শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ মে, ২০১৯ ২২:৫৩

বিশুদ্ধ পানি সংকটে বরিশাল

রাহাত খান, বরিশাল

বিশুদ্ধ পানি সংকটে বরিশাল
গভীর নলকূপে পর্যাপ্ত পানি না ওঠায় সিটি করপোরেশনের গাড়ির পানিই এখন অনেকের ভরসা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

বিশুদ্ধ পানির ভয়াবহ সংকট বরিশাল নগরীতে। সিটি করপোরেশন থেকে অপ্রতুল সরবরাহ এবং গভীর নলকূপে পর্যাপ্ত পানি না ওঠায় সৃষ্টি হয়েছে এই অবস্থার। অভিজাত বিভিন্ন এলাকায় ব্যক্তিগত টিউবওয়েল থেকে পানির চাহিদা মেটানো হলেও বিশেষ করে বস্তি এলাকায় চলছে সুপেয় পানির হাহাকার। সংকট মেটাতে বিভিন্ন বস্তি এলাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় সুপেয় পানি সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছে সিটি করপোরেশন। এদিকে সাময়িক বিশুদ্ধ পানির সংকটের জন্য নগরবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিসিসি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ। বিসিসি সূত্র জানায়, নগরীতে ৭ লক্ষাধিক মানুষের বসবাস। এর মধ্যে গৃহ (বসতি) রয়েছে ৫২ হাজার। কিন্তু বিসিসির পানির গ্রাহক আছেন ২২ হাজার। বাকি              গ্রাহকরা ব্যক্তিগত টিউবওয়েলসহ বিভিন্ন উৎস থেকে বিশুদ্ধ পানির চাহিদা মিটিয়ে থাকেন। বিসিসি সূত্র জানায়, নগরবাসীর পানির চাহিদা মেটাতে ৩৬টি পাম্প হাউস রয়েছে। এর মধ্যে ৪টি পাম্প অচল। বাকি ৩২টি পাম্প এবং বিসিসির স্থাপন করা ১ হাজার ৩২০টি টিউবওয়েল দিয়ে দৈনিক ২ কোটি ৯০ লাখ লিটার বিশুদ্ধ পানির সরবরাহ করা হয়। কিন্তু সিটি করপোরেশনের হিসাবেই নগরবাসীর দৈনন্দিন পানির চাহিদা ৫ কোটি ৫০ লাখ লিটার। সে হিসাবে প্রতিদিন পানির ঘাটতি ২ কোটি ৬০ লাখ লিটার। 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নগরীর বিভিন্ন বস্তি (কলোনি) প্রধান এবং বর্ধিত এলাকায় সুপেয় পানির সংকট সবচেয়ে বেশি। সিটি করপোরেশন থেকে পানি সরবরাহের ব্যবস্থা না থাকায় টিউবওয়েল স্থাপনের শত শত আবেদন পড়েছে নগর ভবনে। তবে টিউবওয়েল স্থাপনে সিটি করপোরেশনের রাজস্ব ফি বেশি থাকায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন অনেকে।

সিটি করপোরেশনের পানি শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবির জানান, বিকল পাম্পগুলো সচল করে পানি উৎপাদন বাড়ানোর চেষ্টা চলছে।

সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, বিশুদ্ধ পানি সংকট এক দিনে নয়, বিগত দিনের ধারাবাহিকতায় সংকট সৃষ্টি হয়েছে। তবে সংকট সমাধানে নানামুখী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর