Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ মে, ২০১৯ ০১:৪৪

জিডিপি প্রবৃদ্ধির হিসাব নিয়ে সন্দেহ সানেমের

নিজস্ব প্রতিবেদক

জিডিপি প্রবৃদ্ধির হিসাব নিয়ে সন্দেহ সানেমের

সরকারের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হিসাব প্রক্রিয়া নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সানেম। পাশাপাশি সরকার যে আশা করছে চলতি অর্থবছর ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হবে তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছে সানেম। গতকাল একঅনুষ্ঠানে সানেম চেয়ারম্যান অধ্যাপক বজলুল হক খন্দকার, নির্বাহী পরিচালক ড. সেলিম রায়হান ও গবেষণা পরিচালক সায়মা হক বিদিশা এ সন্দেহ প্রকাশ করেন। এজন্য সরকারের কথার সঙ্গে দেশের অর্থনীতির চালিকাশক্তিগুলোর তথ্য-উপাত্ত   মেলে না দাবি করে তারা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সরবরাহ করা তথ্য-উপাত্তগুলো পুনঃপর্যালোচনার আহ্বান জানান। গতকাল সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিং (সানেম) আয়োজিত ‘কোয়ার্টারলি রিভিউ অফ বাংলাদেশ ইকোনমি’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধে সরকারের প্রবৃদ্ধির হিসাব নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়। ড. সেলিম রায়হান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির মূল চালিকা শক্তি হচ্ছে রপ্তানি, রেমিটেন্স ও বিদেশি বিনিয়োগ। বলা হচ্ছে বাংলাদেশে এখন রপ্তানি, রেমিটেন্স ও বিদেশি বিনিয়োগের চেয়েও অভ্যন্তরীণ চাহিদা বৃদ্ধি প্রবৃদ্ধির গতি বাড়াচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশের মতো একটি কম আয়ের দেশে অভ্যন্তরীণ চাহিদা বৃদ্ধি দিয়ে বড় ধরনের প্রবৃদ্ধি হতে পারে না।

১৯৮০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত বিশ্বের যেসব  দেশ বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে, সেসব দেশে অর্থনীতিতে বড় অবদান রেখেছিল রপ্তানি। তাহলে আমাদেও যে প্রবৃদ্ধি, ধরে নিচ্ছি তা হচ্ছে বহির্বাণিজ্য দিয়ে, বিশেষ করে এক্সপোর্ট ও রেমিটেন্স। অথচ  দেখছি সম্প্রতি রেমিটেন্স ও রপ্তানিতে নিম্নমুখী প্রবৃদ্ধির প্রবণতা। অথচ প্রবৃদ্ধি ঊর্ধ্বমুখী হতে দেখা যাচ্ছে। তাহলে কীভাবে এই ঊর্ধ্বমুখী জিডিপি প্রবৃদ্ধিকে ব্যাখ্যা করব?

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর