১৯ আগস্ট, ২০২১ ১৭:২৫

আজিজুর রহমানের শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে এতদূর এসেছি : পরিবেশমন্ত্রী

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

আজিজুর রহমানের শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে এতদূর এসেছি : পরিবেশমন্ত্রী

বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে কবর জিয়ারত করছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়কমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন

পরিবেশ, বন ও  জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়কমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর মৌলভীবাজারে আওয়ামী লীগের হাল ধরেছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান। তখন রাজনৈতিক শিক্ষাগুরু হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। আমার রাজনীতিক জীবনে উনার আদর্শ ও নৈতিক শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে আমি এতদূর এসেছি। 

স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বৃহস্পতিবার সকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।  

মন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের জন্য কিছু করতে হলে আমাদের আদর্শ জীবন গড়তে হবে। আদর্শ মানুষদের জীবনাদর্শ অনুসরণ করে নিজদের জীবন সাজাতে হয়। জীবনে কখনোই আদর্শ থেকে বিচ্যুত হওয়া যাবে না, তবেই মানুষ মনে রাখবে, শ্রদ্ধা করবে।

এ সময় অতিথিরা কবর জিয়ারত ও মোনাজাত করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধার প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা পরিষদ, পৌরসভা, জনপ্রতিনিধিরা, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে গুজারাই উনার বাড়িতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এসময় অতিথিরা “স্মৃতিচারণ ও জীবনপাঠ” গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষাবৃত্তি, অস্বচ্ছলদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। অতিথিরা আজিজুর রহমানের জীবনী-কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন এবং বিদেয়ী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

ফাউন্ডেশনের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা মো. জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া, পৌর মেয়র ফজলুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জামাল উদ্দিনসহ জনপ্রতিনিধি, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তা, সুধি, শুভাকাঙ্ক্ষীরা। 

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৮ আগস্ট ভোররাতে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন আজিজুর রহমান। তিনি ১৯৭০ সালের প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য, ১৯৮৬ ও ১৯৯১ সালের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, দেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন।

আজিজুর রহমান ১৯৪৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজার জেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়নের গুজারাই গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম আব্দুল ছাত্তার এবং মায়ের নাম মাহমুদা বেগম (কাঞ্চন বিবি)।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর