২৭ আগস্ট, ২০২১ ১১:৫৫

অন্যের ছবি দেখিয়ে ফেসবুকে 'পাত্রী চাই' বিজ্ঞাপন, যুবক গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

অন্যের ছবি দেখিয়ে ফেসবুকে 'পাত্রী চাই' বিজ্ঞাপন, যুবক গ্রেফতার

এ আর রাকিব খান

লাইক ও ফলোয়ার বাড়াতে একটি কোম্পানির সিইও-এর ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে 'পাত্রী চাই' বিজ্ঞাপন দিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন এক যুবক। গ্রেফতার যুবকের নাম এ আর রাকিব খান (২৫)। তিনি দিনাজপুরের বীরগঞ্জ থানার চৌপুকুরিয়া গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) রাতে রাকিব খানকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হয়েছে। আজ শুক্রবার তাকে আদালতে হাজির করা হবে। এর আগে, দিনাজপুরের বীরগঞ্জে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। দিনাজপুরের কেবিএম কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞানে অনার্স পাশ করেছেন রাকিব।

পুলিশ জানায়, সম্প্রতি ফেসবুকে 'ম্যারেজ মিডিয়া' গ্রুপে এ আর রাকিব খান ও রাসিফ শফিক নামক দুটি আইডি থেকে পাত্রী চাই মর্মে 'সিরিয়াস পোস্ট' ক্যাপশনে পোস্ট দেওয়া হয়। বিজ্ঞাপনে পাত্রের যোগ্যতা সম্পর্কে বলা হয়- ‌"পাত্র আমেরিকা প্রবাসী। সেখানে ব্যবসা রয়েছে তার। বাংলাদেশে এসেছে শুধুমাত্র বিয়ে করার জন্য। আমেরিকার নিউইয়র্ক সিটিতে নিজস্ব বাড়ি আছে। উচ্চতা : ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি। ওজন : ৬৫ কেজি। বাবা-মা বেঁচে নেই। বোন আছে সে বিবাহিত।"

পাত্রের এমন যোগ্যতা উল্লেখের বিপরীতে "কেমন পাত্রী চাই" মর্মে পাত্রীর যোগ্যতাও উল্লেখ করা হয়। তাতে লেখা হয়- "উচ্চতা ৫ ফুট ২ ইঞ্চির ওপরে, ওজন : ৫০-৯০ কেজির ভেতর হলে চলবে। একেবারে গরিব হলেও সমস্যা নেই। সন্তান থাকলেও চলবে।" এরপর যারা সত্যি তাকে বিয়ে করতে চান তাদেরকে হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানিয়ে একটি নম্বরও জুড়ে দেওয়া হয়। 

কিন্তু পোস্টে পাত্রের যে ছবি দেওয়া হয়েছে তা এ আর রাকিব খান বা রাসিফ শফিকের ছবি নয়, ছবিগুলো ছিল অন্য কারও। আর যার ছবি ব্যবহার করা হয়েছে তিনি একটি কোম্পানির সিইও। বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হলে গত ২৪ আগস্ট নগরীর ডবলমুরিং থানায় মামলা করেন দেশের তরুণ কর্পোরেট ব্যক্তিত্ব। এরপর পুলিশ অভিযানে নেমে ঘটনায় জড়িত রাকিবকে গ্রেফতার করে।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন,  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাকিব জানায়, ফেসবুকে লাইক ও ফলোয়ার বাড়ানোর আশায় অন্যের ছবি ব্যবহার করে 'পাত্রী চাই' বলে পোস্ট দিতেন তিনি। এক্ষেত্রে তার টার্গেট ছিল ডিভোর্সি নারীরা।

তিনি আরও বলেন, নিজের ছবির পরিবর্তে অন্যের ছবি ব্যবহার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাকিব জানান, ছবিটি তার ভালো লাগতো তাই ব্যবহার করেছেন। তবে অন্যের ছবি ব্যবহার করে চালু করা আইডি দিয়ে ৩-৪ জনের সঙ্গে কথা বললেও তাদের কাছ থেকে টাকা-পয়সা নেয়নি বলেও দাবি করেন রাকিব।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর