শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:৫৬

সংবাদ সম্মেলনে আনু মুহাম্মদ

উপাচার্যদের স্বৈরাচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে গণতদন্ত কমিটি

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেছেন, দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের দুর্নীতি, নিয়োগ বাণিজ্য, স্বৈরতন্ত্র, নিপীড়নমূলক আচরণের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে শিক্ষক ও নাগরিকদের সঙ্গে নিয়ে একটি গণতদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে আসলে কী হচ্ছে, তার ওপর তদন্ত করে প্রতিবেদন জনগণের সামনে প্রকাশ করা হবে। সম্প্রতি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষককে অপসারণের নোটিস ও দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে গতকাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নেটওয়ার্কের এক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ভার্চুয়ালি আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মানস চৌধুরীর পরিচালনায় আরও যুক্ত ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ হারুন চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামিনা লুৎফা প্রমুখ। আনু মুহাম্মদ বলেন, আপাতদৃষ্টিতে দুজন শিক্ষার্থী কিংবা তিনজন শিক্ষকের ওপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আক্রমণ মনে হলেও এটি আসলে সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর আক্রমণ। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর আক্রমণ মানেই দেশের সব নাগরিকের ওপর আক্রমণ। অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ হারুন চৌধুরী বলেন, বলা হচ্ছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১২তম সিন্ডিকেটে শিক্ষকদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। আসলে তা নয়। ২১১তম সিন্ডিকেটে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, যা জরুরি ভিত্তিতে আহ্বান করা হয়। এ সিন্ডিকেট ছিল উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সংবাদ সম্মেলন থেকে চার দফা দাবি জানানো হয়। সেগুলো হলো- অবিলম্বে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের শাস্তি বাতিল, প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতিসহ সব অভিযোগের তদন্ত, অযোগ্য-দুর্নীতিবাজ উপাচার্য নিয়োগ বন্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনাবিধিতে গণতন্ত্রায়ণ ও স্বায়ত্তশাসন নিশ্চিতকরণ এবং শিক্ষার্থীদের পক্ষে দাঁড়ানোর ‘শাস্তি’ হিসেবে শিক্ষকদের ভয় দেখানো বন্ধ। এসব দাবিতে ২৮ জানুয়ারি দেশব্যাপী সব বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে শিক্ষার্থী-শিক্ষক প্রতিবাদ সমাবেশ করবে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নেটওয়ার্ক।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর