শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪৯

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়

ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ ও টাকা লেনদেনের একটি ভিডিও ফুটেজ জমা দেওয়া হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা হলেন, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সেকশন অফিসার মনিরুজ্জামান পলাশ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের কম্পিউটার অপারেটর শেরে জামান সম্রাট এবং মাস্টাররোল কর্মচারী গুলশান আহমেদ শাওন। এ ঘটনায় গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সহকারী প্রক্টর ও শরীরচর্চা বিভাগের পরিচালক মাসুদুল হাসানকে।

 সোমবার দাখিল করা অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, রংপুরের মিঠাপুকুরের বাসিন্দা রুবেল সাদীকে সেকশন অফিসার-০২ পদে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ১৬ লাখ টাকার চুক্তি করেন অভিযুক্ত ওই তিন কর্মকর্তা-কর্মচারী। চুক্তি অনুযায়ী তিন ধাপে ১৩ লাখ টাকা প্রদান করেন রুবেল সাদী। বাকি টাকা যোগদানের সময় পরিশোধ করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। কিন্তু অভিযুক্তরা টাকা নেওয়ার পর চাকরি দিতে টালবাহানা শুরু করেন। একপর্যায়ে একটি ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে তাকে কাজে যোগ দিতে বলেন তারা। সেই নিয়োগপত্র নিয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করতে গেলে কর্তৃপক্ষ তাকে জানায়, এটি ভুয়া নিয়োগপত্র। পরে টাকা ফেরত চাইলে তাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট তাবিউর রহমান প্রধান তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এদের বিরুদ্ধে এর আগে মৌখিক অভিযোগ উঠেছিল। তাদের সতর্কও করা হয়েছিল। এবারের অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে দ্রুততম সময়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর