শিরোনাম
৮ ডিসেম্বর, ২০২৩ ২০:১০

নয়াদিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন

অনলাইন ডেস্ক

নয়াদিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনে বাংলাদেশের উন্নয়ন সমৃদ্ধি এবং অব্যাহত সাফল্য কামনা করে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর দীর্ঘ পরিক্রমায় সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন ইতিবাচক কর্মকাণ্ড এ অনুষ্ঠানে তুলে ধরা হয়।

দিবসটি বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় স্বাধীনতার মহান স্থপতি ও বাঙালির জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের মধ্য দিয়ে। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লে. জেনারেল ভি এম ভূবন কৃষ্ণ এভি এস এম।

দূতাবাসের হাইকমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান, দূতাবাসের সামরিক উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাফিজুর রহমান, ভারতের সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) প্রধান নিতিন আগরওয়াল, ভারতীয় সেনাবাহিনীর সাবেক প্রধানের চিফ অব আর্মি স্টাফ জেনারেল দীপক কুমার (অব.) মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী একাধিক বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন দূতাবাসের জ্যৈষ্ঠ কূটনীতিক, স্থানীয় বুদ্ধিজীবী, লেখক, সাংবাদিক, দূতাবাস কর্মকর্তাবৃন্দ ও স্টাফগণ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসের এ কর্মসূচিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের সময় হাইকমিশনার ও দূতাবাসের সামরিক উপদেষ্টা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় শহীদ সকল মুক্তিযোদ্ধাকে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন। সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হয় এবং বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্রসংশনীয় ও চ্যালেঞ্জিং বিভিন্ন তথ্যের একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।

প্রভুত উন্নতি ও অগ্রগতি অর্জন করায় বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি লে. জেনারেল ভি এম ভূবন কৃষ্ণ। তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে অনুকরণীয় বলে অবহিত করেন এবং দুই দেশ তথা বাহিনীর এই সুন্দর সম্পর্ক আরো মজবুত ও টেকসই হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন।

হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সংগ্রামে ভারতের ঐতিহাসিক ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে ভারত সরকার ও সে দেশের মানুষের ভূমিকা বাঙালি জাতি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে চিরদিন স্মরণ রাখবে। তিনি বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশকে ভারত প্রথম স্বীকৃতি দানকারী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। 

তিনি বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসনীয় ভূমিকার কথা তুলে ধরে বলেন, দেশে এবং দেশের বাইরে জাতিসংঘের সহযোগিতায় নিরলস কাজ করে সশস্ত্র বাহিনী এখন বিশ্বব্যাপী এক উজ্জল দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে । ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাফিজুর রহমান তার বক্তব্যে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার সামরিক সহযোগিতার পাশাপাশি দেশে এবং দেশের বাইরে সশস্ত্র বাহিনীর অগ্রগতি ও প্রশংসনীয় দিক তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে কেক কাটা ও আগত অতিথিদের নৈশ ভোজের আয়োজন করা হয়।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর