শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:৫৫

‘ই-কমার্স ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি বড় সাফল্য’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম :

‘ই-কমার্স ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি বড় সাফল্য’
উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন স্টল

ই-কমার্স ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি বড় সাফল্য। এর ফলে নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরি হচ্ছে। বাংলাদেশে ই-কমার্স ব্যবসাকে আরও গতিশীল করতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে সরকার। যারা নতুন কিছু করতে চান তাদের জন্য ই-কমার্স একটি ভালো প্লাটফর্ম। কারণ এটা কেবল দেশের গণ্ডির মধ্যে নয়, সারা বিশ্বে ছড়িয়ে যাচ্ছে। 

শনিবার দুপুরে নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে চট্টগ্রাম ই-কমার্স ফ্যামিলির (সেফ) প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাফিজুর রহমান। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ই-কমার্স পদ্ধতির মাধ্যমে বাংলাদেশের যেকোনো উদ্যোক্তা বিশ্বের যে কোনো দেশে পণ্য বিক্রি করতে পারেন। তাই এর পরিসর বা ব্যাপ্তি সীমাহীন। এই সুযোগকে আমাদের তরুণ উদ্যোক্তারা দ্রুত কাজে লাগাতে পারেন। 

সেফ এর এই উদ্যোগে চট্টগ্রামের ৫০ জন উদ্যোক্তার অংশগ্রহণে দেড়শতাধিক স্টল স্থান পেয়েছে এই পণ্য প্রদর্শনীতে। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে ছিলেন ই-ক্যাবের পরিচালক (কমিউনিকেশন অ্যাফেয়ার্স) সৈয়দ রহমান, পরিচালক (কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স) আসিফ আনাফ, দারাজ’র রিজিওনাল কমার্শিয়াল মো. ইরফানুল করিম, ইনভেস্টমেন্ট কমিটি অব ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর ভাইস চেয়ারম্যান ফারাহ মাহমুদ তৃণা, রুহুল কুদ্দুস, ইএসডিপির ট্রেনিং কো-অর্ডিনেটর ভবসিন্ধু গায়েন, বারকোড গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা মনজুরুল হক, অনেস্ট’র অ্যাডমিন বাদল সৈয়দ, উদ্যোক্তা লোকমান হাকিম, তিলোত্তমা চট্টগ্রাম এর প্রতিষ্ঠাতা সাহেলা আবেদিন, ডি ইঞ্জিনিয়ারস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সৌমেন কানুনগোসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।
  
উল্লেখ্য, গত বছরের ২১ নভেম্বর ফেসবুকভিত্তিক গ্রুপ ‘চট্টগ্রাম ই-কমার্স ফ্যামিলি’ (সেফ) এর যাত্রা শুরু হয়। ক্রেতাবান্ধব উদ্যোক্তা তৈরি করাই এই ফ্যামিলির মূল লক্ষ্য। সেফ-এর পরিচালক তৌহিদুল ইসলাম জানান, প্রতিমাসে বিনামূল্যে ৪০ জন নতুন উদ্যোক্তাকে মাসব্যাপী ২৪টি ক্লাস এবং ৩৬টি টাস্কের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ কর্মশালা পরিচালনা করে আসছে। যার মাধ্যমে এই পর্যন্ত ৩০০ উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। ‘সেফ’র আছে আরও বিভিন্ন প্রকল্প, যার মাধ্যমে হাতে কলমে উদ্যোক্তাদের ব্যবসার কাজে সহায়তা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় ১০০ নতুন উদ্যোক্তা গড়ে তোলা হয়েছে, যারা নিজেদের এবং অন্যের কর্মসংস্থান করে চলেছেন।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য