শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ মে, ২০২১ ২৩:৪৩

শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
Google News

শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৭৬ সালের এই দিনে তিনি ইন্তেকাল করেন। বাংলাদেশের চিত্রকরদের মধ্যে তিনি শিল্পগুরু হিসেবে বিবেচিত। তাঁর নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদে একটি গ্যালারি রয়েছে। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের ৩৫-সংখ্যক গ্যালারিটি শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন চিত্রশালা হিসেবে সজ্জিত করে। ‘দুর্ভিক্ষ’ চিত্রশালার জন্য ১৯৪৩ সালে জয়নুল বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর বিখ্যাত শিল্পকর্মগুলো হলো- ১৯৫৭-এ নৌকা, ১৯৫৯-এ সংগ্রাম, ১৯৭১-এ বীর মুক্তিযোদ্ধা, ম্যাডোনা প্রভৃতি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তাঁর ১৯৬৯-এ অঙ্কিত ‘নবান্ন’ এবং ১৯৭৪-এ অঙ্কিত ‘মনপুরা-৭০’ জননন্দিত দুটি শিল্পকর্ম। তিনি চিত্রাঙ্কনের চেয়ে চিত্রশিক্ষা প্রসারের ওপর অনেক বেশি সময় ব্যয় করেছেন। অনুমান করা হয়, তাঁর চিত্রকর্মের সংখ্যা ৩ হাজারের বেশি।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে সংগৃহীত তাঁর শিল্পকর্মের সংখ্যা ৮০৭। বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সংগ্রহে আরও প্রায় ৫০০ চিত্রকর্ম সংরক্ষিত রয়েছে। আর ময়মনসিংহের সংগ্রহশালায় রক্ষিত চিত্রকর্মের সংখ্যা ৬২। তিনি ১৯৫৮ সালে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের সবচেয়ে বড় খেতাব হেলাল-ই-ইমতিয়াজ, ’৬৮ সালে ঢাকা আর্ট কলেজের ছাত্রদের পক্ষ থেকে ‘শিল্পাচার্য’ উপাধি এবং ’৭৪ সালে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ‘জাতীয় অধ্যাপক’-এর সম্মান লাভ করেন। একই প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘বাংলাদেশ চারু ও কারুকলা মহাবিদ্যালয়’।

১৯১৪ সালের ২৯ ডিসেম্বর কিশোরগঞ্জের কেন্দুয়া উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন জয়নুল আবেদিন। বাবা তমিজউদ্দিন আহমেদ ছিলেন পুলিশের দারোগা, মা জয়নাবুন্নেছা গৃহিণী।

এই বিভাগের আরও খবর