শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৫৫
আপডেট : ১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:৩৪

রোকেয়া হলে অনশন স্থগিত, আলটিমেটাম ২৪ ঘণ্টার

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

রোকেয়া হলে অনশন স্থগিত, আলটিমেটাম ২৪ ঘণ্টার

ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে রোকেয়া হলে ঘটা অনিয়মে হল প্রাধ্যক্ষের সহযোগিতার অভিযোগ এনে তার পদত্যাগের দাবিতে করা অনশন স্থগিত করে ২৪ ঘণ্টার আটিমেটাম দিয়েছে ওই হলের শিক্ষার্থীরা। তারা এই সময়ের মধ্যে হল প্রাধ্যক্ষ্যের পদত্যাগ ও তাদের অন্যান্য দাবি মেনে নিতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছে।

এদিকে, আজ রাত সাড়ে নয়টার দিকে অনশনরত পাঁচ শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলতে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী, রোকেয়া হল প্রাধ্যক্ষ ড. জিনাত হুদা, ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর, জিএস গোলাম রব্বানী, এজিএস সাদ্দাম হোসেনসহ নব-নির্বাচিত নেতৃবৃন্দ। তারা অনশনরত শিক্ষার্থীদের সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দিয়ে অনশন ভাঙ্গানোর চেষ্টা করেন। তবে শিক্ষার্থীরা কোনভাবেই রাজি হননি। অনশন ভাঙ্গার আহ্বান জানিয়ে প্রক্টর এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, তোমাদের সমস্যা মানেই ঢাকা
বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সমস্যা, তোমাদের সমস্যার কথা তোমরা বলতেই পার। তবে সমস্যা সমাধানে আমাদের সহযোগিতা করতে হবে। এ সময় শিক্ষার্থীদের ‘মানি না, মানি না’ ইত্যাদি বলে স্লোগান দিতে থাকে। এ হল প্রাধ্যক্ষ আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বলেন, আমি কারও নামে কোন মামলা দিইনি। আমি সবসময় শিক্ষার্থীদের কথা শোনার চেষ্টা করেছি। তার বক্তব্য দেওয়ার সময়ও শিক্ষার্থীরা ‘ভুয়া, ভূয়া’, ‘পদত্যাগ পদত্যাগ’ স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী কথা বলতে চাইলে আন্দোলনকারীরা ‘কোন হ্যারাসমেন্টকারীর কথা শোনা হবে না’ বলে তাকে জানিয়ে দেন। এর কিছুক্ষণ পর সেখান থেকে সরে যান তিনি।
এদিকে, ঘটনার এক পর্যায়ে রাফিয়া সুলতানা নামে এক অনশনকারী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তার অসুস্থতায় উত্তেজিত হয়ে ওঠে আন্দোলনকারীরা। এতে প্রক্টর ও হল প্রাধ্যক্ষ হলগেট থেকে সরে গিয়ে হল প্রাধ্যক্ষের বাংলোতে অবস্থান নেন।
আন্দোলনকারী সেখানে গিয়ে প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় প্রশাসনের উদ্দেশ্যে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম ঘোষণা করে তারা। পরে হলের ভিতরে ঢুকে পড়ে তারা।
মৌসুমি নামে হল সংসদের ভিপি প্রার্থী জানান, আমরা হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগের জন্য ২৪ ঘণ্টা আলটিমেটাম দিলাম। এছাড়াও এই সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের নামে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা দিয়ে পুনরায় রোকেয়া হল সংসদ নির্বাচন দিতে হবে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য