Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৩

আরেক মাফিয়া গ্রেফতার

ঠিকাদারি নৈরাজ্যের অবসান হোক

আরেক মাফিয়া গ্রেফতার

রাজধানীর ঠিকাদারি ব্যবসার মাফিয়া বলে কথিত জি কে শামীমকে র‌্যাব গ্রেফতার করেছে। রাজনীতিকে দুর্বৃত্তায়নের ছোবল থেকে মুক্ত করার অভিযানে আটক করা হয়েছে এই যুবলীগ নেতার সাত দেহরক্ষীকেও। শুক্রবার সকাল থেকে নিকেতন এ-ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাড়িতে র‌্যাব দীর্ঘ ১১ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। এ সময় শামীমের অফিস থেকে ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা, ৯ হাজার ইউএস ডলার, ৭৫২ সিঙ্গাপুরি ডলার, ১৬৫ কোটি টাকার এফডিআর, অস্ত্রসহ বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব বলছে, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, অবৈধ কাজে বৈধ অস্ত্রের ব্যবহারসহ কয়েকটি সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথমে নিকেতনের বাড়ি থেকে আটক করে তল্লাশির জন্য তার অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। জি কে শামীম যুবলীগ নেতা হিসেবে রাজধানীর সব সরকারি অফিসের ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণ করতেন। যুবলীগের একটি বিশাল গ্রুপও ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণে তার সহযোগী হিসেবে ব্যবহৃত হতো। তার ভয়ে অন্য ঠিকাদাররা টেন্ডারে অংশ নিতে ভয় পেতেন। গণপূর্ত, রাজউক, শিক্ষাভবন, পিডিবিসহ সরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানে জি কে শামীম গংয়ের একচ্ছত্র আধিপত্য গড়ে ওঠে। ই-টেন্ডারের কারণে অনেকে কিছু ছোট ছোট কাজ পেলেও জি কে শামীমের ভয়ে তা ছেড়ে দিতে বাধ্য হতো। যুবদলের নেতা শামীম আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আন্ডারওয়ার্ল্ডের একজন শীর্ষ সন্ত্রাসীর মাধ্যমে যুবলীগের সঙ্গে যুক্ত হন। রাজধানীর ঠিকাদারি ব্যবসার নিয়ন্ত্রক এই নব্য যুবলীগ নেতার প্রতিষ্ঠান ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ৩ হাজার কোটি টাকার কাজ করছে। তার বিরুদ্ধে এক ছাত্রলীগ নেতার হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগও রয়েছে। দেশের ঠিকাদারি ব্যবসার সঙ্গে রাজনৈতিক পরিচয়ধারী দুর্বৃত্তরা জড়িত হয়ে পড়ায় সরকারি প্রতিটি নির্মাণকাজের মান নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে। অস্ত্র ও ক্ষমতার জোর থাকায় ঠিকাদারি কাজ সম্পন্ন করার আগেই তারা বিল আদায়ের সক্ষমতা দেখাচ্ছেন। আশা করা হচ্ছে জি কে শামীমকে গ্রেফতারের ঘটনা ঠিকাদারি ব্যবসার নামে যে যথেচ্ছতার প্রবণতা রয়েছে তার লাগাম টেনে ধরবে। জি কে শামীমের অফিস থেকে আটক অর্থ বাজেয়াপ্ত করে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেওয়া হবে- এমনটিও বাঞ্ছনীয়। পাশাপাশি শামীমকে যুবলীগে নেওয়া এবং তার গডফাদারের ভূমিকা পালনকারীদের জবাবদিহির আওতায় আনা হবে- আমরা এমনটিই দেখতে চাই।


আপনার মন্তব্য