শিরোনাম
প্রকাশ : ১ আগস্ট, ২০২০ ২২:৫৪

সিলেটে ছাগলের চামড়া ফ্রি!

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে ছাগলের চামড়া ফ্রি!
ফাইল ছবি

সিলেট নগরীতে ঈদুল আজহার কুরবানির পশুর চামড়া কেনাবেচা শুরু হয়েছে দুপুর থেকেই। মৌসুমী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা নগরীর বাসায় বাসায় গিয়ে চামড়া সংগ্রহ করে এনেছেন। কোন কোন বাসা-বাড়ি থেকে মাদ্রাসার ছাত্ররাও চামড়া সংগ্রহ করেছেন।

এবার চামড়া সংগ্রহে মৌসুমী ব্যবসায়ীদের সংখ্যা কম থাকায় যারা কুরবানির পশু জবাই ও মাংস কাটাকুটিতে নিয়োজিত ছিলেন কাজ শেষে তাদেরও চামড়া নিয়ে যেতে দেখা গেছে। তবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত দামের চেয়ে অনেক কম দামে বিক্রি হচ্ছে এসব চামড়া।

পানির দামে গরুর চামড়া বিক্রি হলেও ‘নাই মূল্য’ ছিল ছাগলের চামড়ায়। অনেক ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ীরা এমনিতেই চামড়া রেখে এসেছেন।

শনিবার দুপুরের পরে সিলেট নগরী এবং আশপাশ এলাকা থেকে হাজারের উপরে ছাগলের চামড়া নিয়ে জড়ো হয়েছিলেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। তবে এই ছাগলের চামড়ার দর মেলেনি। সর্বোচ্চ দশ টাকা উঠেছে ছাগলের চামড়ার দাম। এ অবস্থায় অনেক বিক্রেতা আড়তদারদের চামড়া ফ্রি দিয়ে এসেছেন। আবার কোনো কোনো ব্যবসায়ী ফেলে রেখে এসেছেন। ছোট গরুর চামড়ার ক্ষেত্রে একই অবস্থা। এবারও গরুর চামড়ার দর বিপর্যয়ের কারণে ছাগলের চামড়ার করুণ পরিণতি হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সিলেট নগরীর উপশহরের এক বাসিন্দা জানান, কুরবানি হিসেবে  তিনটি খাসি জবাই করেন। কোন ব্যবসায়ী কিনতে না আসায় কোনো ক্রেতা না আসায় শেষ পর্যন্ত খাসিগুলোর চামড়া রেজিস্টারি মাঠের সামনে রেখে এসেছেন তিনি।

সিলেটের রেজিস্ট্রারি মাঠে চামড়ার এক আড়তদার সিলেটভিউকে  বলেন, ছোট গরুর চামড়া কিনাও তাদের পক্ষে সম্ভব নয় সেখানে ছাগলের চামড়া কিনে কী করবেন। গরুর চামড়ার সঙ্গে অনেকে ছাগলের চামড়া যারা নিয়ে এসেছেন, তারা ফ্রি দিয়ে গেছেন।

দুই একজন মৌসুমী ব্যবসায়ী জানালেন, ছাগলের চামড়ার সর্বোচ্চ দশ টাকা দাম পেয়েছেন তারা। সিলেটে ছাগলের চামড়ার এমন করুণ পরিণতি গত তিন বছর ধরেই চলছে। সারাদেশেও একই অবস্থা বলে জানা গেছে।

শনিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি রেজিস্ট্রারি মাঠে অবস্থান করে দেখা যায়, গরুর চামড়া একেবারে কম দামে বিক্রি হচ্ছে। বড় আকারের গরুর চামড়া প্রতি পিস ৭০ টাকা থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত বিকোতে দেখা গেছে। কিন্তু ছোট আকারের গরুর চামড়া প্রতি পিস ২০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সরকার যে দর নির্ধারণ করে দিয়েছে, সে দরে চামড়া বিক্রি হতে দেখা যায়নি।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর