বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

জয়পুরহাটে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

জয়পুরহাটে হুহু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার। সে  সঙ্গে প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে ৩ থেকে ৪ জন। ভারত ঘেঁষা জেলা হওয়ায় ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের আশঙ্কা করছেন ডাক্তাররা। কিন্তু জয়পুরহাটে করোনা চিকিৎসার ভালো কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই।  রোগীদের যেতে হচ্ছে বগুড়ার হাসপাতালগুলোতে। এমনকি পিসিআর ল্যাব হওয়ার কথা থাকলেও তাও স্থাপন করা হয়নি। ১৫০ শয্যা জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে   সেন্ট্রাল অক্সিজেনের কাজ দেড় মাস আগে শুরু হলেও এখন পর্যন্ত শেষ হয়নি। রয়েছে মাত্র দুটি আইসিইউ শয্যা। পিসিআর ল্যাবের জন্য বগুড়ার ওপর নির্ভর করতে হয়। গত ১৫ জুলাইয়ের করোনা শনাক্তের রিপোর্ট মিলছে ১০ দিন পর। এ অবস্থায় করোনা চিকিৎসা ব্যবস্থা একরকম ভেঙে পড়েছে। জয়পুরহাট জেলায় বর্তমানে করোনা সংক্রমণের হার ২০ শতাংশেরও বেশি।

আধুনিক জেলা হাসপাতালে নমুনা দিতে আসা সদর উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের সুমন হোসেন, পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জি গ্রামের বাবুল হোসেন, আক্কেলপুর উপজেলার মাতাপুর গ্রামের সুমিসহ অনেক রোগী অভিযোগ করেন টেস্ট রেজাল্ট পজিটিভ জানতে ১০ দিন অপেক্ষা  করতে হয়েছে। এর মধ্যে তারা হাট-বাজার সবই করেছে। জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. রাশেদ মোবারক জুয়েল বলেন, পিসিআর ল্যাবের জন্য আমরা আবেদন করেছিলাম, আসলে এখানে জনবল সংকট। মেডিকেল কলেজ ছাড়া পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা যায় না। সেন্ট্রাল অক্সিজেনের কাজ চলছে আরও দুই মাস সময় লাগবে। সিভিল সার্জন ডা. ওয়াজেদ আলী জানান, করোনায় দ্বিতীয় ঢেউ এ আক্রান্ত হয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট আক্রান্ত হয়েছে সোমবার পর্যন্ত ৪১০৭ জন। আর এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৩৩২৭ জন। জেলায় ৮০০ জন করোনা রোগী জয়পুরহাটের বিভিন্ন হাসপাতালে ও কোয়ারেনটাইনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।