শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৫

আরও জমেছে বিকিকিনি

মোস্তফা মতিহার

আরও জমেছে বিকিকিনি

অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২১তম দিনে জমে উঠেছে শেষ মুহূর্তের বেচাকেনা। ছুটির দিন হওয়ায় গতকাল মেলায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। মেলার শেষ দিন পর্যন্ত বইপ্রেমীদের এমন উপস্থিতি ও বিক্রির ধারা অব্যাহত থাকুক- এমনটিই প্রত্যাশা করছেন প্রকাশকরা। গতকাল বেলা ১১টায় মেলার প্রবেশদ্বার খোলার পর থেকে ভিড় বাড়তে থাকে। এদিন ছিল মেলার ষষ্ঠ শিশুপ্রহর। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টা ব্যাপ্তির শিশুপ্রহরে সিসিমপুরে টুকটুকি, হালুমের সঙ্গে দুরন্তপনায় মেতে ওঠার পাশাপাশি বাবা-মায়ের কাছ থেকে পছন্দের বইটিও আদায় করে নেয় শিশুরা। দুপুর ১টা পর্যন্ত শিশুপ্রহরে সোনামণিদের কলকাকলি আর কোলাহলে অন্যরকম রূপ নেয় মেলা। দুপুরের পর থেকে লোকসমাগমে কিছুটা ভাটা পড়ে। তবে বিকাল ৩টার পর সমাগম আবারও বাড়তে থাকে। আর সন্ধ্যার দিকে দৃশ্যপট বদলে যায়। স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে বইপ্রেমীদের বই কেনার মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর হয়ে ওঠে গ্রন্থমেলার ২১তম দিন। বইয়ের মানের বিষয়ে মেলা বরাবরের মতো এবারও পিছিয়ে রয়েছে। শখের লেখকের আবির্ভাব ঘটাতে গিয়ে অনেক প্রকাশকই যেনতেন বই প্রকাশ করছেন বলে অভিযোগ করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় প্রকাশক। বইয়ের মানের বিষয়ে বাংলা একাডেমি ও প্রকাশকরা সচেষ্ট হলে মেলায় মানহীন বইয়ের ছড়াছড়ি কমে যাবে বলে মনে করেন প্রতিশ্রুতিশীল লেখকরা। বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মেলায় নতুন বই এসেছে ২৪২টি। গত ২১ দিনে মোট নতুন বই প্রকাশ পেয়েছে ৩ হাজার ৬৮৪টি।

বইমেলায় নঈম নিজাম ও পীর হাবিবুর রহমানের বই : অমর একুশে বইমেলায় জিনিয়াস পাবলিকেশন্স থেকে এসেছে নঈম নিজামের নতুন উপন্যাস ‘অন্ধকারে আলোর সন্ধানে’। সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহের সঙ্গে যুবক-যুবতীর প্রণয়গাথা এই উপন্যাসের মূল উপজীব্য। অন্যদিকে একই প্রকাশনী থেকে বের হয়েছে পীর হাবিবুর রহমানের নতুন বই ‘বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা অজানা ইতিহাস’। এই বইয়ে উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধুর জীবনের এমন কিছু ঘটনা যেগুলো পাঠককে নিয়ে যাবে ইতিহাসের শেকড়ে। বই দুটির প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। অমর একুশে বইমেলার ৮ নম্বর প্যাভিলিয়নে বই দুটি পাওয়া যাচ্ছে।

মূলমঞ্চ : বিকাল ৪টায় মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শামসুজ্জামান খান সম্পাদিত ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ : বহুমাত্রিক বিশ্লেষণ’ শীর্ষক আলোচনা। এতে প্রবন্ধ পাঠ করেন মফিদুল হক। আলোচনায় অংশ নেন ড. সোনিয়া নিশাত আমিন, গোলাম কুদ্দুছ ও মামুন সিদ্দিকী। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদ।

প্রতিযোগিতার পুরস্কার : বেলা ১১টায় অমর একুশে উদযাপনের অংশ হিসেবে শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও সংগীত প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশু-কিশোরদের পুরস্কার প্রদান করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নূর। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ক-শাখায় আবদুল্লাহ আল সাদ (প্রথম), ঋষিত শীল ধৃতি (দ্বিতীয়), রুহান আবদুল্লাহ (তৃতীয়)। খ-শাখায় মুনতাকা ইসলাম (প্রথম), নুজহাত তাসনীম রূপকথা (দ্বিতীয়), এস এম আবতাহী নূর (তৃতীয়)। গ-শাখায়  নুরুল আফতাব (প্রথম) আবির রায় চৌধুরী (দ্বিতীয়), আরমান ভূইয়া অর্ক (তৃতীয়) স্থান লাভ করে।

শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতা : ক-শাখায় সুমাইতা নুসাইবা (প্রথম), ঋদ্ধ হাসান (দ্বিতীয়), আহ্নাফ বিন জামান (তৃতীয়)। খ-শাখায় যারীন সালসাবিল অর্পা (প্রথম), নওবা তাহিয়া হোসেন (দ্বিতীয়), আবদুল্লাহ আল হাসান মাহি (তৃতীয়) স্থান লাভ করে। 

শিশু-কিশোর সংগীত প্রতিযোগিতা : ক-শাখায় আফরা আদিলা রিমঝিম (প্রথম), তানজিম বিন তাজ প্রত্যয় (দ্বিতীয়), ছুওয়াইবা কবির ও সুনিপুণ বড়ুয়া চৌধুরী (তৃতীয়)। খ-শাখায় তানিশা জাহান নরিকা (প্রথম), গার্গী ঘোষ (দ্বিতীয়) এবং ত্বাবীব ফাইরুজ রোদশী (তৃতীয়) স্থান লাভ করে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর