২২ অক্টোবর, ২০২১ ০৮:৩৮

বরই বাগানে মধু আহরণ

দিনাজপুর প্রতিনিধি

বরই বাগানে মধু আহরণ

ছবি- বাংলাদেশ প্রতিদিন।

মৌ বাক্স বসিয়ে সরিষা, লিচু, কালিজিরা, মিষ্টিকুমড়া থেকে মধু আহরণ করা গেলেও এবার বরই বাগান থেকে মধু সংগ্রহ করে তাক লাগিয়েছেন মৌ খামারি মোসাদ্দেক হোসেন। ২ হাজার গাছের বরই বাগানে ৬০টি মৌ বাক্স থেকে ১০০ কেজি বরই ফুলের মধু আশা করছেন তিনি।

 দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকায় ছোট বড় অনেক বরই বাগানে বিভিন্ন জাতের বরই চাষ করছেন চাষিরা। এসব বরই বাগানে সেপ্টেম্বরের শেষ থেকে অক্টোবর জুড়ে বর্ষাপরবর্তী শরৎ মৌসুমে অসংখ্য ফুল আসে। আধুনিকতার সঙ্গে মৌ চাষেও এসেছে বিজ্ঞানের উৎকর্ষতা। অ্যাপিস ম্যালিফেরা প্রজাতির মৌমাছি বাক্সে পালন করে মৌ চাষ করছেন আধুনিক খামারিরা। তেমনই একজন মৌ পালক মোসাদ্দেক হোসেন। 

বছরে মধু উৎপাদন করেন প্রায় ৩ টন। সরিষা, লিচু, কালিজিরা, মিষ্টিকুমড়া থেকে মধু আহরণ করলেও এবার তিনি মধু উৎপাদনের জন্য বরই বাগানে বসিয়েছেন মৌ বাক্স। দিনাজপুর সদরের উত্তর শিবপুর ও রানীগঞ্জ হাট এলাকায় চাষি আনিসুর রহমান ২ হাজার গাছের বরই বাগানে মৌ বাক্স বসিয়ে সাফল্য পেয়েছেন। অতীতে মৌ খামারিরা বরই ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করতে না পারলেও তিনি বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ও উদ্ভিদতাত্ত্বিক গবেষণার মাধ্যমে বরই ফুলের মধু পেয়েছেন।

বরই ফুল থেকে মৌমাছি মধু আহরণের ফলে ফুলে ফুলে পরাগায়ন হয় এবং শতকরা ২০-৩০ ভাগ বেশি ফলনও হয়। একদিকে মধু সংগ্রহ করে লাভবান অন্যদিকে মৌ মাছির মাধ্যমে ফুলে ফুলে পরাগায়ন ঘটায় বরই বাগানের ভালো ফলনের আশা। তাই বরই বাগানের চাষি ও মৌ চাষি উভয়েই লাভবান হচ্ছেন। 

উদ্ভিদবিজ্ঞানে মাস্টার্স শেষ করা মৌ খামারি মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, ‘সাধারণত অ্যাপিস ম্যালিফেরা বরই ফুলের নেকটার সংগ্রহ করে না। কিন্তু আমি বরই ফুলের পাতা ও নির্যাস করে তাদের ফিডিং দিয়ে অভ্যাস করিয়েছি। তারা সে ঘ্রাণের প্রতি অভ্যস্ত হওয়ায় মৌ বাক্স স্থাপনের পর মৌমাছিরা ফুল থেকে নেকটার সংগ্রহ করছে।’ 

তিনি বলেন, ‘বাউ ও আপেল কুল বা কাশ্মীরি বরই ফুলে নেকটার কম থাকায় মৌমাছি খুব বেশি নেকটার পায় না কিন্তু সিডল্যাস বরই জাতে প্রচুর নেকটার থাকায় বাগানটি থেকে প্রায় ৩ মণ মধু হবে আশা করছি।’ 

মৌ পালন কর্মসূচি বিসিক দিনাজপুরের মৌ পালন কারিগরি কর্মকর্তা রুহুল আমীন বলেন, ‘মোসাদ্দেকের মৌ খামার পরিদর্শন করেছি। তার খামারে প্রচুর বরই মধু সঞ্চয় করেছে। তার খামার বর্ষা-পরবর্তী প্রাকৃতিক খাদ্য পাওয়ায় সমৃদ্ধ হয়ে উঠছে। তিনি বিজ্ঞানের ছাত্র হওয়ায় দ্রুত নতুন নতুন কৌশলে মৌ পালনে সাফল্য অর্জন করেছেন।’


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর