Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জুলাই, ২০১৯ ২১:০১

নেত্রকোনায় ব্যাগে শিশুর কাটা মাথা

'এমন দুধের শিশুকে যারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে তারা মানুষ নয়'

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

'এমন দুধের শিশুকে যারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে তারা মানুষ নয়'

নেত্রকোনায় নৃশংসতার শিকার শিশুটির লাশ নিতে শুক্রবার দিনভর মর্গের সমানে ভিড় ছিলো স্বজনদের। সকাল থেকে তারা লাশ নিতে মর্গের সামনে অপেক্ষা করেন। সজিবের চাচা আমতলা গ্রামের মো. কাশেম জানান, তার ভাই রিক্সাচালক রহিছ উদ্দিন গত মাস দেড়েক পূর্বে শহরের কাটিলি এলাকায় ভাড়া বাসায় উঠেন। তার সাথে কোন শত্রুতা ছিল না। এমন দুধের একটি ছোট শিশুকে যে বা যারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে তারা মানুষ নয়।

মর্গের সামনে থাকা স্বজনদের সাথে এলাকার সাধারণ মানুষও ভিড় জমান। ছোট শিশুর নির্মম বলির কারণে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

ভাড়া দেয়া বাড়ির মালিক মেহেরুন্নেছা জানান, শিশুটি বৃহস্পতিবার সকালে খেয়ে ছোট ভাইয়ের সাথে খেলা করছিলো। এরপর নিখোঁজ হয়। দুপুরে ফেসবুকে কাটা মাথা ছবি দেখে সবাই সজিবকে চিনলে আমরা খবর পাই।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুরের দিকে শহরের সুইপার কলোনির পাশে হাতে ব্যাগ নিয়ে ঘোরার সময় জনতা ব্যাগধারীকে ধাওয়া করেল নিউটাউন এলাকার অনন্তপুকুরপাড়ে তাকে আটক করে। এসময় ব্যাগে তল্লাশি করে একটি খণ্ডিত মাথা পেলে উত্তেজিত জনতার হাতে ব্যাগ বহনকারী রবিন নিহত হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে নিয়ে যায়। এসময় কিছু পুলিশকেও ধাওয়া করে উত্তেজিত জনতা। পুলিশ খণ্ডিত মাথার সাথে থাকা বরফের মতো জিনিসসহ কিছু মেডিসিন উদ্ধার করে। 
বিকালে কাটলি এলাকার মোশারফ হোসেনের নির্মাণাধীন তিনতলা বিল্ডিংয়ের টয়লেট থেকে গোয়েন্দা পুলিশ শিশুর শরীরের কাটা বাকি অংশ উদ্ধার করে।

পুলিশের তথ্যমতে, সার্প কাটার দিয়ে নিখুঁতভাবে কাটা হয়েছে শিশুটিকে। পাশাপাশি ধারণা করা হচ্ছে, বলাৎকার করা হয়েছে শিশুটিকে।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য