শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০৫

খুলনায় সমন্বয়হীনতায় ভোগান্তির দায় কার

চার বছর পর কেডিএ-কেসিসি বৈঠক, তুমুল বিতর্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

খুলনায় সমন্বয়হীন উন্নয়নে ভোগান্তি নিয়ে বিভিন্ন নাগরিক সংগঠনের আন্দোলনের মধ্যেই দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছে কেডিএ ও কেসিসি। প্রায় চার বছর পর দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বৈঠকে শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে কেডিএর নির্মিত সড়ক সংস্কার, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও লাভজনক অবকাঠামো হস্তান্তর নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়েছে। কেসিসি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক বলেছেন, ‘সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড থেকে কেডিএ আয় করবে আর বাসস্ট্যান্ড বাইপাস সংযোগ সড়ক মেরামতে আমরা টাকা ব্যয় করব তা হবে না। কোনো নিম্নমানের সড়ক আমরা নেব না। প্রয়োজনে মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।’ গতকাল কেডিএর সম্মেলন কক্ষে দুই পক্ষের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জানা যায়, খুলনার বাস্তুহারা সিটি বাইপাস ও সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড সড়ক দুটি নির্মাণের দুই বছরের মধ্যে কার্পেটিং খোয়া উঠে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কেডিএ বা কেসিসি কোনো পক্ষই সড়ক দুটি মেরামত না করায় সাধারণ মানুষের ভোগান্তি বাড়ছে। এ ছাড়া কেডিএ নির্মিত আবাসিক এলাকাগুলোতে বর্জ্য ডাম্পিং পয়েন্ট না থাকায় পরিচ্ছন্নতা কাজে কেসিসিকে নাজেহাল হতে হয়।  জানা যায়, সমন্বয়হীনতায় এ ভোগান্তি নিয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি কেডিএর সামনে ঘণ্টাব্যাপী অবস্থান ধর্মঘট করে বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি। কেডিএর প্রধান প্রকৌশলী কাজী মো. সাবিরুল আলম জানান, ২০১৭ সালের পর শীর্ষ পর্যায়ের এ আনুষ্ঠানিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হলো। কেডিএ রাস্তাঘাট-ড্রেন তৈরির পর নিয়মানুযায়ী তা হস্তান্তর করবে। রাস্তা করার পর তার পাশের বিল্ডিং থেকে হোল্ডিং ট্যাক্স কেসিসি নেয়, তাহলে ওই বাড়িতে যারা বসবাস করেন, তাদের চলাচলের রাস্তাটা ভালো করার দায়িত্ব কেসিসির। আমরা মেইনটেনেন্স করার ফান্ড পাই না, হোল্ডিং ট্যাক্সও নেই না। এদিকে কেডিএ নির্মিত লাভজনক অবকাঠামো নিউমার্কেট, সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডকে কেসিসির কাছে হস্তান্তরের দাবি জানানো হলেও তার সুযোগ নেই বলছে কেডিএর কর্মকর্তারা। তারা বলেন, ২০০৪ ও ২০১১ সালে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে দুই দফায় জানানো হয়েছে নিউমার্কেট, বাসস্ট্যান্ড হস্তান্তরের কোনো সুযোগ নেই। সে ক্ষেত্রে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে নতুন সিদ্ধান্ত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর