শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ জুন, ২০১৯ ২৩:০৫

চট্টগ্রামে দেড় শতাধিক স্পটে ‘চাঁদাবাজি’

মালিক শ্রমিকদের আন্দোলনের হুমকি

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম জেলার ১৬ উপজেলার দেড় শতাধিক স্পটে চলছে ওপেন সিক্রেট চাঁদাবাজি। কখনো পুলিশ, দলীয় নেতা-কর্মী কিংবা বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নামে বিভিন্ন পরিবহন থেকে প্রতিদিন আদায় করা হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। পুলিশ ও বিভিন্ন সংগঠনের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ চট্টগ্রামের পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। এ চাঁদাবাজির প্রতিবাদে আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে তারা।

চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, ‘চাঁদাবাজির বিষয়ে পুলিশের অবস্থান জিরো টলারেন্স। কারও বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া গেলে সঙ্গে সঙ্গে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বৃহত্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ সভাপতি মনজুর আলম মঞ্জু বলেন, ‘পরিবহন সেক্টরে চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ মালিক-শ্রমিকরা। চাঁদাবাজি ঠেকাতে বৃহত্তর চট্টগ্রাম বিভাগের ২২টি সংগঠন নিয়ে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ গঠন করা হয়েছে। চাঁদাবাজি বন্ধ না হলে আমরা কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করব।’ চট্টগ্রাম জেলার যে সব উপজেলায় সবচেয়ে বেশি চাঁদার স্পট রয়েছে তার মধ্যে সীতাকু-, মিরসরাই, হাটহাজারী, রাঙ্গুনীয়া, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, ফটিকছড়ি, বাঁশখালী, আনোয়ারা এবং পটিয়া অন্যতম। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, চট্টগ্রামের ১৬ উপজেলার কমপক্ষে দেড় শতাধিক স্পটে বিভিন্ন পরিবহন থেকে চাঁদা আদায় করা হয়। প্রতিদিন সর্বনিম্ন ২০ টাকা থেকে মাসিক সর্বোচ্চ সাড়ে তিন হাজার টাকা হাজার করে একেকটি গাড়ি থেকে নেওয়া হচ্ছে।

পরিবহন সেক্টরে এ চাঁদাবাজির নেপথ্যে রয়েছে পুলিশ, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের নেতা, মালিক সমিতি, শ্রমিক ইউনিয়ন এবং ক্ষমতাসীন দলের ভূঁইফোড় কিছু সংগঠন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর