রবিবার, ৩১ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ টা

সমস্যায় জর্জরিত মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ

কাবুল উদ্দিন খান, মানিকগঞ্জ

মানিকগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ নানা সমস্যায় জর্জরিত। ফলে মানসম্পন্ন শিক্ষাদান  ব্যাহত হচ্ছে। কলেজের জমিজমা নিয়েও রয়েছে মামলা-মোকদ্দমা। জানা যায়, ১৯৪২ সালে ২৩.৭৮ একর জায়গা নিয়ে রণদা প্রসাদ সাহা কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে কলেজে শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার। ১৭ বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু রয়েছে। ছাত্রীদের জন্য দুটি হোস্টেল থাকলেও ছাত্রদের কোনো হোস্টেল নেই। ছাত্রদের হোস্টেলটি সংস্কারের অভাবে বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন। ফলে ক্লাসে ছাত্রদের উপস্থিতি দিন দিন কমছে। দূরের ছাত্রদের লেখাপড়া ব্যাহত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের কলেজে আসা-যাওয়ার জন্য একমাত্র বাসটিও অকেজো। কলেজের পুকুরগুলো ময়লা-আবর্জনায় ভরে গেছে। শিক্ষার্থীরা জানান, বিভিন্ন উপজেলা থেকে হাজার হাজার শিক্ষার্থী দেবেন্দ্র কলেজে পড়াশোনা করেন। নিজস্ব যানবাহন না থাকায় শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কম। শিক্ষার্থী মিজান ও শরিফ বলেন, দৌলতপুর থেকে কষ্ট করে আসার পর যদি ক্লাস না হয় তখন কেমন লাগে। তাই মাঝে মধ্যে কলেজে আসি। তারা আরও বলেন, শিক্ষকরা ঠিকমতো ক্লাস নেন না। প্রাইভেট পড়ানোর আগ্রহ তাদের বেশি। এ ছাড়া কলেজে সীমানা প্রাচীর থাকলেও ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের আনাগোনায় আমরা আতঙ্কে থাকি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী জানান, বন্ধ ছাত্র হোস্টেলসহ কলেজের উত্তর পাশে সব সময় বহিরাগতদের আনাগোনা লক্ষ্য করা যায়। তারা প্রকাশ্যে মাদক সেবন করে। এসব বন্ধ না হলে কলেজে ছাত্রী ভর্তি কমে যাবে। উচ্চশিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে জেলার ছেলে-মেয়েরা। কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রেজাউল করিম বলেন, শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য মাত্র একটি পুরনো বিআরটিসি বাস রয়েছে। যা অনেকদিন ধরে নষ্ট। এ ছাড়া শিক্ষক-কর্মচারী সংকট রয়েছে বহুদিন ধরে। দিন দিন শিক্ষার্থী বাড়লেও অবকাঠামো সেভাবে উন্নয়ন হয়নি। শিক্ষার্থীদের জন্য কমপক্ষে চারটি বাসের দরকার। তিনি আরও বলেন, দ্রুত ছাত্রদের হোস্টেল সংস্কার করে থাকার উপযোগী করা হবে। শিক্ষকদের ক্লাস ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেট পড়ানো সম্পর্কে তিনি বলেন, এটি বন্ধ করতে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

সর্বশেষ খবর