Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জুন, ২০১৯ ১৭:১১

বরিশাল বিভাগে ২২ লক্ষ শিশু খাবে ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:

বরিশাল বিভাগে ২২ লক্ষ শিশু খাবে ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল

বরিশাল বিভাগের ৬ জেলা এবং সিটি করপোরেশন এলাকায় এবার ২২ লাখ ৫৪ হাজার ৭৮ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। 

এর মধ্যে বরিশাল নগরী ও জেলায় ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৪শ’ ৬৩জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ উপলক্ষ্যে নগরীতে পৃথক দুটি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 

বরিশাল সিটি করপোরেশনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, নগরীতে মোট ৪৯ হাজার ৫শ’ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সের ৫ হাজার ২০জন শিশুকে এবং ১২ থেকৈ ৫৯ মাসের ৪৪ হাজার ৪শ’ ৮০ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। নগরীতে মোট ২শ’ ২০টি কেন্দ্রে ৫শ’ জন স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত করা হয়েছে। নগর ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খায়রুল হাসান, সচিব মো. ইসরাইল হোসেন ও প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মতিউর রহমান বক্তব্য রাখেন। 

অপরদিকে বরিশাল জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন ড. মো. মনোয়ার হোসেন। 

তিনি বলেন, এবার জেলায় ৩ লাখ ৬ হাজার ৯শ’ ৬৩জন শিশু ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাসের ৩১ হাজার ৮শ’ ৬৭ জন এবং ১২ থেকে ৫৯ মাসের ২ লাখ ৭৫ হাজার ৯৬ জন শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুুল খাওয়ানো হবে। জেলায় ২ হাজার ৫০ টিকাদান কেন্দ্র এবং ৪ হাজার ১শ’ স্বেচ্ছাসেবক এই কাজে নিয়োজিত করা হয়েছে। 

ভিটামিন এ শিশুর স্বাভাবিক দৃষ্টি বজায় রাখে। ফলে রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়। রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং শিশু মৃত্যুর  ঝূঁকি কমায়। তাই ২২ জুন সকল শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

এবার বরিশালে সকল শিশুকে নীল রংয়ের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সের শিশুকে ১টি করে নীল রংয়ের এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সের শিশুকে খাওয়ানো হবে নীল রংয়ের ভিটামিন এ ক্যাপসুল। 

স্বাস্থ্য বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয় সূত্র জানায়, বরিশাল বিভাগের ৬ জেলা এবং সিটি এলাকায় এবার ২২ লাখ ৫৪ হাজার ৭৮জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। এরমধ্যে ৬ থেকে ১১ মাসের ১২ লাখ ৬ হাজার ৭শ’ ৫৭জন এবং ১২ থেকে ৫৯ মাসের ১০ লাখ ৪৭ হাজার ৩শ’ ২১জন শিশু রয়েছে।

বিভাগে মোট ৮ হাজার ৫শ’ ৯০টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ১৭ হাজার ৪শ’ ৪৯জন স্বেচ্ছাসেবক এই ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।  

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য