Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩৩

একটি ফেসবুকীয় রোগ

‘চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি’

ইশতিয়াক আহমেদ

‘চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি’

ফেসবুকে একটা সম্প্রদায় আছে, ‘চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি’ সম্প্রদায়।

এই সম্প্রদায় খুব আদুরে। অল্পতেই আপ্লুুত হয়ে যাওয়া সম্প্রদায়। বাংলা সিনেমায় জসিমের মতো। তার নায়িকা ছাড়া অন্য কোনো মেয়ে তাকে ‘ভাই’ ডাকলে, কোনো বয়স্ক মহিলা তাকে ‘বাবা’ ডাকলে তিনি চোখের পানি ধরে রাখতে পারতেন না। অন্যদিকে মুখ ঘুরিয়ে চোখের পানি ফেলতেন।

জসিম সাহেবের সঙ্গে ফেসবুক সম্প্রদায়ের পার্থক্য হলো, ফেসবুক সম্প্রদায় কমেন্টে কমেন্টে বলে বেড়ায় চোখে পানি ধরে রাখতে পারিনি আর জসিম সাহেব চোখ মুছে বলতেন, কই কাঁদছি না তো।

এই সম্প্রদায় সেলিব্রেটিদের স্টেটাসে এবং জাতীয় ইস্যুতে ব্যাপকভাবে মাঠে নামে। তাদের কাছে প্রতিটি ঘটনাই, পুলিশের টিয়ার শেলের মতো। চোখে পানি এনে দেয়।

জনৈক ফেসবুক সেলিব্রেটি রাস্তায় নেমেছে, তারা চোখের পানি ধরে রাখতে পারছে না। একটা মানুষ কীভাবে মানবতার জন্য রাস্তায় নামতে পারে। চোখের পানি ধরে রাখা যায় না।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছেলেটার ক্যামেরা চুরি হয়েছে, তারা চোখের পানি ধরে রাখতে পারছে না। চোরেরা কীভাবে এত বড় চোর হয়, এমন ক্ষতি করল লোকটার?

কোনো লেখক বানিয়ে নিজের গরিবকালের গল্প লিখছে, তারা গ্যালন গ্যালন চোখের পানি ফেলে আসছে সেখানে কমেন্টের মাধ্যমে, ভাইয়া, এভাবে বলবেন না। চোখের পানি ধরে রাখতে পারছি না।

অথচ আমি অনেককে দেখেছি, চা খেতে খেতে এমন কমেন্ট লিখে আড্ডা দিচ্ছেন দেদার। আশপাশে কোথাও পানি নেই, চায়ের কেটলিতে ছাড়া।

আবার অনেক সৎ লোক আছে যারা এমন লিখে সত্যি কাঁদতে চায়, অনেক চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে অন্য কোথাও কমেন্ট করতে গিয়ে বকেয়া কান্না ভুলে যায়।

এমন সমস্যা নিয়ে আমার পরিচিত একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়েছিলেন, ডাক্তার সাহেব কদিন হলো চোখের পানি ধরে রাখতে পারছি না। কী করব? ডাক্তার সাহেব প্রথমে বললেন, ফেসবুকে আজগুবি লেখা পড়া কমান। তিনি জানালেন, ডাক্তার সাহেব এটা সত্যিকারের সমস্যা।

তখন ডাক্তার তাকে বললেন, নানা কারণে এটা হয়। অতিরিক্ত পানি চোখের ভিতরের কোনায় অবস্থিত নেত্রনালি দিয়ে নাকে চলে যায় এবং শোষিত হয়। কোনো কারণে চোখে অতিরিক্ত পানি তৈরি হলে অথবা নেত্রনালি বন্ধ হয়ে গেলে চোখের পানি উপচে পড়ে, একে লেক্রিমেশন বা এপিফোরা বলে।

এ ছাড়া গ্লুুকোমা, কর্ণিয়ার সমস্যা, চোখের আঘাত ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে যে কোনো বয়সে চোখ দিয়ে পানি পড়তে পারে।

তবে চোখের পানি ধরে রাখতে পারছি না, এটা চোখের ডাক্তারের কাছে যাওয়া রোগ না। এটা ফেসবুকীয় রোগ। এই রোগের নাম সেলিব্রেটি খুশিকরণ ম্যানিয়া।

যে কারও লেখায় এমন একটা কমেন্ট করলে খুব দ্রুত সুফল পাওয়া যায়। স্টেটাস লেখক এবং কমেন্টকারীর মধ্যে একটা ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়। আঠা হিসেবে কাজ করে।

তবে ইহা মনে রাখা জরুরি, আপনি যে কাঁদছেন এটা যেহেতো দৃশ্যমান নয়, যতই লিখুন উনি তার বিশ্বাসের খাতায় লিপিবদ্ধ করছেন না। ফলে আপনি এমন চোখের পানি ধরে রাখতে না পারার কমেন্ট করে যতই তার নিকটে যেতে চান, তা সম্ভব নয়।

আপনি সেই মানুষটা নয়, বরং তার ফেসবুক আইডির কাছে যেতে পারছেন মাত্র।

ইহা মনে রাখা আরও জরুরি, মানুষ এবং মানুষের ফেসবুক আইডির দূরত্ব মিনিমাম এক আলোকবর্ষ দূরে...।

 


আপনার মন্তব্য