শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ মার্চ, ২০২১ ১৩:৪৫
আপডেট : ৭ মার্চ, ২০২১ ১৪:২৫
প্রিন্ট করুন printer

‘অগ্রজ’ অনুষ্ঠানে বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও বাংলাদেশের গল্প শোনালেন অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান

অনলাইন ডেস্ক

‘অগ্রজ’ অনুষ্ঠানে বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও বাংলাদেশের গল্প শোনালেন অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান

আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড আয়োজিত 'অগ্রজ'-এর পঞ্চদশ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই আয়োজনে বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা অগ্রজ গুণী ব্যক্তিত্বরা আমন্ত্রিত হয়ে তাদের কর্মজীবনের মূল্যবান অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। সেই ধারাবাহিকতায় ‘অগ্রজ’- এর এই পর্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বনামধন্য ফোকলোরবিদ ও গবেষক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। 

বরাবরের মতো দেশের ব্যাংকিং জগতের সুপরিচিত নাম আনিস এ খানের সঞ্চালনায় পর্বটি অনুষ্ঠিত হয়। বাংলা একাডেমির সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালনকারী অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান জন্মগ্রহণ করেন মানিকগঞ্জ জেলার চারিগ্রামে। ষাটের দশকে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করেন। তাঁর কর্মজীবনের সূচনা ঘটে শিক্ষকতা পেশায় যুক্ত হয়ে। মুন্সীগঞ্জ হরগঙ্গা কলেজ, ঢাকা জগন্নাথ কলেজ, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন এই শিক্ষাবিদ। 

স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশে ফোকলোর গবেষণায় অগ্রগণ্য ব্যক্তিত্ব বরেণ্য এই গবেষক। তাঁর রচনা ও সম্পাদনায় গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে শতাধিক। বাংলা সাহিত্য, লোকসাহিত্য, বাংলাদেশের ইতিহাস, বঙ্গবন্ধুর জীবন, অসাম্প্রদায়িকতাসহ নানা বিষয় উঠে এসেছে তাঁর গবেষণায়। সৃজনশীল মৌলিক সাহিত্য সৃষ্টিতেও তাঁর উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে।  

২০০৯ সালে অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান বাংলা একাডেমি-এর মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব লাভ করেন। প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান এর উত্তরসূরি হিসেবে বর্তমানে তিনি এই প্রতিষ্ঠানটির সভাপতির পদ অলঙ্কৃত করেছেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া'র বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক হিসেবেও নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন তিনি। এর আগে তিনি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর-এর মহাপরিচালক  জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর চেয়ারম্যান হিসেবেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। 

সাহিত্য ও গবেষণাকর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার (২০০১), একুশ পদক (২০০৯) এবং ২০১৭ সালে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান স্বাধীনতা পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন সৃজনশীল এই মানুষটি। অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানের কথায় বাংলা ভাষা, বাংলা সাহিত্য ও বাংলাদেশের নানান অসাধারণ গল্প উঠে এসেছে ‘অগ্রজ’- এর এই পর্বে। 

আয়োজনটি সম্পর্কে আইপিডিসি ফাইন্যান্স-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মমিনুল ইসলাম বলেন, ‘‘আইপিডিসি ‘অগ্রজ’-এ র মাধ্যমে বিভিন্নক্ষেত্রে অবদান রাখা দেশের অগ্রজদের কর্মমুখর জীবনের গল্প ডিজিটাল মাধ্যমে তুলে ধরতে চায় এবং মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে চায়। এই আয়োজনে বাংলা একাডেমির অভিভাবক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানকে পেয়ে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত, তাঁর গ্রন্থ ও বক্তব্য সবসময়ই আমাদেরকে ভাবনার খোরাক জাগায়। ‘অগ্রজ’- এ তাঁর সৃষ্টিশীল জীবনের অভিজ্ঞতার গল্প থেকে নতুন প্রজন্ম সৃজনশীল চর্চার প্রেরণা খুঁজে পাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’’

‘অগ্রজ’ একটি ওয়েবিনার সিরিজ যা প্রতি মাসের প্রথম ও তৃতীয় বৃহস্পতিবার আইপিডিসি’র অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়। অনুষ্ঠানের প্রতিটি পর্বই অতিথিদের ব্যক্তিগত ও পেশাদারি জীবনের নানা বাঁক ও চড়াই-উৎরাই দর্শকদের সামনে তুলে আনে। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক আনিস এ খান প্রায় চার দশক ধরে ব্যাংকিং ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়ার পর সম্প্রতি এই খাত থেকে অবসর গ্রহণ করেন। 

অনলাইন এই অনুষ্ঠানে বিখ্যাত ব্যক্তিরা তাঁদের সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র যেমন অর্থ, ব্যবসা, শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা এবং মিডিয়া ইত্যাদির নানা উল্লেখযোগ্য বিষয় আলোচনা করেন। লাইভ এই অনুষ্ঠানটি রেকর্ডকৃত রূপে আইপিডিসি'র ফেসবুক পেজ, আইপডিসি’র অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও www.ogroj.com.bd এই ঠিকানায় পাওয়া যাবে। বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: www.ipdcbd.com.

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর