Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:৫৫

উপাচার্যসহ দুই শিক্ষকের পদত্যাগ দাবিতে ঢাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

উপাচার্যসহ দুই শিক্ষকের পদত্যাগ দাবিতে ঢাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

‘অস্বচ্ছ’ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভর্তি নেওয়ার অভিযোগে উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামানসহ দুই শিক্ষকের পদত্যাগ দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। অন্যজন হলেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইতুল ইসলাম। এই দুই শিক্ষকের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা। গতকাল বেলা ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা নৈতিক স্খলনের কারণ দেখিয়ে তাদের পদত্যাগ চান।

রবিবার একটি দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফুঁসে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদের আট নেতার ছাত্রত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এতে চিরকুটের মাধ্যমে ভর্তিরও অভিযোগ করা হয়। অভিযুক্ত সবাই ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতা। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পড়া শেষ হওয়ায় নির্বাচনের আগমুহূর্তে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের একটি সন্ধ্যাকালীন মাস্টার্স প্রোগ্রামে তারা ভর্তি হন।

 ভর্তির নীতিমালা অনুযায়ী, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই কেবল ওই প্রোগ্রামে ভর্তি হওয়া যায়। কিন্তু তাদের কেউই তাতে অংশ নেননি।’

মানববন্ধনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম হচ্ছে, ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি হওয়া। কিন্তু প্রশাসন ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান ৩৪ জন শিক্ষার্থীকে ভর্তি পরীক্ষা না নিয়ে অবৈধভাবে ছাত্রত্ব দিয়েছে, যাদের মধ্য থেকে ডাকসু ও হল সংসদে আটজন নির্বাচিত হয়েছেন।

এ সময় চিরকুটের মাধ্যমে ভর্তি নেওয়ার জন্য তিনি ঢাবি উপাচার্য ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিনের নৈতিক স্খলনের কারণ দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ অনুযায়ী তাদের পদত্যাগ দাবি করেন।

ঢাবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি সালমান সিদ্দিকী বলেন, ১১ মার্চের ডাকসু নির্বাচনে শুধু ভোট কারচুপির মধ্য দিয়েই নয়, জালিয়াতির মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগের নেতাদের ছাত্র হিসেবে দেখিয়ে নির্বাচিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হয় ভর্তি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে, চিরকুটের মাধ্যমে নয়। তাই চিরকুট ইস্যুতে উপাচার্যের নৈতিক স্খলন ঘটেছে।

ডাকসুর সাহিত্য সম্পাদক প্রার্থী আকরাম হোসেন জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত শিক্ষক এবং জালিয়াতি করে ভর্তি হওয়া সব ছাত্রনেতাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবি জানান।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা তিন দফা দাবি জানান। এগুলো হলো- জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়া ছাত্রদের বহিষ্কার ও ডাকসুর পদগুলোকে শূন্য ঘোষণা করে পুনরায় উপনির্বাচন দিতে হবে, ক্ষমতার অপব্যবহার এবং নৈতিক স্খলনের দায়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিনকে পদত্যাগ করতে হবে, চিরকুটের মাধ্যমে অবৈধভাবে ভর্তি করানোর দায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং ডাকসু সভাপতিকে পদত্যাগ করতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর