শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:০৫

সাকিবের সামনে কোচের চ্যালেঞ্জ

এমনিতেই দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামছেন সাকিব। অস্বস্তি তো থাকছেই। সেখানে পজিশন পরিবর্তন হওয়ায় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের কাজটি কি আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হয়ে গেল না!

মেজবাহ্-উল-হক

সাকিবের সামনে কোচের চ্যালেঞ্জ

নিষেধাজ্ঞার পর সাকিব আল হাসানের প্রত্যাবর্তনের ম্যাচ। করোনার পর প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামছে বাংলাদেশ। ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে তামিম ইকবালের অভিষেক। ২০২৩ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের প্রথম সিরিজ। সবকিছু মিলেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে এই সিরিজটি বাংলাদেশের জন্য মহাগুরুত্বপূর্ণ।

বড় ফেক্টর অবশ্যই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ‘ফেরার মঞ্চ’ হওয়ায়। তবে এই ফেরার মঞ্চেই সাকিব আল হাসানকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন টিম ম্যানেজমেন্ট তথা কোচ রাসেল ডমিঙ্গো! বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে ব্যাটিং অর্ডারে তার পছন্দের তিন নম্বর পজিশন থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। নামিয়ে দেওয়া হয়েছে চার নম্বরে। যদিও কোচ বলেছেন- তিনি তরুণ ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তকে সুযোগ দিতেই এই কৌশল করেছেন। কিন্তু এটা কি সাকিব আল হাসানের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ নয়!

সরাসরি কিছু না বললেও কোচ যেন কৌশলে সাকিবকে বুঝিয়ে দিতে চাচ্ছেন, ‘পারফরম্যান্স দেখিয়ে নিজের জায়গা বুঝে নাও’।

এক দিন আগে কোচ রাসেল ডমিঙ্গো তা পরিষ্কার করেই বলেছেন, ‘সাকিব ফিরেছে, এটা খুশির খবর। বিশ্বকাপে তিনে নেমে দারুণ খেলেছে সাকিব! তবে আমি অভিজ্ঞদের চার, পাঁচ ও ছয়ে রাখতে চাচ্ছি। সাকিব, মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহকে ভাবছি। এক্ষেত্রে সাকিব অনেক দিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেনি। চার নম্বরে একটু দম ফেলার সুযোগ পাবে। বিশ্বকাপ অনেক দেরি। স্থায়ী ব্যাটিং লাইনআপ দাঁড় করানোর আগে কিছু বিষয় দেখতে হবে। নাজমুল ভালো ছন্দে আছে। শেষ সিরিজে তিনে খেলেছে। উপমহাদেশে তরুণ কাউকে গড়ার সুযোগ দিলে শীর্ষ তিনেই দিতে হবে।’

২০১৯ বিশ্বকাপে তিন নম্বর পজিশনে সাকিবের কীর্তি কে না দেখেছে! মাত্র ৮ ম্যাচ খেলে করেছেন ৬০৬ রান। দুই সেঞ্চুরির সঙ্গে ৫টি হাফ সেঞ্চুরি। গড়ও ঈর্ষণীয় -৮৬.৫৭। সব মিলে বিশ্বকাপে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন। তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিং করেই কিন্তু সাকিব এমন কীর্তি গড়েছেন। মাত্র এক বছর নিষেধাজ্ঞার পরই কি সব ওলট-পালট হয়ে গেল!

এমনিতেই দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামছেন সাকিব। অস্বস্তি তো থাকছেই। সেখানে পজিশন পরিবর্তন হওয়ায় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের কাজটি কি আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হয়ে গেল না!

যদিও অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেছেন, ব্যাটিং অর্ডারের অবনমন হলেও তাতে অখুশি নন সাকিব। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার প্রসঙ্গে ক্যাপ্টেন বলেন, ‘লম্বা সময় পরে ফিরেছে সাকিব। আমরা সবাই জানি, সে তিন নম্বরে কত ভালো করেছে। তার রেকর্ডই তার হয়ে কথা বলছে। এ ব্যাপারে আমরা সবাই সজাগও। সে চার নম্বরে ব্যাট করে খুশি। আমি এ-ও বলেছি, যদি কোনো সময় তিন নম্বরে ব্যাট করতে চায়, সেখানে ফিরে যেতে পারবে।’

এখন প্রশ্ন হচ্ছে সাকিব না হয় নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি! অন্য ক্রিকেটাররাও তো দীর্ঘ সময় খেলার বাইরে। হঠাৎ করে সাকিবের পজিশন পরিবর্তন কি দলের জন্য সুখকর কিছু বয়ে নিয়ে আসবে? নাকি ২০২৩ বিশ্বকাপের যে পরিকল্পনা ছক আঁকছেন কোচ সেখানে সাকিবকে বাইরে রাখা হচ্ছে?

শুধু সাকিব নন, চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া হয়েছে সৌম্য সরকারের সামনেও। একজন ওপেনারকে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে ব্যাটিং অর্ডারের সাত নম্বরে। কিন্তু কেন হঠাৎ ব্যাটিং অর্ডারে এমন ওলট-পালট! যদিও সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেছেন, এটা নতুন কিছু নয়। চমকের কিছু নেই। তামিম বলেন, ‘তাকে (সৌম্যকে) এই ব্যাপারটা জানানো হয়েছে ৪ থেকে ৫ মাস আগে। এই পজিশনে আমরা খুব মানানসই কাউকে এখনো খুঁজে পাইনি। গত ৫-৭ বছর কেউ থিতু হতে পারেনি। এই পজিশনে যদি উপযুক্ত কাউকে পাওয়া না যায়, তাহলে কাউকে তৈরি করে নিতে হবে। সৌম্যকে আমরা এই বার্তাটা দিয়েছিলাম। প্রেসিডেন্টস কাপের আগেই ওকে এই কথা বলেছি যে, ৭ নম্বরে তোমার ব্যাট করতে হবে। এর জন্য মানসিক ও স্কিলের দিক থেকে তৈরি হও।’

এখন দেখার বিষয়, সাকিব আল হাসান ও সৌম্য সরকার তাদের নতুন চ্যালেঞ্জ জয় করতে পারেন কিনা!


আপনার মন্তব্য