শিরোনাম
বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা
মূল রচনা

ঋতু পরিবর্তনে ত্বক

ঋতু পরিবর্তনে ত্বক

♦ মডেল : নীহারিকা হায়দার ♦ মেকওভার : জাকির হোসাইন জয় ♦ ছবি : শেখ সাদি

সৌন্দর্য ধরে রাখতে সব ঋতুর উপযোগী কোনো আদর্শ উপায় নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা ভিন্ন ভিন্ন ঋতুতে আলাদাভাবে রূপচর্চার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। ঋতুভেদে ত্বকের পরিচর্যাও আলাদা হয়ে থাকে। তবে কেমন হবে ঋতু পরিবর্তনে ত্বকের পরিচর্যা!  বিস্তারিত তুলে ধরা হলো- আজকের ফিচারে...

প্রকৃতিতে শরতের ছোঁয়া। বদলে যাচ্ছে প্রকৃতির রূপ! দিনে খানিকটা গরম অনুভূত হলেও রাত নামলেই বাড়ে ঠান্ডা। উপরি হিসেবে হালকা বৃষ্টি। আবহাওয়া বেশ অনুকূলে। আবহাওয়া হিসেবে শরৎ কিন্তু দারুণ উপভোগের সময়। আর শরৎকে বলা হয় বছরের ক্রান্তিকাল। গ্রীষ্মের পর এবং শীতের আগে ত্বকের বাড়তি পরিচর্যা ও বিশেষ সংরক্ষণ ব্যবস্থা প্রয়োজন।

 

ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকচর্চায় পরিবর্তন আনার বিষয়টি অনেকেই অবহেলা করেন। কিন্তু এ কথা ভুললে চলবে না যে, আবহাওয়ার পরিবর্তনে ত্বকের স্বাভাবিকতা পাল্টায়। দিনে সূর্যের তাপের কারণে ত্বকে নানা সমস্যা দেখা দেয়। আর শীতকালীন ঠান্ডাও তো ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই, শরৎকাল ত্বকের জন্য সেরা সময়। কারণ, এ ঋতুতে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা সহনীয় থাকে। তবে শরৎ বেলায় ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে ভিটামিন-সির ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। খাদ্যের এই উপাদান মানুষের বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধেও অত্যন্ত সহায়ক। যেহেতু প্রকৃতির বদলে ত্বকেও আসে পরিবর্তন। তাই এ সময় পরিচর্যায়ও আনতে হবে ভিন্নতা, চাই পরিবর্তন।

 

পরিচ্ছন্ন থাকুন

সারা দিনের ঘাম, ধুলাবালি ও ময়লা পরিষ্কার না করলে ত্বকের রোমকূপে প্রদাহ এবং খোসপাঁচড়া সৃষ্টি হতে পারে। তাই এ সময় পরিষ্কারক হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন ক্লিনজিং মিল্ক। সম্ভব হলে অ্যালোভেরা ও গোলাপজল মিশিয়ে ক্লিনজার হিসেবে ব্যবহার করুন। চুলকানি, ব্রণ, র‌্যাশ, ঘামাচির সমস্যা কমে যাবে। ত্বক পরিষ্কারের জন্য সাধারণ কাপড় নয়; পরিষ্কার, নরম ও আর্দ্র কাপড় ব্যবহার করুন।

 

ধরে রাখুন আর্দ্রতা

শরতে যেহেতু আবহাওয়া আর্দ্র থাকে, তাই অনেকে ভাবেন ত্বকে ময়েশ্চারাইজারের প্রয়োজন নেই। তবে ভুললে চলবে না যে, এই সময় ত্বক শীতের জন্য প্রস্তুত হয়। এ কারণে ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখা জরুরি। তাই এ সময় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। সম্ভব হলে গোসলের পানিতে কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন ঢেলে দিন, আর সেই পানিতে গোসল সেরে নিন। ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে। ত্বকের বাড়তি আর্দ্রতার জন্য বিশেষ ক্রিম ব্যবহার করা ভালো।

 

সানস্ক্রিন ব্যবহার

শরতে রোদের তাপ কম থাকে। তাই বলে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে ভুলবেন না। বাইরে বের হওয়ার অন্তত ২০ মিনিট আগে সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন। তবে তা ত্বকের ধরন অনুযায়ী।

 

নিয়মমাফিক স্ক্রাবিং

স্ক্রাবিং ত্বক থেকে মৃত কোষ দূর করে। টকদই আর ওটমিল দিয়ে স্ক্রাবার তৈরি করতে পারেন। যাদের ত্বক তৈলাক্ত, তারা টকদইয়ের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন। শুষ্ক ত্বকে কফি বা অলিভ অয়েলের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে বা চালের গুঁড়া, মুলতানি মাটি এগুলো মিশিয়েও স্ক্রাবার তৈরি করতে পারেন। সপ্তাহে দুই দিন মুখ ও শরীরে ব্যবহার করুন।

 

ঠোঁটের যত্ন নিন

শরতে মাঝে ঘটে শীতের আগমন। তাই শীত শুরু হওয়ার আগে ঠোঁটের আর্দ্রতা ধরে রাখতে ক্রিম ব্যবহার করুন। এর মাধ্যমে ঠোঁটকে খসখসে হওয়া ও ফেটে যাওয়া থেকে রক্ষা করবে।

 

শরীরেরও যত্ন নিন

কেবল মুখের ত্বকের যত্ন নিলেই হবে না। শরীরের সব জায়গায় সমান যত্ন নিতে হবে। বিশেষ করে ঘাড় ও গলায় সূর্যের আলোর প্রভাব বেশি পড়ে, একই সঙ্গে এই জায়গায় ময়লাও অনেক বেশি হয়। তাই এসব জায়গায় ঠিকভাবে যত্ন নিতে হবে। এ ছাড়া শরীরের অবহেলিত অংশ যেমন- হাতের কনুই, পায়ের গোড়ালি। এগুলোর যত্ন আসলে তেমন করে হয় না। আর এখানে মৃতকোষ তৈরি করার ক্ষমতাটাও বেশি। তাই এসব অংশ ঘষে পরিষ্কার করতে হবে। পরিষ্কারের পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন, সেটি ত্বকে সুন্দরভাবে শোষণ হবে। ত্বক থাকবে কোমল ও মসৃণ।

 

সবুজ সবজি ও মৌসুমি ফল

ত্বকের পরিচর্যায় এ সময় প্রচুর পানি পানের পাশাপাশি মৌসুমি যে ফল ও সবজি থাকে, সেগুলো বেশি বেশি গ্রহণ করুন। যেমন ঝিঙ্গে, পটোল, করলা, বরবটি- এগুলোতে প্রচুর পরিমাণ বায়ো ফ্লেবোনয়েড থাকে, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, আঁশ থাকে। এরপর রয়েছে পালংশাক। নানা ধরনের বাদাম, বীজ।  সূর্যমুখীর বীজ, মিষ্টিকুমড়ার বীজ।

এ ছাড়াও নিয়মিত প্রয়োজনীয় ঘুম, নিয়মিত গোসল, সুস্থ মানসিক অবস্থা ইত্যাদিও ত্বকের পরিচর্যায়  বিভিন্নভাবে সাহায্য করে থাকে।

 

লেখা : ফেরদৌস আরা

এই রকম আরও টপিক