Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মার্চ, ২০১৯ ২৩:০২

ধাপে ধাপে এগোতে চান সাবিনারা

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ধাপে ধাপে এগোতে চান সাবিনারা
সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক সাবিনা আক্তার

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ যেন পুরুষ ফুটবলারদের দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে। গত চার আসর ধরেই বাংলাদেশ জাতীয় দল সেমিফাইনালের বাইরে, গ্রুপ পর্ব খেলেই বিদায়। এই লজ্জার অবসান কবে ঘটবে বলা মুশকিল। নারী ফুটবলারদের বেলায় আবার ভিন্ন চেহারা। গতবার প্রথম নারী সাফ সিনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে গ্রুপ পর্ব ও সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষদের উড়িয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ নারী জাতীয় দল। ফাইনালে দুর্ভাগ্যক্রমে ভারতের কাছে হেরে যায় সাবিনারা। এখানে অবশ্য বিতর্কিত রেফারিংকেও দায়ী করা যায়।

দেখতে দেখতে আরেকটি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ এসে গেল। টুর্নামেন্ট খেলতে আজ সকালেই নেপালের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ছে নারী দল। পুরুষরা ব্যর্থ হলেও মেয়েরা একের পর এক শিরোপা জিতে লাল-সবুজের পতাকা উড়াচ্ছে। সপ্তাহ যায়নি, মিয়ানমারের মাটিতে ফিলিপাইনকে বিধ্বস্ত করেও শক্তিশালী মিয়ানমারকে হারিয়ে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নিয়েছে। সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্টে সেরা তিনে থাকলেও বাংলাদেশের মেয়েরা স্বপ্নের অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপে খেলতে পারবে। নারী ফুটবলাররা দুর্বার গতিতে এগুচ্ছে। জুনিয়র সাফে চ্যাম্পিয়ন ও মূল সাফেও রানার্সআপ হয়েছে। সেখানে তো এবার ফুটবলপ্রেমীরা শিরোপার স্বপ্ন দেখতেই পারে। গতকাল ঢাকা ছাড়ার আগে নারী দল বাফুফে ভবনে সংবাদ সম্মেলন করেছে। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছিল শিরোপার। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন ও অধিনায়ক সাবিনা আক্তার অভিন্ন সুরেই বলেছেন, ভালো খেলার লক্ষ্যেই আমরা মাঠে নামব। কিন্তু শিরোপা জিতবোই এই প্রতিশ্রুতি দিতে পারব না। কোচ ছোটন বলেন, মেয়েরা ধারাবাহিক ভালো করছে। তাই তাদের ওপর প্রত্যাশাটা বেশি। হ্যাঁ, যে কোনো টুর্নামেন্টে আমাদের মেয়েরা শিরোপা জেতার সামর্থ্য রাখে। নেপালের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপও এর বাইরে নয়। তবে আমরা এগুতে চাই ধাপে ধাপে। বাংলাদেশের প্রথম টার্গেট সেমিফাইনাল এরপর ফাইনাল। আর ফাইনাল ম্যাচেইতো শিরোপার।

ছোটন বলেন, বাস্তবতার কথা চিন্তা করেই আমি এসব ব্যাখ্যা দিচ্ছি। এখানে আবেগের জায়গা নেই। আমাদের গ্রুপে রয়েছে নেপাল ও ভুটান। নেপাল খেলবে নিজ মাঠ ও সমর্থনে। ভুটানকেও হালকা চোখে দেখা ঠিক হবে না। তাই প্রাথমিকভাবে আমাদের টার্গেট গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে সেমিতে ওঠা। ‘বি’ গ্রুপে ভারত চ্যাম্পিয়ন হবে ধরেই নিতে পারি। আমরা যদি সেমিতে যাই তাহলে কার বিপক্ষে খেলব নিশ্চিত নয়। এসব বাস্তবতা দেখে শিরোপার প্রতিশ্রুতি দেই কিভাবে? তবে এতটুকু বলতে পারি মেয়েরা দেশে-বিদেশে অনেক ম্যাচ খেলেছে। অনুশীলনেই আছে। ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে সাফল্য আসবেই। সাবিনা আক্তার বাংলাদেশের তারকা মহিলা ফুটবলার। মালদ্বীপ ও ভারত লিগে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। সাবিনার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ এবার সাফে লড়বে। তার মুখেও একই সুর। ‘লক্ষ্য অবশ্যই শিরোপা। সেই সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। তবে আমরা ধাপে ধাপে এগোতে চাই। নেপাল এমনিতে শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। তারপর আবার নিজ মাটি ও দর্শকদের সামনে খেলবে। ভুটানও একেবারে দুর্বল নয়। সুতরাং সেমিফাইনাল নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত শিরোপার কথাটা কি বলা ঠিক হবে?’


আপনার মন্তব্য