Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ মে, ২০১৯ ২৩:৩৭

বাজেটে চাঙ্গা হবে আবাসন

শেয়ারবাজারে আস্থা ফেরাতে ব্যবস্থা, ব্যাংক বাঁচানো, এলএনজি ও প্রবাসীদের জন্য বিশেষ সুযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাজেটে চাঙ্গা হবে আবাসন

আসছে বাজেটে সুখবর থাকছে আবাসন খাতে। বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিয়ে চাঙ্গা করতে এবার বড় ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। আবাসন খাত বিকাশে বাজেটে ফ্ল্যাট ও জমির নিবন্ধন ফি কমানোসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের ঘোষণা থাকছে। এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের সুবিধা দেওয়া ছাড়াও শেয়ারবাজার চাঙ্গা করতে বাজেটে আসছে নানান প্রণোদনা। ব্যাংকিং খাতের জন্য থাকবে নগদ অর্থ বরাদ্দ। ৮ হাজার কোটি টাকার ভর্তুকি বরাদ্দ থাকবে এলএনজি আমদানিতে। প্রবাসীদের জন্যও থাকছে বিশেষ প্রণোদনা। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, নানা সমস্যায় জর্জরিত আবাসন খাত চাঙ্গা করতে এবারের বাজেটে বড় ধরনের সুবিধা দেওয়া হবে। বাজেটে ফ্ল্যাট ও জমির নিবন্ধন ফি কমানোসহ রয়েছে নানা পদক্ষেপ। এর মধ্যে গেইন ট্যাক্স স্ট্যাম্প ফি, স্থানীয় ও মূল্য সংযোজন কর ও ফ্ল্যাটের নিবন্ধন ফি কমানো হবে। ডিড ভ্যালু বা দলিলের মোট মূল্যের ওপর এই ফি বর্তমানে ১৬ থেকে ১৭ শতাংশ। আগামী বাজেটে এসব ফি কমিয়ে অর্ধেক করা হচ্ছে। এখন ফ্ল্যাট ক্রয়ে অপ্রদর্শিত অর্থ বা কালো টাকা সাদা করার সুযোগ রয়েছে। আগামী বাজেটে এই সুবিধা আরও বাড়িয়ে কমানো হবে অপ্রদর্শিত অর্থের বিপরীতে করের পরিমাণ।

কয়েক বছর ধরে ধসে পড়া শেয়ারবাজার চাঙ্গা করতে নেওয়া হচ্ছে বিশেষ উদ্যোগ। এ ক্ষেত্রে করমুক্ত সীমা বিদ্যমান ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করা হচ্ছে। তালিকাভুক্ত অনেক কোম্পানি মুনাফা করার পর তার শেয়ারহোল্ডারদের ঠিকমতো লভ্যাংশ দেয় না, অনেক কোম্পানি আছে বছরের পর বছর লভ্যাংশ ঘোষণা করে না। এতে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য লভ্যাংশের অর্জিত আয়ে আরও কর ছাড় দেওয়া হবে। ফলে বিনিয়োগকারীরা শেয়ার কিনতে উৎসাহিত হবেন এবং বাজার চাঙ্গা হবে বলে আশা করছে সরকার।

নানা অনিয়ম, দুর্নীতি আর খেলাপি ঋণের ভারে ন্যুয়ে পড়া ব্যাংক খাত বাঁচাতে আবারও দেড় হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হচ্ছে। এ অর্থ মূলত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মূলধন ঘাটতির পূরণে ব্যয় হবে। সংকটে পড়া ব্যাংক খাতের ইমেজ উদ্ধারে সম্প্রতি খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ভালো      ঋণগ্রহীতাদের জন্যও পৃথক সুবিধা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। দেশের বিদ্যুৎ জ্বালানি খাতের উন্নয়নে আসছে বিশেষ প্রণোদনা। এ খাতে প্রাক্কলিত বরাদ্দের পরিমাণ ২৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভর্তুকি দেওয়া হবে বিদ্যুৎ খাতে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ভর্তুকির পরিমাণ প্রাথমিকভাবে প্রাক্কলন করা হয়েছে ৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে শুধু এলএনজিতে আমদানিতেই রাখা হয়েছে সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা। গ্যাসের সংকট কাটাতে এলএনজি শিল্পকে ভর্তুকি বরাদ্দ দিয়ে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হবে আসছে বাজেটে।

দেশের বাইরে থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য সরকার এবার বাজেটে বিশেষ সুবিধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করছে। যারা রেমিট্যান্স পাঠান তাদের জন্য প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হচ্ছে। নগদ অর্থ সহায়তা দিয়ে প্রবাসীদের জন্য এই বরাদ্দ ব্যবহার করা হবে। বাংলাদেশ ব্যাংককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কোন পদ্ধতিতে প্রবাসীদের সহায়তা দেওয়া হবে তা ঠিক করতে। আগামী অর্থবছরে কৃষি খাতের জন্য ৯ হাজার কোটি টাকা রাখার প্রস্তাব করা হচ্ছে। রপ্তানি নগদ প্রণোদনাও রাখা হচ্ছে চার হাজার কোটি টাকা। আর পাট খাতের জন্য ৫০০ কোটি টাকা।

 


আপনার মন্তব্য