শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৪২
আপডেট : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৫২
প্রিন্ট করুন printer

বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীর তালিকায় বাংলাদেশি অধ্যাপক ড. সাইফুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীর তালিকায় 
বাংলাদেশি অধ্যাপক ড. সাইফুল

বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানী ও গবেষকের তালিকায় স্থান পেয়েছেন পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি)  কৃষি অনুষদের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘স্টানফোর্ড ইউনিভার্সিটি’ বিশ্বের সেরা  বিজ্ঞানীর যে তালিকা প্রকাশ করেছে তার মধ্যে নাম রয়েছে অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলামের। 

পবিপ্রবি’র জনসংযোগ বিভাগ প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিষয়ভিত্তিক গবেষণা কার্যক্রমে অবদানের ভিত্তিতে গবেষকদের বৈশ্বিক ডাটাবেজ তৈরি করেছে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখা থেকে সারা বিশ্বের দেড় লাখেরও বেশি গবেষক বিষয় ভিত্তিক এই তালিকায় স্থান পেয়েছেন। প্রত্যেক বিজ্ঞানীকে তাদের নিজস্ব গবেষণা কাজের সংখ্যা ও সাইটেশনের ভিত্তিতে এ তালিকায় স্থান দেয়া হয়েছে।

অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীর তালিকায় অন্যতম বিজ্ঞানী ও গবেষক হিসেবে স্থান পাওয়ায় তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (রুটিন দায়িত্ব) প্রফেসর ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত এবং জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা মুহাম্মাদ ইমাদুল হক প্রিন্স।

অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে প্রথম শ্রেণিতে স্নাতক ও প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়ে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগে ২০০৭ সালে প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। ২০১০ সালে তিনি জাপান সরকারের শিক্ষা বৃত্তিপ্রাপ্ত হয়ে ইয়োকহোমা ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে তিনি জাপানের টোকিও ইউনিভার্সিটি থেকে পোস্ট ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন। এ পর্যন্ত তার দেড় শতাধিক গবেষণা প্রবন্ধ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশীয় জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। শিক্ষাজীবনে একাধিকবার স্বর্ণপদক ও সম্মানজনক সনদপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম বর্তমানে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:২৪
প্রিন্ট করুন printer

উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা

রিয়াজুল ইসলাম, দিনাজপুর

উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা

উত্তরবঙ্গের স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ ও দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরবর্তী ভিসি বা উপাচার্য কে হচ্ছেন এনিয়ে চলছে ছাত্র-শিক্ষকদের মাঝে নানান জল্পনা-কল্পনা। এরই মধ্যে নামের তালিকা পাঠানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে। চলছে জোরালো লবিং।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়টি পথচলার ২১ বছরে ৬ জন শিক্ষাবিদকে অভিভাবক হিসেবে পেয়েছে। ৬ষ্ঠ উপাচার্য হিসেবে ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি নিয়োগ পায় বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও গবেষক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি এই উপাচার্যের চার বছর মেয়াদকাল পূর্ণ হতে যাচ্ছে।

তবে এর মধ্যে তিনি ১৩ জানুয়ারি ভোর রাতে স্ত্রীর অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে ক্যাম্পাস ত্যাগ করেছেন। যাওয়ার সময় একটি চিঠিতে তিনি হাবিপ্রবির ট্রেজারার অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র হালদারকে রুটিন দায়িত্ব পালনের কথা জানিয়েছেন। আর তিনি চলে যাওয়ায় পর হতে হাবিপ্রবির ছাত্র-শিক্ষক সবার মনে চলছে নানা জল্পনা কল্পনা। কে হচ্ছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী উপাচার্য। 

বর্তমান উপাচার্য ছাড়াও পরবর্তী উপাচার্য হিসেবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছেন তারা হলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী দুটি সংগঠনের (গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ এবং প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম) অধ্যাপক ড. মোঃ আনিস খান, অধ্যাপক ড. ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস, অধ্যাপক ড. ফাহিমা খানম, অধ্যাপক ড. বলরাম রায়, অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র হালদার, অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল আহাদ, অধ্যাপক ড. মোঃ সাইফুর রহমান, অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজার রহমান, অধ্যাপক ড. বিকাশ চন্দ্র সরকার, অধ্যাপক ড. শ্রীপতি সিকদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মোঃ ফজলুল হক প্রমুখ। 

হাবিপ্রবি’র রেজিষ্ট্রার বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মোঃ ফজলুল হক জানান, বর্তমান উপাচার্য মহোদয় তিনি জানেন কাদের নামের প্যানেল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছেন। এ বিষয়ে আমার জানা নেই।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:১৮
প্রিন্ট করুন printer

আদালতে মামলা করলেন মারধরের শিকার সেই ছাত্রলীগ নেত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক:

আদালতে মামলা করলেন মারধরের শিকার সেই ছাত্রলীগ নেত্রী

নিজ সংগঠনের নেত্রীদের দ্বারা মারধরের শিকার ছাত্রলীগ নেত্রী ফাল্গুনী দাস তন্বী আদালতে মামলা করেছেন। সোমবার ঢাকার সিএমএম কোর্টে বিচারক রাজেশ চৌধুরীর আদালতে মামলাটি করেন তিনি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) ও বিচার বিভাগের সমন্বয়ে দ্বৈত তদন্ত কমিশন গঠন করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন। 

ফালগুনী দাস তন্বী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রোকেয়া হল সংসদের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) এবং হল ছত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক। গত ২১ ডিসেম্বর রাতে সাড়ে ১২টার দিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি এবং শামসুন নাহার হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জেসমিন শান্তা তাকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে ডেকে নিয়ে মারধর করে। 

তন্বীর আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল জাহিদ জানান, গত ২৪ জানুয়ারি আবেদন করলে সিএমএম কোর্ট মামলা আমলে নিয়ে অধিকতর তদন্তের জন্য পিবিআই ও বিচার বিভাগের সমন্বয়ে দ্বৈত তদন্ত কমিশন গঠন করে দিয়েছেন। মামলা নং-৩৮/২০২১। পনের কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলার অভিযুক্তরা হলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি, শামসুন্নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াসমিন শান্তা, ছাত্রলীগ নেতা শাহজালাল, এনামুল ও তানসেন।

এর আগে, গত ১৫ জানুয়ারি রাতে রাজধানীর শাহবাগ থানায় মারধরের ঘটনায় যুক্ত ছাত্রলীগের পাঁচ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন ফালগুনী দাস তন্বী। অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আরিফুর রহমান সরদার। তবে তন্বীর অভিযোগ, পুলিশ এজাহার গ্রহণ করলেও মারধরের ঘটনার বিষয়ে তারা বলেছে- ‘কিছুই হয়নি’। তিনি বলেন, পুলিশ মামলা না নেওয়ায় আমি সংক্ষুদ্ধ হয়ে আদালতে মামলা করেছি।  

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

খুবি উপাচার্যকে শিক্ষক সমিতির সংবর্ধনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

খুবি উপাচার্যকে শিক্ষক সমিতির সংবর্ধনা

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের দ্বিতীয় মেয়াদের কার্যকাল সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় তাকে সংবর্ধনা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। সোমবার (২৫ জানুয়ারী) বিকালে একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ ওয়ালিউল হাসানাতের সভাপতিত্বে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। একই সাথে প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা উপ-উপাচার্য হিসেবে নিযুক্ত হওয়ায় এবং টেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় সমিতির পক্ষ থেকে তাদেরকে অভিনন্দন জানানো হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সকল শিক্ষকের উপস্থিতে টানা প্রায় চারঘন্টার এ অনুষ্ঠান বেলা সোয়া তিনটায় শুরু হয়ে রাত পৌণে আটটায় শেষ হয়। বক্তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়কে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয় ও খুলনাবাসীর কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। 

সংবর্ধনার জবাবে উপাচার্য বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার নির্ধারিত কর্মমেয়াদ শেষ হওয়ায় নিয়মানুয়ায়ী বিদায় নিতে হচ্ছে। শিক্ষকদের প্রতি তিনি বলেন শিক্ষকদের সবসময় সত্যের সন্ধানী হতে হবে। কোনো গুজব বা কান কথায় বিশ্বাস না করে, মন্তব্য না করে  বরং  প্রকৃত ঘটনা বা তথ্য জানতে হবে। একটি প্রতিষ্ঠান ও পেশাকে মনে প্রাণে ধারণ করতে পারলে, সেখানে নিবেদিত হয়ে কাজ করতে পারলে, ভিন্নমত বা চিন্তাকে প্রাধন্য না দিয়ে সবাইকে নিয়ে কাজ করার মতো পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারলে সে প্রতিষ্ঠানে সাফল্য আসে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. এটিএম জহিরউদ্দীন, প্রফেসর সামিউল হক, প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন, প্রফেসর ড. আশীষ কুমার দাস, প্রফেসর ড. মোঃ মনিরুল ইসলাম, প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান, প্রফেসর ড. গোলাম রাক্কিবু, প্রফেসর ড. শাহনেওয়াজ নাজিমুদ্দিন আহমেদ, প্রফেসর ড. তুহিন রায়, সহকারী অধ্যাপক পুণম চক্রবর্তী, প্রভাষক উজ্জল তালুকদার। আরও অনেকে বক্তব্য দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করলেও সময়ের সীমাবদ্ধতার কারণে তাদের বক্তব্য ই-মেইলে গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. তানজিল সওগাত। এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে ফুল ও স্মারক সম্মাননা প্রদান করা হয়। এসময় উপাচার্য পত্নী প্রফেসর ড. মোর্বারা সিদ্দিকাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের  শিক্ষকমন্ডলী উপস্থিত ছিলেন। 

 

বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:০০
প্রিন্ট করুন printer

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হলেন ড.পারভেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হলেন ড.পারভেজ
ড. জেড এম পারভেজ সাজ্জাদ (সংগৃহীত ছবি)

