শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:০৬

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন

বড় নগরে বেড়েছে দায়িত্ব

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

বড় নগরে বেড়েছে দায়িত্ব
ইকরামুল হক টিটু

দেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন ময়মনসিংহের আয়তন ২২ বর্গ কিলোমিটার থেকে বেড়ে বর্তমানে হয়েছে ৯১ দশমিক ৩১ বর্গ কিলোমিটার। ২১টি ওয়ার্ড থেকে হয়েছে ৩৩টি। জনসংখ্যাও বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় আট লাখ। তবে বদলায়নি নগর পিতা। টানা সাড়ে ৯ বছর সফলতার সঙ্গে ময়মনসিংহ পৌরসভার দায়িত্ব পালনের পর গত ২৭ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও ইকরামুল হক টিটুকে নতুন নগরীর দায়িত্ব দেন। তাই নগরের পরিধি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দায়িত্ব বাড়ল নয়া নগরপিতার। নাগরিকরা মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের আনাচে-কানাচে যে উন্নয়ন করছেন তার বাস্তব চিত্র ময়মনসিংহ সিটিতেও পরিলক্ষিত হবে। আর নগরবিদরা বলছেন, এ কারণে আগামীর প্রতিটি দিন হবে মেয়র ইকরামুল হক টিটুর জন্য চ্যালেঞ্জের। তবে নগরপিতা ইকরামুল হক টিটু জানিয়েছেন, বিলুপ্ত পৌরসভার যে উন্নয়ন হয়েছে তারই ধারাবাহিকতা থাকলে দেশের দ্বাদশ এ সিটিকে একটি মডেল নগরী হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব। সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়, পুরনো  পৌরসভার সঙ্গে নতুন সিটিতে যুক্ত হয়েছে পাঁচটি ইউনিয়নের প্রায় ৭০ বর্গকিলোমিটার এলাকা। এ এলাকায় নেই কোনো ধরনের নাগরিক সুবিধা। দাবি উঠেছে এ এলাকায় অবকাঠামোগত অবস্থান সৃষ্টি করে ভারী শিল্প প্রতিষ্ঠা ও ক্ষুদ্র-কুটির শিল্প পল্লী তৈরির। একটি আধুনিক ক্রিকেট ও হকি স্টেডিয়াম এবং সুইমিং পুল নির্মাণেরও জোর দাবি উঠেছে। এ প্রসঙ্গে নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমীন কালাম বলেন, নতুন করে যুক্ত হওয়া ১২টি ওয়ার্ডে পরিকল্পিত নগরায়ন দরকার। সর্বোত্তম গুণগতমানের সড়ক, কালভার্ট, পয়োনিষ্কাশন পদ্ধতি, পানি সরবরাহ লাইন ও অন্যান্য অবকাঠামো উন্নয়ন নিশ্চিত করে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়া এখন সময়ের দাবি। এ ছাড়া বিনোদন ব্যবস্থার জন্য বিশেষ ভূমিকা নিতেও বর্তমান মেয়রের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি। ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সিনিয়র সহ-সভাপতি শংকর সাহা বলেন, সিটি করপোরেশনের পরিধি বাড়ার সঙ্গে বেড়েছে কর্মযজ্ঞও। নগরীর ভিতর দিয়ে রেল লাইন থাকায় যানজটে নাকাল হচ্ছেন নগরবাসী। তাই দ্রুত স্থানান্তর করতে হবে এসব রেল লাইন। সড়ক প্রশস্তকরণের উদ্যোগ এখনই নিতে হবে। নগরের মধ্যে বাসস্ট্যান্ডগুলোকে সরাতে হবে। আধুনিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে হবে। তাহলেই ঢাকার নিকটবর্তী এ নগরীকে একটি মডেল সিটিতে রূপান্তর করা সম্ভব। জানতে চাইলে নগর পিতা ইকরামুল হক টিটু বলেন, বিভিন্ন সমস্যা ইতিমধ্যে চিহ্নিত করেছি। তবে কমন ইউটিলিটি টানেল, আর্থিক সংকট, যানজট নিরসনে প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয়, ফুটপাত দখলমুক্ত, ভৌত অবকাঠামোর (কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, বিশুদ্ধ পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থা) উন্নয়ন, খাল দখলমুক্ত করা, মশা ও মাদক নিয়ন্ত্রণের ওপর বেশি জোর দেওয়া হচ্ছে।

উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় সবাইকে পাশে পাবেন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা ময়মনসিংহকে বিভাগ করেছেন, সিটিতে উন্নীত করেছেন। এ ময়মনসিংহকে শতাধিক উপহারও দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দিক-নির্দেশনায় শিগগিরই এ নগরী একটি মডেল নগরী হিসেবে গড়ে উঠবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর