Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ মার্চ, ২০১৯ ০৪:০০
আপডেট : ১৯ মার্চ, ২০১৯ ০৪:০৮

সৌদিতে নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন

সৌদি আরব প্রতিনিধি:

সৌদিতে নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন

সৌদি আরবে যথাযথ মর্যাদা ও আনন্দঘন পরিবেশে উদযাপিত হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস।

দিবসটি উপলক্ষে রিয়াদ বাংলাদেশ দুতাবাস, জেদ্দা কনস্যুলেট, রিয়াদ এবং জেদ্দার বাংলাদেশি স্কুলসমুহ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন পৃথকভাবে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে পালন করে।

দূতাবাসের প্রথম সচিব (প্রেস) মো. ফখরুল ইসলাম পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এ উপলক্ষে পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এরপর দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় রিয়াদে বসবাসরত বিভিন্ন পেশার অভিবাসী বাংলাদেশিরা ও উপস্থিত ছিলেন। দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

দূতাবাসের অডিটোরিয়ামে এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্তে সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশ দ্রুততম সময়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছিল। রাষ্ট্রদূত সবাইকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও নীতি অনুসরণ করার আহবান জানান। তিনি বলেন, নতুন প্রজন্মের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চেতনা ছড়িয়ে দিতে হবে।

দূতাবাসের উপমিশন প্রধান ড. মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শ থেকে নতুন প্রজন্মের শিশু কিশোরদের শিক্ষা লাভ করতে হবে। তাঁর মত সৎ, নির্ভীক, চরিত্রবান হয়ে দেশের সেবা করার মানসিকতা গড়ে তুলতে হবে।

প্রথম সচিব মো. বশিরের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদান করেন দূতাবাসের মিনিষ্টার এস, এম আনিসুল হক। অনুষ্ঠানে রিয়াদস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করেন।

আলোচনা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়। এছাড়া সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে বন্দুক হামলায় নিহত বাংলাদেশী সহ সকল মুসলমানদের জন্য ও দোয়া করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের উপর নির্মিত চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এদিকে জেদ্দা কনস্যুলেটের কাউন্সেলর মুজিবুর রহমান সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল কর্তৃক কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

“ছোটদের বঙ্গবন্ধু” ও “বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ” এর উপর শিশুদের রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় পতাকা, বাংলাদেশের ফুল, ফল, শহীদ মিনার, স্মৃতিসৌধ এবং বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দৃশ্য/সৌন্দর্য্যরে উপর শিশুদের চিত্রাংকণ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

প্রতিযোগিতায় জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের বাংলা ও ইংলিশ মিডিয়ামের প্রায় ১৫০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে।

১৭ মার্চ বিকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মূল কর্মসূচির সূচনা হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে কনসাল জেনারেল এফ. এম. বোরহান উদ্দিন উপস্থিত প্রবাসীগণ ও শিশুদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য পেশ করেন।

বক্তব্য শেষে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। এরপর কনসাল জেনারেল দিবসটি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত রচনা ও চিত্রাংকণ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। সবশেষে শিশুদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, কনস্যুলেটের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারি, বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ব্যবসায়ী, সামাজিক-সাংস্কৃতির সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রী এবং অন্যান্য শ্রেণি-পেশার প্রবাসী বাঙালি উপস্থিত ছিলেন।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য