শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৫:০২

দফায় দফায় সংঘর্ষে শেকৃবি রণক্ষেত্র, আহত ১৩

শেকৃবি প্রতিনিধি:

দফায় দফায় সংঘর্ষে শেকৃবি রণক্ষেত্র, আহত ১৩

কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার পরে আজ থেকে শুরু হয়েছে চূড়ান্ত ভর্তি প্রক্রিয়া। ভর্তির প্রথমদিনে রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) বিভিন্ন আঞ্চলিক (বঙ্গীয়) গ্রুপে নবীন শিক্ষার্থীদের নিজ দলে ভিড়ানোকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে ১৩ জন আহতসহ সংবাদ সংগ্রহকালে একজন সাংবাদিকের ওপর হামলা করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ১০ টা থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। শুরু থেকেই বিভিন্ন বঙ্গীয় গ্রুপ (উত্তরবঙ্গ, দক্ষিণবঙ্গ, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, ঢাকা ও পাবনা-সিরাজগঞ্জ) তাদের স্ব-স্ব দলভারী করার উদ্দেশে নবীন শিক্ষার্থীদের টানাহেচড়া শুরু করে। সকাল ১১ টায় ভর্তি হতে আসা এক নবীন শিক্ষার্থীকে নিয়ে কুমিল্লা ও ঢাকা দুই গ্রুপ টানাটানি শুরু করে। পরে ওয়াইফাইজোন চত্বরে হাতাহাতির এক পর্যায়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ধাওয়া-পাল্টা  ধাওয়া হয়। এসময় উভয় গ্রুপের ৬ জন শিক্ষার্থী আহত হন। পরে বেলা ১২ টায় কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামের পেছনে নবীনদের লাইনে আগে-পিছে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায় উত্তর ও ময়মনসিংহ গ্রুপ। 

দুপুর ১ টায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম হলের সামনে ইট-পাটকেল, রড, জিআই পাইপ নিয়ে পুনরায় দুই দফায় সংঘর্ষে জড়ায় ঢাকা ও কুমিল্লা গ্রুপ। এসময় পিপার-স্প্রে ছিটানোর অভিযোগ দিয়ে একগ্রুপ অন্য গ্রুপের ওপর দোষ চাপিয়েছে। এসময় ১৯ ব্যাচের সৌমিক দাস প্রান্ত ও সারোয়ারস গুরুতর আহতসহ ৫ জন আহত হয়েছেন। এদের ২ জন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ও ২ জন জাতীয় অর্থোপডিক হাসপাতালে (নিটোর) চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়াও একই ঘটনাকে কেন্দ্র করে লাইব্রেরি ভবন, শেরেবাংলা হল ও সিরাজ উদ-দৌলা হলের সামনেও বিচ্ছিন্নভাবে আঞ্চলিক গ্রুপগুলোর মধ্যে সংঘর্ষে জড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এ ঘটনায় শেকৃবি উপাচার্য ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, ‘আগে অনেককেই ছাড় দেয়া হয়েছে। এবার এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের ব্যপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ প্রক্টরিয়াল বডি ও প্রভোস্ট কাউন্সিলের মিটিংয়ে বঙ্গীয় প্রথা নিষিদ্ধের ব্যাপারেও কথা বলবেন বলে জানান তিনি।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর
close