শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪১

চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ১০ বাস

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ১০ বাস

চট্টগ্রাম মহানগরীর স্কুলে যাতায়াতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের বিআরটিসির ১০টি দ্বিতল বাস পেয়েছে শিক্ষার্থীরা। নগরের দুটি সড়কে বাসগুলো যাতায়াত করবে। যে কোনো গন্তব্যে যেতে শিক্ষার্থীর ভাড়া গুনতে হবে পাঁচ টাকা। আর এ ভাড়া আদায় করবে ‘সততা বক্স’ নামের একটি বক্স। আগামী ২০ জানুয়ারি থেকে দ্বিতল বাসগুলো দুই সড়কে সকাল ও সন্ধ্যায় চলাচল করবে।  চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের শিক্ষা শাখা সূত্রে জানা যায়, উদ্বোধন হওয়ার পর সরকারি-বেসরকারি স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা পরিচয়পত্র দেখিয়ে বাসগুলোতে যাতায়াত করতে পারবে। যে কোনো গন্তব্যেই যেতে ভাড়া নেওয়া হবে পাঁচ টাকা। ভাড়া পরিশোধও করতে হবে ভিন্ন পদ্ধতিতে। ভাড়া আদায়ের জন্য সহকারীর বদলে বাসের সামনে ও পেছনের অংশে থাকবে তালাবদ্ধ দুটি বক্স। ‘সততা বক্স’ নামের এই বক্সগুলোতে নিজের উদ্যোগেই শিক্ষার্থীরা ভাড়ার পাঁচ টাকা ফেলবে। দ্বিতল বাসগুলোর প্রতিটিতে ৭৩টি  সিট থাকবে। বাসগুলো তদারকিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (শিক্ষা ও আইসিটি) নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, এটি অনন্য দৃষ্টান্ত। এর মাধ্যমে নগরে শিক্ষার্থীদের যানবাহন সংকট নিরসন হবে। 

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আবু হাসান সিদ্দিক বলেন, ‘প্রতিটি শিক্ষার্থীকে তার গন্তব্যে যেতে লাগবে মাত্র পাঁচ টাকা। এ টাকা আদায়ে কোনো বাস সহকারী থাকবে না, সততা বক্সেই শিক্ষার্থীরা নিজে টাকা রাখবে।’ 

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বাসগুলো নগরের দুটি সড়ক দিয়ে চলাচল করবে। এর মধ্যে ১ নং রুটের বাসগুলো বহদ্দারহাট থেকে ছেড়ে বাদুড়তলা, মুরাদপুর, চকবাজার, গণি  বেকারি, জামালখান, চেরাগী পাহাড়, আন্দরকিল্লা ও কোতোয়ালি হয়ে নিউমার্কেট যাবে। একইভাবে নিউমার্কেট থেকে ছেড়ে একই পথ দিয়ে বহদ্দারহাট যাবে। অন্যদিকে ২ নং রুটের বাসগুলো অক্সিজেন, মুরাদপুর, ২ নং গেইট, জিইসি মোড়, ওয়াসা, টাইগারপাস হয়ে আগ্রাবাদ যাবে। একইভাবে আগ্রাবাদ, টাইগারপাস, ওয়াসা, জিইসি মোড়, ২ নং গেইট, মুরাদপুর হয়ে অক্সিজেন যাবে।

জানা যায়, শিক্ষার্থীদের জন্য ভাড়া পাঁচ টাকা করে রুট নির্ধারণ করে ওই বাবদ সাড়ে চার লাখ টাকা আয় হলেও ব্যয় হবে সাড়ে ৯ লাখ টাকা। দ্বিতল বাসের চালক সংকট ও পরিবহন ব্যয়ের সংস্থান নিয়ে দীর্ঘ নয় মাস ঝুলে থাকে। গত ২৬ জুন বাসের রুট, রক্ষণাবেক্ষণ ভাড়াসহ নানা বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মতামত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ১০ লাখ টাকা অনুদান ঘোষণা করা হয়। তবে ঘাটতি পূরণে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান জিপিএইচ ইস্পাতের সঙ্গে চুক্তি হয়। চুক্তি মতে, বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে প্রতি মাসে পাঁচ লাখ টাকা হারে বছরে এক কোটি ২০ লাখ টাকায় ২ বছরের জন্য চুক্তি করা হয়। 

প্রসঙ্গত, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৯ সালের ১৫ এপ্রিল শিক্ষার্থীদের জন্য ১০টি বাস বরাদ্দের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর