শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ মে, ২০১৮ ২৩:৩৯

বেতন না দিয়ে ১৭৭ কর্মচারী ছাঁটাই

নতুন করে ১৫০ জন নিয়োগের পাঁয়তারা রংপুর সিটি করপোরেশনে

শাহজাদা মিয়া আজাদ, রংপুর

তিন মাস ধরে বেতন বন্ধ রাখার পর ১৭৭ কর্মচারীকে ছাঁটাই করেছে রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক)। আগের মেয়রের আমলে এসব কর্মচারীকে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। নিয়োগ বিধিসম্মত না হওয়ায় গতকাল তাদের ছাঁটাই করা হয়েছে। এদিকে ১৭৭ জন কর্মচারীকে ছাঁটাই করে শূন্যপদে নতুন করে ১৫০ জনকে নিয়োগ দেওয়ার পাঁয়তারা চলছে। ইতিমধ্যে নিয়োগের অনুমতি চেয়ে ৩ মে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে আবেদনও করেছেন সিটি মেয়র। মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, নিয়োগ বিধিসম্মত ১৭৭ জন কর্মচারীকে ছাঁটাই করা হয়েছে। ২-১ দিনের মধ্যে বকেয়া বেতন পরিশোধ করে তাদের অব্যাহতিপত্র দেওয়া হবে। এছাড়া নতুন করে ১৫০ জন কর্মচারি নিয়োগের অনুমতি চেয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি। অনুমতি না পেলে দিন মজুরীর ভিত্তিতে ১৫০ জন কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হবে। সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, প্রথম শ্রেণির রংপুর পৌরসভাকে ২০১২ সালের ২৮ জুন সিটি করপোরেশনে উন্নীত করা হয়। তখন ৫০১ জন কর্মচারির মধ্যে ২০৫ জনের চাকরি স্থায়ী হলেও ২৯৬ জন কর্মচারি অস্থায়ী রয়ে গেছেন। এদের মধ্যে রংপুর পৌরসভার মেয়র থাকাকালে আব্দুর রউফ মানিক ১১৯ জন এবং সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টুর আমলে ১৭৭ জনকে অস্থায়ী নিয়োগ দেওয়া হয়। এসব কর্মচারী নিয়মিত বেতন-ভাতা ভোগ করছিলেন। বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা চলতি বছরের ১৯ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব নেওয়ার পর ৪ মার্চ ২৯৬ জন কর্মচারীর বেতন বন্ধ করে দেন। তাদের নিয়োগ বিধিসম্মত      হয়েছে কিনা তা তদন্ত করতে সিটি করপোরেশনে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতার হোসেন আজাদকে প্রধান করে ৫ সদস্যের কমিটি করে দেন। তদন্ত কমিটি গত রবিবার মেয়রের কাছে প্রতিবেদন দেয়। কমিটির সদস্য নগর পরিকল্পনাবিদ নজরুল ইসলাম জানান, মেয়র ঝন্টুর আমলের নিয়োগ পাওয়া ১৭৭ জনের নিয়োগের বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কোনো অনুমতি নেই। প্রতিবেদনে সে কথাই বলা হয়েছে। কর্মচারীদের চাকরিতে রাখা না রাখার এখতিয়ার মেয়র মহোদয়ের।


আপনার মন্তব্য