Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:৪৮

সড়কটিতে চলাচলই দায়!

শেরপুর প্রতিনিধি

সড়কটিতে চলাচলই দায়!

খানাখন্দে ভরা শেরপুর-জামালপুর মহাসড়ক দিয়ে চলাচলই কঠিন হয়ে পড়েছে। প্রায়ই ঘটছে ছোটবড় দুর্ঘটনা। প্রতিদিনয়ত বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন চালক ও সাধারণ যাত্রীরা। শুকনা মৌসুমে ধুলাবালু আর বর্ষায় গর্তে পানি জমে চলাচল বন্ধের উপক্রম হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কে। সাধারণ মানুষ আসন্ন ঈদুল আযহার আগেই মহসড়কটি স্বাভাবিক করতে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। শেরপুর সড়ক ও জনপথ (সওজ) প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, শেরপুর জেলার ৩৪ কিমি সড়ক প্রশস্ত ও মজবুতকরণ কাজের জন্য ১২৫ কোটি টাকা দরপত্র আহবান করে তিনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে কার্যাদেশ দেওয়া হয়। কাজের মেয়াদ চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত। ৩৪ কিলোমিটারের মধ্যে শেরপুর- জামালপুর মহাসড়কের দৈর্ঘ্য ১৮ কিমি। এই ১৮ কিলোমিটারের মধ্যে দেড় বছরে ১৫ কিমি রাস্তার কাজ কিছুটা সম্পন্ন হয়েছে। বাকি তিন কিমি ভাঙাচোড়া অবস্থায়ই পড়ে থাকায় তা প্রায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। তিন কিলোমিটারের মধ্যে শিমুলতলী, নন্দীর বাজার, ডাকপাড়া, কুলুরচর মোড়, পুরাদোকান মোড় ও কুসুমহাটী বাজারের অবস্থা খুব খারাপ। স্থানীয়দের দাবি শুকনা মৌসুমে গাড়ি চলাচলের সময় ধুলায় সড়কের পাশের বাড়িঘরে থাকা যায় না। এর এখন খানাখন্দে আটকে থাকা পানিতে রাস্তায় চলাচল করা যাচ্ছে না। তারা অবর্ণনীয় কষ্টে আছেন।


আপনার মন্তব্য