শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ আগস্ট, ২০২১ ২৩:২৭

এসপির বাংলোতে কনস্টেবলের গুলিবিদ্ধ লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের (এসপি) বাংলো থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মেহেদী হাসান (২৬) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বেলা ৩টার দিকে বেইলি রোডের ঢাকা অফিসার্স ক্লাবের অদূরে এসপির বাংলো থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় মেহেদীকে উদ্ধার করা হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশের দাবি, কর্তব্যরত অবস্থায় নিজের অস্ত্র দিয়ে থুতনি বরাবর গুলি করে আত্মহত্যা করেন মেহেদী। ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘১৫ দিন আগে ছেলেটি এখানে যোগদান করেছে। তার বিষয়ে তেমন কিছু জানা নেই। হঠাৎ করেই সে নিজের অস্ত্র দিয়ে ধুতনিতে গুলি করে আত্মহত্যা করে বসে। কী কারণে সে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারব।’ কনস্টেবল মেহেদীর বাড়ি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার আনেহেলা গ্রামে। বাবার নাম আবদুল হানিফ। তার কনস্টেবল নম্বর ১৩২৫। ঢাকা জেলা পুলিশে কর্মরত মেহেদী থাকতেন পুরান ঢাকার মিলব্যারাক পুলিশ ফাঁড়িতে। মেহেদী মৃত্যুর দুই দিন আগে তার ফেসবুক প্রোফাইলে হতাশার বিষয়ে লিখে গেছেন। হতাশা থেকে আত্মহত্যা করতে পারেন বলে জানান এসপি।

তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া রমনা থানার এসআই আবদুস ছালাম জানান, গতকাল বেলা ৩টার দিকে খবর পেয়ে এসপির বাংলো থেকে মেহেদীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার থুতনিতে গুলি বিদ্ধ হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, নিজের সঙ্গে থাকা সরকারি অস্ত্র দিয়েই নিজে নিজে গুলি করে আত্মহত্যা করেন মেহেদী। তবে বিস্তারিত তদন্তের পর বলা যাবে।