২৩ মার্চ, ২০২৪ ১৫:১৮

উপজেলা পরিষদে ফুল বাগান

দিনাজপুর প্রতিনিধি

উপজেলা পরিষদে ফুল বাগান

নয়নাভিরাম ও নান্দনিক ফুল বাগানে সেজেছে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর। রাতের শিশিরে সিক্ত হয়ে ফুল ভোরের আলোতে তার সৌন্দর্য্য সবার নিকট বিকশিত করছে। বাগানের সাজানো-গোছানো ফুলে ফুলে ছুটছে প্রজাপতির দল। চারিদিকে বিচিত্র রকমের দেশি-বিদেশি ফুল। কাজে এসে কেউ কেউ থমকে দাঁড়িয়ে উপভোগ করছেন ফুলের নান্দনিক সৌন্দর্য্য। কেউবা মুঠোফোনে বাগানের সৌন্দর্য্য ধারণ করে স্মৃতিময় করে রাখতে ফ্রেমবন্দি করছেন। ফুল দর্শনেই মানুষের হৃদয় ভালো হয়ে যায়। এমনই দৃশ্য চোখে পড়বে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে। উপজেলা পরিষদের ফুলের সৌরভে মুগ্ধ সেবা গ্রহীতারা। 

খানসামা উপজেলা কমপ্লেক্স ভবনে প্রবেশেই চোখে পড়বে এই নান্দনিক ফুল বাগান। বসন্তের আগমনে বাগানে ফুটেছে হরেকরকম ফুল। বাগানটিতে সাদা, কালো, হলুদ, সিঁদুরসহ ১৮ রঙের গোলাপ ফুল রয়েছে। এছাড়াও বাগানটিতে পাউডার পপ, সেলভিয়া, লাল হেনা, জবা, ডালিয়া, বেলি, টেকনা, নীলকন্ঠ, বোতামপাম, টিকমা, মাইক ফউল, গাদাসহ ভিন্ন প্রজাতির ফুলগাছ। 

এ ফুল বাগানটি গড়ে তুলে উপজেলা পরিষদের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন। ইতোমধ্যে এ বাগান ঘুরে মুগ্ধ হয়েছেন বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার হাবিবুর রহমানসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।
উপজেলা পরিষদে আসা সেবাগ্রহীতা মো.সোহেল আরমান বলেন, এখানে সকালবেলা এসে ফুলের বাগান দেখলে হৃদয় জুড়িয়ে যায়। অফিস চত্বরে সাধারণত এরকম মনোরম ফুল বাগান খুব কমই দেখা যায়। 

দর্শণার্থী লায়লা খাতুন বলেন, আমার শিশুকে সঙ্গে নিয়ে শিশু পার্কে ঘুরতে এসেছি। ফুল বাগান দেখে দাঁড়ালাম। ফুল বাগানটি বেশ সুন্দর ও ভালো লাগল। তাই মোবাইল ফোনে কয়েকটি ছবি তুলে নিলাম। 
খানসামা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন বলেন, উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণের সম্মুখে ও দু’পাশে বিভিন্ন প্রজাতির ফুলগাছ লাগিয়ে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদে আগত সেবাগ্রহীতারাও ফুলের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারছে। সময় পেলেই এ ফুল বাগানের পরিচর্যা করে থাকি। ভালো লাগে।

বিডি প্রতিদিন/এএ

সর্বশেষ খবর