Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৪৩

জেলার রাজনীতি - ময়মনসিংহ

আওয়ামী লীগের সব কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

আওয়ামী লীগের সব কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ

একটি সিটি করপোরেশন, ১৩টি উপজেলা ও ১০টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয় ২০১৬ সালে। সে বছর ৩০ এপ্রিল উৎসবমুখর পরিবেশে কাউন্সিল হলেও দলীয় কোন্দল আর নানা জটিলতায় কমিটি ঘোষণা করতে পারেনি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। নানা জল্পনা-কল্পনার পর ২০১৭ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকাকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল সাধারণ সম্পাদক। একই সালে ঘোষিত হয় মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিও। এহতেশামুল আলমকে সভাপতি ও ধর্মমন্ত্রীর ছেলে মোহিত উর রহমান শান্তকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এদিকে শুধু তারাকান্দা উপজেলা ছাড়া জেলার ১২টি উপজেলা ও ১০টি পৌর কমিটিই এখন মেয়াদোত্তীর্ণ। এর মধ্যে কোথাও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে কমিটি চলছে আবার কোথাও আহ্বায়ক কমিটি। ইতিমধ্যেই ওইসব কমিটির অনেকেই মৃত্যুবরণ করেছেন। এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল জানান, সব উপজেলা ও পৌর কমিটি এখন মেয়াদোত্তীর্ণ। খুব শিগগিরই কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটিগুলো গঠন করা প্রয়োজন। হালুয়াঘাট : হালুয়াঘাট উপজেলায় কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয় ২০১৪ সালে। ওই কমিটির সভাপতি সাবেক সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট প্রমোদ মানকিন ও সাধারণ সম্পাদক খোরশিদ আলম ভূঁইয়া ইতিমধ্যেই প্রয়াত হয়েছেন। ২০১৬ থেকেই আওয়ামী লীগের কমিটি চলছে ভারপ্রাপ্ত দিয়ে। ধোবাউড়া : সর্বশেষ ২০১৩ সালে কাউন্সিল ছাড়াই উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। ২০১৭ সালে সভাপতি আবদুল মান্নান আকন্দ মারা যান। তখন থেকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে চলছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। ফুলপুর : ২০০৩ সালে সর্বশেষ কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয়। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে জহিরুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এরপর ওই বছরের ডিসেম্বরে শরীফ আহমেদ এমপিকে আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়। বর্তমানে ওই কমিটিই উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্ব পালন করছে।

 

তারাকান্দা : ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে ফজলুল হককে আহ্বায়ক করে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দেয় জেলা কমিটি।

গৌরীপুর : ২০০৩ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল। কাউন্সিলে গঠিত কমিটির ৬৭ সদস্যের মধ্যে সভাপতি ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান ফকির ও সাধারণ সম্পাদক বিধু ভূষণ দাস। ২০০৬ সালের ২ মে ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যু হলে জেলা কমিটির এক পত্রাদেশে সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. হেলাল উদ্দিন আহাম্মেদ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হন। 

ফুলবাড়িয়া : উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন হয় ২০০৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। সভাপতি মো. মোসলেম উদ্দিন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক মো, আবদুল মালেক সরকার। ২০০০ সালে ফুলবাড়িয়া পৌর শাখার কমিটি গঠন করা হয়। সভাপতি পৌর কাউন্সিলর মো. ছফির আলী বুল ও সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম মোস্তফা।

মুক্তাগাছা : সর্বশেষ সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয় ২০১৪ সালে। কমিটির সভাপতি কে এম খালিদ বাবু সভাপতি ও বিল্লাল হোসেন সরকার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন এখনো।

ত্রিশাল : ত্রিশালে আহ্বায়ক কমিটি করা হয় ২০১২ সালে। সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট রেজা আলীকে আহ্বায়ক করার পর এভাবেই চলছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

ঈশ্বরগঞ্জ : ২০০৩ সালে সর্বশেষ কাউন্সিলের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। তখনকার সভাপতি হাসিম উদ্দিনের মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হন সাবেক এমপি আবদুস সাত্তার। এরপর ২০১৫ তিনি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক মনোনীত হওয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের পদ ছাড়তে হয়। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন রফিকুল ইসলাম বুলবুল।

নান্দাইল : ২০০৫ সালে সর্ভশেষ কাউন্সিলের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। সাবেক এমপি মেজর জেনারেল (অব.) আবদুস সালাম ওই কমিটির সভাপতি। তবে ২০১২ সালে আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন এমপি ওই কমিটি ভেঙে দিয়ে বর্তমানে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বঘোষিত সভাপতি।

গফরগাঁও : ১৯৯৬ সালে কাউন্সিলের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন হয়। তখন কমিটিতে সভাপতি ছিলেন আমির হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক দুলাল উদ্দিন আকন্দ। গত প্রায় দুই বছর আগে আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হয়। কমিটিতে ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল আহ্বায়ক ও যুগ্ম-আহ্বায়ক বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন বাদল। ফলে আহ্বায়ক কমিটি দায়িত্ব পালন করছে।

ভালুকা : ২০০৩ সালে সর্বশেষ কাউন্সিলের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। সাবেক এমপি ডা. এম আমান উল্লাহ এখনো উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও গোলাম মোস্তফা সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর