শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:৫২

বিচিত্রতা

ইয়াবা

ইয়াবা

রাসায়নিক চরিত্র, শক্তি, কার্যকারিতা ও প্রতিক্রিয়া বিচারে অ্যামফিটামিন, মেথামফিটামিন কিংবা কোকেনের চেয়েও ইয়াবা শক্তিশালী উচ্চমাত্রার উত্তেজক মাদকদ্রব্য। দীর্ঘদিন ব্যবহারে hallucination তৈরি হয় এবং ধীরে ধীরে ফুসফুস, লিভার, কিডনি নষ্ট হয়। এ নেশায় চরম অবসাদ, হতাশা, বিষাদ ও নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়। ব্যবহারকারী তখন যে কোনো রকম অপ্রত্যাশিত আচরণ করতে পারে, মানুষ খুন করাও বিচিত্র কিছু নয়। এমনকি হতাশা থেকে মাদকাসক্তকে আত্মহত্যার দিকেও নিয়ে যেতে পারে। ইয়াবা সেবনে ২ থেকে ৩ ঘণ্টার মধ্যে এর স্নায়ুর উত্তেজক ক্রিয়া শুরু হয়ে ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা স্থায়ী হয়। এই সময়ের মধ্যে ব্যবহারকারী শারীরিক ও মানসিকভাবে এমন এক জগতে অবস্থান করে যেখানে কোনো ক্ষুধা, বেদনা, ক্লান্তি ও অবসাদ নেই। বরং ব্যবহারকারীর মধ্যে এক ধরনের অতিমানবিক শক্তি ভর করে। কিন্তু ১০-১২ ঘণ্টা শেষে এর প্রভাব কেটে যাওয়ার পর নতুন করে আবার এ মাদকটি গ্রহণ না করলে ব্যবহারকারীদের সোজা আকাশ থেকে পাতালে পতিত হওয়ার অবস্থা হয়। মেথামফিটামিনের প্রত্যাহারজনিত প্রতিক্রিয়া হেরোইনের চেয়েও মারাত্মক, কখনো কখনো জীবন-বিধ্বংসী। এর ব্যবহৃত ডোজের মাত্রা বেশি হলে প্রত্যাহারজনিত প্রতিক্রিয়া এত তীব্রতা লাভ করে যে, এ অবস্থায় ব্যবহারকারী যে কোনো অস্বাভাবিক ও অযাচিত ঘটনা ঘটাতে, এমনকি আত্মহত্যা পর্যন্ত করতে পারে।


আপনার মন্তব্য