শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:৫৭

রক্ষণের ভুলে আবাহনীর ড্র

রাশেদুর রহমান

রক্ষণের ভুলে আবাহনীর ড্র

মিনার্ভা পাঞ্জাব যেন একদল হায়েনা। শিকারের  পেছনে ছুটে চলেছে সংঘবদ্ধ হয়ে। দুরন্ত গতিতে আক্রমণের পর আক্রমণে শিকারকে ক্লান্ত করে তোলাই তাদের স্ট্র্যাটেজি। প্রতিপক্ষের দুর্বলতা ভালোভাবেই জানা ছিল দলটার। আবাহনী রক্ষণভাগের ফাঁক-ফোকরগুলো আগেই খুঁজে বের করেছিলেন মিনার্ভা পাঞ্জাব কোচ শচীন তানাজি। সেই ফাঁক-ফোকর গলে ঠিকই দুই দুবার এগিয়ে যায় ২০১৭-১৮ মৌসুমে আই লিগ চ্যাম্পিয়নরা। অবশ্য রক্ষণের ভুল শোধরে দিয়েছে আবাহনীর আক্রমণভাগ। দুই দুবার পিছিয়ে পরেও নাবিব নেওয়াজ জীবন আর সানডে চিজোবার গোলে সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে আকাশি-নীল জার্সিধারীরা।

আই লিগের সঙ্গে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের কোনো তুলনাই হতে পারে না। পেশাদার ফুটবল খেলে ভারতীয়রা র‌্যাঙ্কিংয়েই কেবল উন্নতি করেনি, পাশাপাশি বিশ্বমানের ফুটবল-দক্ষতাও অর্জন করেছে। এর প্রমাণ তারা গত এশিয়ান কাপে দিয়েছে। সেই ভারতীয় লিগ চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভার বিপক্ষে খেলতে নামার আগে খুবই আত্মœবিশ্বাসী ছিল আবাহনী। এর অন্যতম কারণ, মিনার্ভার বর্তমান পারফরম্যান্স। এক বছর আগে চ্যাম্পিয়ন হলেও এবারের মৌসুমে তারা আই লিগে তলানিতে। রেলিগেশনের কবল থেকে কোনোরকমে বেঁচে গিয়েছে দলটা। নানান ঝড়-ঝাপ্টায় মিনার্ভার শক্তিমত্তা শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু দুর্বল প্রতিপক্ষের সঙ্গেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারল না আবাহনী। প্রতিপক্ষের স্ট্র্যাটেজিক অবস্থানেই পিছিয়ে পড়েছে তারা। অবশ্য আকাশি-নীল জার্সিধারীদের কোচ মারিও লেমোস জানালেন, ‘রক্ষণভাগ নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই বাদশা ইনজুরিতে আক্রান্ত হলে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা যায়নি।’ জোড়াতালি দেওয়া রক্ষণভাগের উপর বর্তায় আবাহনীর ব্যর্থতা। বিশেষ করে মিনার্ভার দ্বিতীয় গোলটা তো রক্ষণের ভুলেই হয়েছে। রায়হানের ভুল পাসে বল পেয়েই দ্বিতীয়বারের মতো মিনার্ভাকে এগিয়ে দিয়েছিলেন বদলি নামা শ্রেয়াস গোপালান।

আবাহনী জয়ের আশায় মাঠে নেমেছিল। মিনার্ভার আশা ছিল আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে প্রতিপক্ষকে চমকে দেওয়া। মিনার্ভা তাদের পরিকল্পনা ঠিকই বাস্তবায়ন করতে পেরেছে।


আপনার মন্তব্য