Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:১৯

খুলনা

অবাধে বিক্রি হচ্ছে মরফিন-প্যাথেডিন

নজরদারি বৃদ্ধির নির্দেশনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

অবাধে বিক্রি হচ্ছে মরফিন-প্যাথেডিন

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের লাইসেন্স ছাড়াই খুলনার অধিকাংশ বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্যাথেডিন, মরফিনের ব্যবহার চলছে। এতে অননুমোদিত ড্রাগের অবৈধ হস্তান্তর, কালোবাজারে বিক্রিসহ অপব্যবহার বাড়ছে। গতকাল জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরকে এ বিষয়ে নজরদারি বৃদ্ধির নির্দেশনা দেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। জানা যায়, মহানগর ও জেলায় বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকের সংখ্যা শতাধিক। মহানগরীতে ৬০টির বেশি ক্লিনিক রয়েছে যারা অপারেশন করে। তথ্য অনুযায়ী, খুলনায় ৩৩টি ফার্মেসি ও সরকারি-বেসরকারি ২০টি হাসপাতাল ক্লিনিকের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের লাইসেন্স আছে। যা মোট সংখ্যার  থেকে ২০ শতাংশের কম। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর খুলনার উপ-পরিচালক মো. রাশেদুজ্জামান বলেন, সাধারণত: অপারেশনে প্যাথেড্রিন ও হার্টের রোগীদের জন্য মরফিন ব্যবহৃত হয়। আমরা প্যাথেড্রিন-মরফিন বিক্রির লাইসেন্স দেই, তবে তা তদারকি করে অন্য সংস্থা।

এদিকে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় খুলনার বেসরকারি ক্লিনিক ও ফার্মেসির মাধ্যমে মরফিন, প্যাথেড্রিনের অবৈধ হস্তান্তর ও ব্যবহার প্রতিরোধে নজরদারি বৃদ্ধির নির্দেশনা দেওয়া হয়। পাশাপাশি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সোর্সের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় ৭ জুলাই স্থানীয় পত্রিকার রিপোর্টার আব্দুল জলিলকে সাজানোর মামলায় ফাঁসানোর ঘটনায় তদন্ত কমিটি করা হয়। সভায় জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির উপদেষ্টা ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ বলেন, খুলনায় মাদক প্রতিরোধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি মাদকের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে সম্পর্ক না রাখতে পরামর্শ দেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর