Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০১

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সরগরম রাজনীতি

এখনো সক্রিয় নয় ছাত্রদল

মর্তুজা নুর, রাবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সরগরম রাজনীতি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (রাকসু) নির্বাচনকে সামনে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে জমে উঠেছে ছাত্র রাজনীতি। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের একক আধিপত্য থাকলেও রাকসু নির্বাচনকে ঘিরে সক্রিয় হয়ে ওঠছে অন্য ছাত্র সংগঠনগুলোও। দীর্ঘদিন যেসব ছাত্র সংগঠনের কমিটি ও কার্যক্রম ছিল না তারাও কমিটি দিয়ে কার্যক্রম শুরু করছে। ছাত্র নেতারা বলছেন, শিক্ষার্থীদের দাবি-দাওয়া আদায়ে পদক্ষেপ নেওয়ার পথে হাঁটছে ছাত্র সংগঠনগুলো। নিয়ম করে বসছে দলীয় টেন্টে। সম্ভাব্য প্রার্থীদের খোঁজে দলের নীতিনির্ধারকরা নেতাদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে। সব মিলিয়ে মতিহারের সবুজ চত্বরে এখন চাঙা হয়ে ওঠছে ছাত্ররাজনীতি। ছাত্রলীগের পাশাপাশি অন্য ছাত্র সংগঠনের কার্যক্রমও চলছে নির্বিঘেœ। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ছাত্রলীগের পাশাপাশি ক্যাম্পাসে এখন তৎপর প্রজন্ম লীগ নামের ছাত্র সংগঠনটি। এতদিন সংগঠনের শুধু বিশ্ববিদ্যালয় শাখার কমিটি থাকলেও বর্তমানে তারা বিভিন্ন হল ও অনুষদ কমিটি দেওয়া শুরু করেছে। ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন নামের কোনো ছাত্র সংগঠন ক্যাম্পাসে না থাকলেও নির্বাচনকে সামনে রেখে তারাও এখন বেশ তৎপর। এর পাশপাশি প্রগতিশীল ছাত্রজোটও কর্মী সংখ্যা বাড়াতে কাজ করে যাচ্ছে। একই অবস্থানে রয়েছে রাকসু আন্দোলন মঞ্চ নামের একটি সংগঠনও। তারাও নিজেদের কর্মী বাড়াতে এবং নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে একাধিক ঘরোয়া মিটিং করেছে। তবে এই ছাত্র সংগঠনগুলো নির্বাচন ঘিরে তৎপর হলেও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের তেমন কোনো কার্যক্রম ক্যাম্পাসে চোখে পড়ছে না। তবে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান জানিয়েছেন, কয়েকদিন পরেই প্রশাসনের সঙ্গে সংলাপে বসবেন তারা। সংলাপ শেষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ওপর আস্থা রেখে তারাও ক্যাম্পাসে বিভিন্ন কর্মসূচি দেওয়া শুরু করবে। রাকসু আন্দোলন মঞ্চের আহ্বায়ক আবদুল মজিদ অন্তর বলেন, এক বছর আগেও শিক্ষার্থী এবং অধিকাংশ সংগঠনের মধ্যে রাকসু বিষয়ে খুব বেশি তৎপরতা ছিল না। তখন থেকে আমরা রাকসু আন্দোলন মঞ্চের ব্যানারে মাঠে নেমেছিলাম। ক্রমে সেটা জোরালো হয়েছে। ডাকসু ভোটের তোড়জোড়ে রাকসু ভোটের প্রক্রিয়া শুরু হয়। এখন অনেক সংগঠন কমিটি করছে, তৎপরতা দেখাচ্ছে। এটা একদিক থেকে ইতিবাচক। ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, সব ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণে রাকসু নির্বাচন হোক এটা আমরা চাই। তাই অন্য ছাত্র সংগঠনগুলো তাদের কার্যক্রম চালালে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। আমি যদ্দূর জানি ও দেখছি ক্যাম্পাসের সব ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠন নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী কোনো ছাত্র সংগঠন যেন ক্যাম্পাসে সক্রিয় না থাকে এবং নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারে সে বিষয়ে আমাদের সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর