শিরোনাম
শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

দিল্লির কাছে পাওনার দাবিতে কলকাতায় মমতার ধরনা

কলকাতা প্রতিনিধি

১০০ দিনের কাজের রুপি, সড়ক যোজনা, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, গ্রাম উন্নয়ন, জিএসটি, বিপর্যয় মোকাবিলাসহ বিভিন্ন প্রকল্প বাবদ কেন্দ্রের কাছ থেকে বকেয়া অর্থের দাবিতে ফের ধরনায় বসেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। গতকাল দুপুরে কলকাতার রেড রোডের কাছে সংবিধান প্রণেতা ড. বি আর আম্বেদকরের মূর্তির পাদদেশে তিনি ধরনা কর্মসূচি শুরু করেছেন। আগামী ৪৮ ঘণ্টা ধরে চলবে তার এই ধরনা। এদিন দুপুর দেড়টা নাগাদ ধরনা মঞ্চে পৌঁছে যান মমতা। প্রথমে আম্বেদকরের মূর্তিতে মাল্যদান করেন, এরপর ধরনা মঞ্চে বসেন। এ সময় মমতার পরনে ছিল সাদা-কালো শাড়ি, কালো রঙের শাল। পেছনে ছিল বাংলা হিন্দি এবং ইংরেজিতে লেখা বিভিন্ন পোস্টার, প্ল্যাকার্ড। মমতা ছাড়াও এই ধরনা মঞ্চে ছিলেন রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়, নগর উন্নয়ন ফিরহাদ হাকিম, যুব কল্যাণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, অর্থমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, নারী ও শিশু কল্যাণ উন্নয়ন মন্ত্রী শশী পাঁজা, ফায়ার সার্ভিস মন্ত্রী সুজিত বসু, অভিনেতা ও তৃণমূলের সাংসদ শত্রুঘ্ন সিনহা, দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বকশিসহ দলের বিধায়ক, ব্লক সভাপতি, জেলা সভাধিপতিরা। ধরনা মঞ্চে মমতার সঙ্গে যারা থাকেন তাদের প্রায় প্রত্যেকের পরনে ছিল কালো পোশাক।

এদিনের ধরনা মঞ্চ থেকে মমতা বলেন, ‘দুই বছর ধরে ১০০ দিনের কাজ বাবদ বকেয়া অর্থ দেয়নি দিল্লি, ফলে ১০০ দিনের কাজ এখন বন্ধ।

মমতার অভিযোগ, এটা নতুন কিছু নয়, দীর্ঘদিন ধরে এই বাংলার ওপর বঞ্চনা আর লাঞ্ছনা চলছে। বাংলাকে দিল্লি বড্ড বেশি হিংসা করে। বাংলার সব রুপি বন্ধ করে দিচ্ছে, বাজেটেও বাংলার জন্য কিছু রাখা হয়নি।’

ধরনা মঞ্চের পেছনে দুটি অস্থায়ী তাঁবু করা হয়েছে। তার একটিতে মমতা সাংগঠনিক কাজ করবেন, অন্যটিতে হবে প্রশাসনিক কাজ।

সর্বশেষ খবর