজ পরিচিতি পেতে ভোটারদের মাঝে প্রতিনিয়ত গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। 

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নির্বাচনে পৌরসভা মেয়র প্রার্থী ৩ জন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ২৩ জন  সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোট হবে ইবিএমএ। শেষ মুহুর্তে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া এলাকার পরিবেশ অনেকটা শান্ত রয়েছে। অবাদ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর