শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৭ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ মার্চ, ২০২০ ২৩:৫২

কঠিন সময়ে কী করছেন তাঁরা

কঠিন সময়ে কী করছেন তাঁরা

করোনাভাইরাসে গোটাবিশ্ব এখন স্থবির। কঠিন সময় পার করছেন ক্রীড়াবিদরাও। সবাই স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তবে অনেক তারকাই এই কঠিন সময়ে ঘরে বসে বিভিন্ন কর্মকা- চালিয়ে যাচ্ছেন। কেউ নিজেকে ফিট রাখতে নিয়মিত জিম করছেন। কেউবা ভিডিও বার্তায় ভক্তদের কভিড-১৯ সম্পর্কে সচেতন করছেন। কেউ নানা রকম ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করে ভক্তদের আনন্দ দিচ্ছেন। পাশাপাশি চলছে তহবিল গঠনের কাজও। সবাই কোনো না কোনোভাবে মানব কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। বিশ্বসেরাদের বিভিন্ন কর্মকা- নিয়েই আজকের এই আয়োজন। লিখেছেন মেজবাহ্-উল-হক

 

এই ছুটি ইতিবাচক

জাস্টিন ল্যাঙ্গার কোচ, অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল

করোনাভাইরাসের কারণে গোটা বিশ্ব স্থবির হয়ে আছে। ক্রিকেটও বন্ধ। ক্রিকেটাররা সময় কাটাচ্ছেন তাদের পরিবারের সঙ্গে। অনেকেই উদ্বিগ্ন, যখন করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমে যাবে তখন খেলোয়াড়দের ফিটনেস ঠিক থাকবে কি-না? তবে এ ব্যাপারে মোটেও চিন্তিত নন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্কার। তিনি বলেন, ‘হয়তো এই প্রকোপ কমে গেলে আমাদের আবার পেছনে ফিরে যেতে হবে। নতুন করে শুরু করতে হবে সেশন। কিন্তু আমরা যদি সময়টাকে কাজে লাগাই তাহলে তো কথাই নেই। তা ছাড়া এটাও তো খুব গুরুত্বপূর্ণ যে ক্রিকেটাররা শারীরিক ও মানসিক বিরতি পাচ্ছে। এটা খুবই দরকার ছিল।’ তিনি বলেন, ‘এই সুযোগ আমরা আমাদের নিজের বিছানায় ইচ্ছামতো ঘুমাতে পারছি। রান্না করতে পারছি। এ বিষয়গুলো আমাদের মনকে চাঙ্গা করে দেবে।’

 

সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে

শচীন টেন্ডুলকার, সাবেক ক্রিকেটার, ভারত

করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সরকার নিয়ম ও ডাক্তারদের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকার। টুইটারে দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় টেন্ডুলকার বলেন, ‘এই কঠিন সময়ে সবার উচিত সবাইকে সহযোগিতা করা।  যারা ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বা হননি অবশ্যই হোম কোয়ারেন্টাইন মেনে চলবেন। বাইরে বের হবেন না। এটা আপনার কমিউনিটির জন্য ভালো হবে না। এখন আপনার একমাত্র কাজ হচ্ছে, স্বাস্থ্যকর্মীদের দেওয়া নিয়ম মেনে চলা। স্বাস্থ্যকর্মীরাই পারে আপনাকে ও আমাকে উপযুক্ত পরামর্শ দিয়ে দ্রুত সুস্থ করতে। তাই তাদের পরামর্শ অনুসরণ করুন।’

 

ক্রুসের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

বাইরে বের না হলেও সময়টা দারুণ কাজে লাগাচ্ছেন জার্মানি ও রিয়াল মাদ্রিদের তারকা টনি ক্রুস। হোম কোয়ারেন্টাইনের সময়টাকে তিনি চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন। প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময় নিজের স্কিল নিয়ে কাজ করছেন। এছাড়া ভক্তদের জন্য একটি করে ভিডিও তৈরি করছে। সেই ভিডিওতে প্রশ্ন করছেন ভক্তদের উদ্দেশে। ঘোষণা দিয়েছেন সঠিক উত্তরদাতাকে তিনি পুরস্কৃত করবেন। ক্রুসের এই উদ্যোগে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ফুটবলভক্তরা যারা ক্রুসকে ভালোবাসেন তারা মাঠের খেলা দেখতে না পেলেও জার্মান তারকার কান্ডে বেশ খুশি। তাদেরও দারুণ সময় কাটছে।

 

করোনার বিরুদ্ধে আফ্রিদির লড়াই

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মানুষ যাতে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে না পড়েন এজন্য কাজ করে যাচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি ও তার ফাউন্ডেশন। পাক তারকা তার ফাউন্ডেশনকে তো কোয়ারেন্টাইন সেন্টার বানিয়েছেন। তিনি সাধারণ মানুষের মাঝে  নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বিতরণ করছেন।

 

আসুন, সম্মিলিত প্রয়াসে করোনাকে বিদায় করি

জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ, সাবেক ফুটবলার, সুইডেন

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য খেলোয়াড়দের মধ্যে সবার আগে তহবিল গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন সুইডিশ ফুটবলার জøাতান ইব্রাহিমোভিচ। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণাও চালিয়ে যাচ্ছেন। সম্প্রতি এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে ইতালি খুবই সংকটের মধ্যে আছে। আমরা হাসপাতালের জন্য একটা তহবিল গঠন করেছি। সহকর্মীদের উদারতায় এটা সম্ভব হয়েছে। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমাদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আসুন, আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে উদ্যোগী হয়ে করোনাভাইরাসকে বিদায় করি।’

 

কোয়ারেন্টাইনে উজ্জীবিত ম্যাক্সওয়েল!

খেলোয়াড়রা সবাই এখন যে যার মতো হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। এই ১৪ দিনের প্রতিটি মুহূর্তকে আলাদা করে কাজে লাগাতে চান অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। পরিবারকে একান্তভাবে সময় দেওয়ার পাশাপাশি নিজেদের ফিটনেস ঠিক রাখার দিকেও মনোযোগী হয়েছেন অসি মারকুটে। ১৪ দিনকে তিনি ১৪ ভাগে ভাগ করে দিয়েছেন। কোন দিন কি করবেন তা ঠিক করে ফেলেছেন। প্রথম দিনের ওয়ার্কআউটের ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন।


আপনার মন্তব্য