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জের প্রথম উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. জেড এম পারভেজ সাজ্জাদ। তাকে চার বছরের জন্য নিয়োগ দিয়ে আজ আদেশ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। 

আইন পাশ হওয়ার ৫ মাস মাসের মাথায় বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রথম উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিল সরকার।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক ড. জেড এম পারভেজ সাজ্জাদের নিয়োগের মেয়াদ হবে চার বছর। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন। রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজনে যে কোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৪২
প্রিন্ট করুন printer

চুয়েট অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন নির্বাচনে উৎসবমুখর পরিবেশ

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম:

চুয়েট অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন নির্বাচনে উৎসবমুখর পরিবেশ

চট্টগ্রাম প্রকৌশলী ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) কর্মরত কর্মকর্তাদের নির্বাচনকে ঘিরে দুই প্যানেলে ইতোমধ্যে ক্যাম্পাসে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। চুয়েটের সংগঠন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের ২০২১-২২ কার্যকরী পরিষদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন ২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার। বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক ১২টার থেকে ১টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। 

এইবার নির্বাচনে ১৫০ জন কর্মকর্তা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এবারের নির্বাচনে মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম-মো. মকবুল হোসেন পরিষদ এবং আমিন মোহাম্মদ মুসা-মোহাম্মদ হারুন পরিষদ দুই প্যানেলে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন বলে জানান চুয়েটের জনসংযোগ কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম।

জানা গেছে, এবারের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচনে নজরুল-মকবুল প্যানেল থেকে সভাপতি পদে ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি পদে সহকারী পরিচালক (পিঅ্যান্ডডি) জনাব সৈয়দ মো. জিল্লুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মকবুল হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে সহকারী প্রকৌশলী মো. আবদুল কাদের, অর্থ সম্পাদক পদে সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন চৌধুরী, ক্রীড়া, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে সেকশন অফিসার জনাব মোহাম্মদ শওকত আলী, দপ্তর সম্পাদক পদে সেকশন অফিসার জনাব মোহাম্মদ শহিদুজ্জামান, তথ্য, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা জনাব এ.কে.এম. জাকির হোসাইন এবং কার্যনির্বাহী সদস্য পদে সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব এস.এম. সাইফুর রহমান, সহকারী লাইব্রেরিয়ান জনাব মো. এমরানুল হক, সহকারী প্রকৌশলী জনাব  মো. শাহাদাত হোসাইন আসিফ, সহকারী প্রকৌশলী জনাব মো. নাইমুর রহমান, সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা জনাব এস.এম. ওয়ালিউল্লাহ শিকদার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

অন্যদিকে মুসা-হারুন প্যানেল থেকে সভাপতি পদে উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জনাব আমিন মোহাম্মদ মুসা, সহ-সভাপতি পদে সহকারী রেজিস্ট্রার (ঘওঝ) জনাব এস.এম. মোখতারুল মোস্তফা টিপু, সাধারণ সম্পাদক পদে চীফ টেকনিক্যাল অফিসার জনাব মোহাম্মদ হারুন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে সহকারী টেকনিক্যাল অফিসার জনাব মুহাম্মদ মোরশেদুল হক, অর্থ সম্পাদক পদে অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অফিসার জনাব পঙ্কজ বড়ুয়া, ক্রীড়া, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে সহকারী কম্পট্রোলার জনাব এ.কে.এম. কামরুল হাছান, দপ্তর সম্পাদক পদে সেকশন অফিসার জনাব মো. রুবেল মাহমুদ, তথ্য, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব মোহাম্মদ সওকত হায়াত ওসমানী এবং কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ডেপুটি কম্পট্রোলার জনাব মোহাম্মদ ইউছুফ, সহকারী পরিচালক (নিরাপত্তা) জনাব মো. আনিসুজ্জামান খান, সহকারী প্রকৌশলী জনাব রনি দে, সহকারী টেকনিক্যাল অফিসার জনাব মো. রাশেদুল ইসলাম রানা, সহকারী টেকনিক্যাল অফিসার জনাব মো. হাসিবুল হাসান নির্বাচনে  প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

২০২১-২২ কার্যকরী পরিষদের নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন প্রধান প্রকৌশলী জনাব মো. সিরাজুল ইসলাম এবং নির্বাচন কমিশনার হিসেবে ডেপুটি রেজিস্ট্রার জনাব মো. নুরুল হুদা দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া সহকারী নির্বাচন কমিশনার হিসেবে সহকারী রেজিস্ট্রার (সমন্বয়) জনাব মোহাম্মদ ফজলুর রহমান এবং আইআইসিটি’র উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জনাব সাগর তালুকদার দায়িত্ব পালন করছেন। উলে­খ্য, ইতোমধ্যে নজরুল-মকবুল পরিষদ হতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব সৈয়দ মুহিবুর রহমান এবং মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদে সেকশন অফিসার জনাব নুসরাত জাহান স্ব-স্ব পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর