শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৪৪

ঘুষের মামলায় দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ নাজমুল হুদাকে

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঘুষের মামলায় দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ নাজমুল হুদাকে

যমুনা সেতুর রক্ষণাবেক্ষণ কোম্পানি মর্গানেট ওয়ান লিমিটেডের কাছ থেকে সাপ্তাহিক পত্রিকার বিল হিসেবে ৬ লাখ টাকা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। গতকাল দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ে সকাল সোয়া ১০টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ৬ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। দুদকের সহকারী পরিচালক মনিরুল ইসলাম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের নাজমুল হুদা আরও বলেন, যমুনা সেতুর রক্ষণাবেক্ষণ বিষয়ে কিছু বিজ্ঞাপন তার মালিকানাধীন সাপ্তাহিক পত্রিকা খবরের অন্তরালে-তে ছাপা হয়েছে। ওই বিজ্ঞাপনের বিল হিসেবে সেতুর রক্ষণাবেক্ষণ কোম্পানি মর্গানেট ওয়ান লিমিটেড প্রতি মাসে ২৫ হাজার টাকা করে পরিশোধ করেছে। এ বিলের মোট ৬ লাখ টাকা খবরের অন্তরালে পত্রিকার অ্যাকাউন্টে জমা হয়। তিনি বলেন, ওয়ান-ইলেভেনের সময় তত্ত্বাবধায়ক সরকার উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ওই ৬ লাখ টাকাকে ঘুষ হিসেবে উল্লেখ করে মামলা করে। নাজেহাল করার উদ্দেশ্য নিয়ে ওই সময়ের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের একজন উপদেষ্টার হস্তক্ষেপে আমার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। দুর্নীতির অভিযোগ এনে আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। পরবর্তী সময়ে মামলাটি বাতিলের জন্য হাই কোর্টে আবেদন করা হলে আদালত মামলাটি বাতিল করেন। পরে বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে দুদক লিভ টু আপিল করে। নাজমুল হুদা বলেন, বাতিল হওয়া মামলা সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা পুনরুজ্জীবিত করেন। এরপর উচ্চ আদালত মামলাটি বাতিলের আদেশ খারিজ করে দেয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে দুদক মামলাটির তদন্ত শুরু করেছে। তদন্ত পর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমাকে ডাকা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর