শিরোনাম
সোমবার, ২১ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা

সেরামের ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টি এখনো আলোচনার পর্যায়ে

-ভারতীয় হাইকমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশকে সেরামের করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টি এখনো আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। গতকাল বিকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। এর আগে যুবলীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন বিক্রম দোরাইস্বামী।

ভ্যাকসিনের উৎপাদন বাড়লে এ বিষয়ে অগ্রগতি জানা যাবে জানিয়ে বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, আমরা করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন বাড়াচ্ছি। ভারতের করোনা পরিস্থিতি এখনো বিপজ্জনক পর্যায়ে। তাই বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টি আমরা এখনো নির্দিষ্ট সময় বলতে পারছি না। সেরাম ইন্সটিটিউটের টিকার আপডেট বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা টিকা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছি। যার জন্য আরও কয়েক সপ্তাহ লাগবে। সে সময়-ই এ বিষয়ে বিবেচনা করা ভালো। এ বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে এখনো আলোচনা চলছে। যুবলীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, বাংলাদেশ সৃষ্টির ইতিহাসে যুবলীগ এক অদ্বিতীয় স্থান দখল করে আছে। যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা নিজেও একজন মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীনতা যুদ্ধের নায়ক।

 তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের মূল্যবোধ রক্ষা করে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের অফিস পরিদর্শনের জন্য আগেই আমি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম কিন্তু করোনা মহামারীর জন্য উপস্থিত হতে পারিনি। তিনি বলেন, আমাদের দ্বিপক্ষীয় বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

 যার উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশ এবং ভারতের যুবকদের মধ্যে সম্পর্ক বৃদ্ধি করা। যুবলীগের সাহায্যে তরুণদের দোরগোড়ায় পৌঁছা এবং ভারত ও বাংলাদেশের শিক্ষার্থী, তরুণ, ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংযোগ বৃদ্ধি করা ?

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, ভারত আমাদের দুঃসময়ের বন্ধু এবং সুসময়েরও সাথী। সংস্কৃতি ও শিক্ষার বিনিময়ের মাধ্যমে দুদেশের যুব সমাজের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি করা। যাতে ভবিষ্যতে বন্ধুত্ব আরও শক্তিশালী করতে পারি। বিষয়গুলো নিয়ে আজকে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে।

এ সময় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, যুবনেতা মামুনুর রশীদ, মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন), খালেক শওকত আলী, সুব্রত পাল, শেখ ফজলে নাঈম, কাজী মাজহারুল ইসলাম, সাইফুর রহমান সোহাগ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বিকাল ৩টায় ভারতের রাষ্ট্রদূত ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আসেন এবং তিনি যুবলীগ কার্যালয় ঘুরে দেখেন। এ সময় যুবলীগের পক্ষ থেকে ভারতীয় হাইকমিশনারকে করোনাকালে যুবলীগের মানবিক কার্যক্রম নিয়ে দুটি ডকুমেন্টারি দেখানো হয়।

এই বিভাগের আরও খবর