শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:৫৪

জয়ে শুরু শেখ জামালের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জয়ে শুরু শেখ জামালের
শেখ জামালের অধিনায়ক সোহানের সঙ্গে হাই ফাইভ করছেন ম্যাচসেরা শহিদুল -বাংলাদেশ প্রতিদিন

অ্যালিস আল ইসলামের পর মানিক খান। দুজনেই রেকর্ড বুকের সোনালি পাতায় নাম লেখানো দুই ক্রিকেটার। জানুয়ারিতে বিপিএলে অভিষেক ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে রেকর্ড করেছিলেন অ্যালিস। এবার প্রিমিয়ার ক্রিকেট টি-২০ টুর্নামেন্টে হ্যাটট্রিক করেন মানিক। দুজনেই হ্যাটট্রিক করেন নিজেদের অভিষেক ম্যাচে। বিশ্ব ক্রিকেটে যা বিরল। মানিক হ্যাটট্রিক করে ইতিহাসের পাতায় চিরস্থায়ী হলেও জয় পায়নি তার দল প্রাইম দোলেশ্বর। নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার ক্রিকেট টি-২০ টুর্নামেন্টে প্রাইম দোলেশ্বরের সঙ্গে ‘টাই’ করে সুপার ওভারে রোমাঞ্চিত জয় তুলে নিয়েছে নবাগত বিকেএসপি। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে নুরুল হাসান সোহানের দৃঢ়তায় খেলাঘর সমাজকল্যাণের বিরুদ্ধে ১১ রানের ঘাম ঝরানো জয় পেয়েছে শিরোপা প্রত্যাশী শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। মিরপুরে সন্ধ্যার খেলায় ২৫ রানের জয় পেয়েছে আবাহনী। ফতুল্লায় বৃষ্টি বিঘিœত ১৩ ওভারের কার্টেল ম্যাচে শুভাগত হোমের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে ৫ উইকেটের সহজ জয় পেয়েছে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব। বৃষ্টি হানা দেয় ফতুল্লায়। কিন্তু ফাগুনের বৃষ্টির ছোঁয়া লাগেনি মিরপুরে। ৮ ফেব্রুয়ারি বিপিএলের ফাইনালের পর ঘরোয়া ক্রিকেটে আর খেলা হয়নি। জাতীয় দল এখন নিউজিল্যান্ডে। তারকা ক্রিকেটারদের ছাড়াই মাঠে গড়িয়েছে টি-২০ টুর্নামেন্ট। মিরপুরে গতকাল দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় শিরোপা প্রত্যাশী শেখ জামাল ও খেলাঘর। বৃষ্টি¯œাত আবহাওয়ায় টস হেরে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৯ রান সংগ্রহ করে শেখ জামাল। দুই ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেন তান্না ও ফারদিন হাসান ৪.৫ ওভারে ৩৮ রান যোগ করে শক্ত ভিত দেন দলকে। ফারদিন ২১ রান করে সাজঘরে ফেরার পর দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৪০ রান যোগ করেন ইমতিয়াজ ও উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নাহিদুল ইসলাম। নাহিদুল ২৬ রানের ইনিংসটি খেলেন মাত্র ১৩ বলে ২ চার ও ২ ছক্কায়। অবশ্য পরের ওভারেই সাজঘরে ফিরেন ওপেনার ইমতিয়াজ ৩১ রানের ইনিংস খেলে। দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যান অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ১৯ বলে ৩ ছক্কা ও ১ চারে ৪৩ রানের ইনিংস খেলে। খেলাঘরের সফল বোলার মইনুল ২৬ রানের খরচে নেন ২ উইকেট। ১৭০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দুই ওপেনার রবিওল রবি ও সাদিকুর রহমান ৪১ রানের ভিত দেন। সাদিক ১ রান করলেও ওপেনার রবি খেলেন ৬৯ রানের দৃষ্টিনন্দন ইনিংস। ৫১ বলে ৭ চার ও ৩ ছক্কায় সাজানো ইনিংসটি যদিও দলের হার এড়াতে পারেনি। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে রবি ও মাহিদুল ৭৪ রান যোগ করে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন। কিন্তু ফাস্ট বোলার মহিদুল ইসলাম ৪ ওভারের স্পেলে ৩৬ রানের খরচে ৪ উইকেট নিয়ে ২০ ওভারে ১৫৮ রানে বেঁধে রাখেন খেলাঘরকে। ফলে ১১ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে শেখ জামাল। দুরন্ত বোলিং করে ম্যাচসেরা হন শহিদুল।   

ফতুল্লায় বারবার রঙ ছড়ানো ম্যাচে হেরে গেছে প্রাইম দোলেশ্বর। লো স্কোরিং ম্যাচটিতে ‘টাই’ করে সুপার ওভারে জিতেছে বিকেএসপি। তবে হ্যাটট্রিক করে ম্যাচের আলো কেড়ে নিয়েছেন দোলেশ্বরের ফাস্ট বোলার মানিক। সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে বিকেএসপি ৬ রান করে। ৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ৪ রান করে ২ রানে হেরে যায় দোলেশ্বর। এর আগে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১১১ রান করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন মাহামুদুল হাসান ৪৩ বলে। আরাফাত ২৯ ও তাইবুর পারভেজ ১৭ রান করেন। বিকেএসপির পক্ষে ১৭ রানের খরচে ৩ উইকেট নেন সুমন। ১১২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে শুরুতেই হোচট খায় বিকেএসপি। প্রথম ওভারের শেষ দুই বলে এবং নিজের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে উইকেট নিয়ে অভিষেক ম্যাচেই হ্যাটট্রিক করে মানিক ম্যাচের সব আলো কেড়ে নেন নিজের দিকে। তারপরও জিততে পারেনি দোলেশ্বর। শামীমের দৃঢ়তায় ১১১ রান করে ‘টাই’ করে বিকেএসপি। হারলেও মানিকের শান্তনা ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতে।

ফতুল্লায় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে ৫ উইকেটের জয় পেয়েছে শাইনপুকুর। প্রথমে ব্যাট করে রূপগঞ্জের সংগ্রহ ছিল ১৩ ওভারে ৫ উইকেটে ১১৫। সর্বোচ্চ ৪৬ রান করে বাংলাদেশের প্রথম টি-২০ অধিনায়ক শাহরিয়ার নাফিস। ২৪ বলের ইনিংসটিতে ছিল ২টি চার ও ৪টি ছক্কা। ১১৬ রানের টার্গেটে শাইনপুকুর ৩ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নেয়। ওপেনার সাব্বির রহমান ৩২ ও শুভাগত হোম ৩২ রান করেন। মিরপুরে দিনে দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে আবাহনীর সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১৫০। সর্বোচ্চ ৫৮ রান করেন সাব্বির রহমান মাত্র ৪৩ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায়। জাভেদ ৪৪ রান করেন ৩৩ বলে। ১৫১ রানের টার্গেটে ব্রাদার্স ইউনিয়নের ইনিংস থমকে যায় ১২৫ রানে। ফলে ২৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে শিরোপা প্রত্যাশী আবাহনী।


আপনার মন্তব্য