শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২২:২০

ঢাকাই ছবিতে বলিউডের যত তারকা

ঢাকাই ছবিতে বলিউডের যত তারকা

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর যৌথ ও স্থানীয়ভাবে নির্মিত বহু ছবিতে অভিনয় করেন কলকাতার শিল্পীরা। একসময় এ দেশের ছবিতে কাজ করেন বলিউডের বেশ কয়েকজন নামি তারকা। তাদের কথা তুলে ধরেছেন- আলাউদ্দীন মাজিদ

 

জয়াপ্রদা (আমি সেই মেয়ে, ১৯৯৮)

১৯৯৮ সালে বাংলাদেশের ‘আমি সেই মেয়ে’ ছবিতে অভিনয় করেন বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেত্রী জয়াপ্রদা।  রুহুল আমিন বাবুল ও কলকাতার প্রসেনজিৎ ছবিটি পরিচালনা করেন। ছবিটি প্রযোজনা করেন আজিজ মোহাম্মদ ভাই। দেলোয়ার জাহান ঝন্টু এর গল্প লিখেন। এতে অভিনেতা আলমগীরের বিপরীতে জয়াপ্রদা অভিনয় করেন। এই ছবির গান কুমার শানু ও অলকার কণ্ঠে ‘আগুনের দিন শেষ হবে এক দিন’ আজও জনপ্রিয় হয়ে আছে। ছবিটিতে আরও অভিনয় করেন আহমেদ শরীফ, কলকাতার ঋতুপর্ণা, প্রসেনজিৎ ও রঞ্জিত মল্লিক। ১৯৯৮ সালের ২২ অক্টোবর ঈদুল আজহায় ছবিটি মুক্তি পায় এবং বাম্পার হিট ব্যবসা করে।

 

জয়া বচ্চন (মেহেরজান, ২০১১)

২০০৯ সালের ২২ অক্টোবর অনেকটা নীরবেই ঢাকার ছবিতে কাজ করতে এসেছিলেন বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেত্রী জয়া বচ্চন। চলচ্চিত্রের নাম মেহেরজান। রুবাইয়াত হোসেন পরিচালিত এই ছবির নাম-ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। ছবির শুটিং হয় গুলশানের একটি বাড়িতে। মেহেরজান বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটি চলচ্চিত্র। ছবিটি ২০১১ সালের ২১ জানুয়ারি মুক্তি পায়। মোশন পিকচার্স এর ব্যানারে নির্মিত ছবিটির বাংলাদেশের পরিবেশক আশীর্বাদ চলচ্চিত্র। ছবিতে অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ভারতীয় অভিনেতা ভিক্টর ব্যানার্জি। এ ছাড়াও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেন ওমর রহিম (পাকিস্তান), শায়না আমিন, হুমায়ুন ফরীদি, খায়রুল আলম সবুজ, আজাদ আবুল কালাম, রিতু আবদুস সাত্তার, রুবাইয়াত হোসেন ও নাসিমা সেলিম।

 

শাবানা আজমী আইয়ুব খান (মেঘলা আকাশ, ২০০২)

বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেত্রী শাবানা আজমী  ও অভিনেতা আইয়ুব খান বাংলাদেশের ছবি ‘মেঘলা আকাশ’ এ অভিনয় করেন ২০০২ সালে। ছবিটি নির্মাণ করেন নার্গিস আক্তার। বাংলাদেশের তারকাদের মধ্যে ছিলেন মৌসুমী, শাকিল খান, পূর্ণিমা প্রমুখ। এইচআইভি এইডসের ওপর ভিত্তি করে ছবিটি নির্মাণ করা হয়। চলচ্চিত্রটি বেশ কয়েকটি বিভাগে জাতীয় পুরস্কার জয় করে।

 

মিঠুন চক্রবর্তী (অন্যায় অবিচার, ১৯৮৫)

বলিউডের ডিস্কো ড্যান্সার খ্যাত প্রখ্যাত অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী অভিনয় করেন এ দেশের ‘অন্যায় অবিচার’ ছবিতে। এটি ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশের অভিনেতা নির্মাতা হাসান ইমাম ও কলকাতার শক্তি সামন্ত পরিচালনা করেন। ছবিটিতে আরও অভিনয় করেন রোজিনা, নূতন, কলকাতার উৎপল দত্ত প্রমুখ।

           

চাঙ্কি পান্ডে (মেয়েরাও মানুষ, ১৯৯৩ স্বামী কেন আসামি ১৯৯৪)

একসময় বলিউডে বেশ খ্যাতি অর্জন করেছিলেন অভিনেতা চাঙ্কি পান্ডে। ১৯৯৩ ও ১৯৯৪ সালে তিনি বাংলাদেশের দুটি ছবিতে অভিনয় করেন। প্রথমটি ছিল অভিনেত্রী শাবানা নিবেদিত ‘মেয়েরাও মানুষ’। এটি পরিচালনা করেন মনোয়ার খোকন। ছবিটিতে আরও অভিনয় করেন শাবানা, জসিম ও কলকাতার ঋতুপর্ণা। চাঙ্কি পান্ডে এরপর কাজ করেন বাংলাদেশের ‘স্বামী কেন আসামি’ চলচ্চিত্রে। শাবানা প্রযোজিত এই ছবিটিও পরিচালনা করেন মনোয়ার খোকন। এ ছবিতেও অভিনয় করেন শাবানা, জসিম ও কলকাতার ঋতুপর্ণা।

 

ইরফান খান (ডুব, ২০১৭)

বাংলাদেশের ডুব চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন বলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা ইরফান খান। ২০১৭ সালে নির্মিত এই  চলচ্চিত্রটির গল্প লিখেছেন ও পরিচালনা করেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। চলচ্চিত্রটির প্রযোজনা করে জাজ মাল্টিমিডিয়া,  এসকে মুভিজ এবং ইরফান খান ফিল্মসের ইরফান খান। চলচ্চিত্রটিতে আরও অভিনয় করেন নুসরাত ইমরোজ তিশা, রোকেয়া প্রাচী এবং পার্ণো মিত্র। এই ছবির গল্প হচ্ছে পরিবারের প্রধান সদস্যের মৃত্যুর পরে দুটি পরিবারের অটুট বন্ধনের কাহিনি নিয়ে। যেখানে একজন মধ্যবয়স্ক লেখক এক তরুণীর প্রেমে পড়েন যিনি তার মেয়ের বন্ধু। চলচ্চিত্রটির প্রধান ভাষ্য হচ্ছে, ‘মৃত্যু সবসময় সব কিছু নিয়ে যায় না, অনেক সময় কিছু দিয়েও যায়।’


আপনার মন্তব্য